Widget by:Baiozid khan
শিরোনাম:

ঢাকা Sun September 23 2018 ,

রাজধানীতে শুরু হচ্ছে ‘ই-কমার্স সপ্তাহ’

Published:2013-01-02 06:58:33    

ঢাকা : আগামী ৫ জানুয়ারি থেকে রাজধানীতে প্রথমবারের মতো শুরু হচ্ছে ‘ই-কমার্স সপ্তাহ’। বাংলাদেশ ব্যাংক ও বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস) এর যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত সপ্তাহব্যাপী এ আয়োজনে থাকছে ই-কমার্স বিষয়ক প্রদর্শনী, একাধিক সেমিনার, গোলটেবিল বৈঠক ও কনসার্ট। ‘অনলাইনে কেনাকাটা করুন, যেকোনো কিছু, যেকোনো সময়’ এই থিম নিয়ে শুরু হচ্ছে ই-কমার্স সপ্তাহ। এ আয়োজনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্ণর ড. আতিউর রহমান।

এ আয়োজন উপলক্ষে বেসিস সম্মেলন কক্ষে বুধবার এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এতে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্ণর নাজনীন সুলতানা, বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক দাসগুপ্ত অসীম কুমার, বাংলাদেশ ব্যাংকের মহাব্যবস্থাপক হুমায়ুন কবির, বেসিসের সভাপতি এ কে এম ফাহিম মাশরুর, ব্রাক ব্যাংকের হেড অব কার্ডস তৌফিক হাসান, ডাচ-বাংলা ব্যাংক লিমিটেডের বিভাগীয় প্রধান কামরুজ্জামান এবং এসএসএল কমার্সের প্রধান নির্বাহী সাইফুল ইসলাম।

এতে সপ্তাহব্যাপী এ আয়োজনের বিস্তারিত বিবরণ তুলে ধরেন ই-কমার্স সপ্তাহ’র আহ্বায়ক ও বেসিসের সিনিয়র সহ-সভাপতি শামীম আহসান।তিনি বলেন, ই-কমার্সে সপ্তাহের প্রধান উদ্দেশ্য হচ্ছে জনসাধরণকে অনলাইনে কেনাকাটা করার ব্যাপারে উৎসাহিত করা, ব্যবসায়ীদের ই-কমার্স কার্যক্রমে অধিকতর অংশগ্রহণ নিশ্চিত করা এবং ই-কমার্স বাস্তবায়নে বিদ্যমান সমস্যা মোকাবেলায় নীতি নির্ধারক মহলে আলোচনা ও মতবিনিময়ের আয়োজন করা।  

সম্মেলনে জানানো হয়, ই-কমার্স সপ্তাহ উপলক্ষে একাধিক গোলটেবিল বৈঠক, টেকনিক্যাল সেমিনার, বসুন্ধরা সিটি শপিং মল ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে বিশেষ প্রচারণা কার্যক্রম পরিচালিত হবে।

এ আয়োজন বিষয়ে বেসিস সভাপতি এ কে এম ফাহিম মাশরুর বলেন, ই-কমার্স কার্যক্রম সম্প্রসারণে বাংলাদেশ ব্যাংক ইতোমধ্যেই ন্যাশনাল পেমেন্ট সুইচ চালু করাসহ বেশিকিছু গুরুত্বপূর্ণ নীতি প্রণয়ন করেছে। ই-কমার্স সপ্তাহ আয়োজনের মধ্য দিয়ে আপামর জনসাধারণের দোরগোড়ায় বিভিন্ন পণ্য ও সেবা পৌঁছে দেয়ার একটি সুযোগ তৈরি হবে। যার একটি ইতিবাচক প্রভাব আমাদের অর্থনীতিতেও পড়বে বলে আমরা আশা করছি।

বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্ণর নাজনীন সুলতানা বলেন, সম্প্রতি বাংলাদেশ ব্যাংক ন্যাশনাল পেমেন্ট সুইচ চালু করেছে। শুরুতে মাত্র তিনটি ব্যাংক দিয়ে শুরু করলেও আগামী ১ মাসের মধ্যে সবগুলো ব্যাংক এ পেমেন্ট সুইচের আওতায় চলে আসবে। ফলে যেকোন ব্যাংকের গ্রাহক সহজে যেকোন বুথ থেকে টাকা তুলতে পারবে এবং সহজে পেমেন্ট করতে পারবে। এর ফলে এখন একটি এটিএম বুথ সবাই শেয়ার করে ব্যবহার করতে পারবে। ফলে ব্যাংক অবকাঠামোগত খরচ কমে আসবে, যার সুফল গ্রাহকরা পাবে।  

তিনি বলেন, বাংলাদেশ ব্যাংকের সিআইবি এখন খুব সহজে অনলাইনে পাওয়া যায়। ইলেক্ট্রনিক ফান্ড ট্রান্সফার সিস্টেম বিএফটিএন’র মাধ্যমে আন্তঃব্যাংক কার্যক্রম ছাড়াও এখন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়সহ ১৮ মন্ত্রণালয়ের বেতনবাতা সরাসরি পেমেন্ট করা হচ্ছে।

নাজনীন সুলতানা বলেন, ই-কমার্স বিষয়ক কার্যক্রম জনপ্রিয় করার জন্য বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে সম্ভব সব রকম প্রচেষ্টা অব্যাহত আছে।

তিনি আরো বলেন, এই ই-কমার্স সপ্তাহকে উপলক্ষে করে ই-কমার্স বিষয়ক সচেতনতা আমাদেরকে বছরব্যাপী করতে হবে।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, পে-প্যাল সেবা বাংলাদেশে নিয়ে আসার বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক, বেসিস ও পে-প্যাল কর্তৃপক্ষ যৌথভাবে কাজ করে যাচ্ছে। আশা করা হচ্ছে শীঘ্রই পে-প্যাল বাংলাদেশে কার্যক্রম শুরু করবে।

সপ্তাহব্যাপী আয়োজিত ই-কমার্স উইকে সেমিনার এবং গোলটেবিলের মধ্যে উদ্বোধনী দিন ৫ জানুয়ারি সকাল ১১টায় বেসিস মিলনায়তনে থাকছে ই-কমার্স বিষয়ক টেকনিক্যাল কনফারেন্স (রুবি অন রেইলস) শীর্ষক সেমিনার। ই-কমার্স সপ্তাহ উপলক্ষে আগামী ১২ জানুয়ারি বিকেলে ধানমন্ডির রবীন্দ্র সরোবরে অনুষ্ঠিত হবে ‘ই-কমার্স কনসার্ট’।

আরো বিস্তারিত জানা যাবে www.basis.org.bd ঠিকানায়।

 

 

বাংলাসংবাদ২৪/এনডি/এসজে/বিএইচ