Widget by:Baiozid khan
শিরোনাম:

ঢাকা Mon September 24 2018 ,

''ভিননো'': একটি ভিন্ন গানের দল, একটি স্বপ্নের সেতু

Published:2013-10-06 20:54:16    

ঢাকা: গান পাগল মানুষেরা গান ছাড়া কী থাকতে পারে? পারে না। গান পাগলেরা বিশ্বাস করে ''গান জীবনের কথা বলে, মানুষকে হাসায়, কাঁদায় আর এই হাসি কান্নার মাঝে খুজে পায় অদ্ভূদ এক তৃপ্তির স্বাদ; যে স্বাদ অন্য কোথাও নেই।


শত বছর আগে বাংলাদেশে লালন গীতি মানুষের হৃদয় দখল করে নিয়েছিল। লালনের গানের আসর মানুষকে বেধে রাখত এক অদৃশ্য সুতায়।
হাছন রাজার গান মানুষকে জীবন সম্পর্কে ভাবাতো নতুন ভাবে।
ভাটিয়ালি-ভাওয়াইয়া গান ছারা মাঝিদের বৈঠা যেন চলতোই না।


মানুষের হৃদয়ের কথা প্রকাশ পেয়েছে নজরুল-রবীন্দ্রনাথের গানেও। কিন্তু এরপর গানের পুরু ব্যাপারটিই টাকা-পয়সা আর ওপরে উঠার সিড়ি দ্বারা  নিয়ন্ত্রিত হওয়া শুরু করে। গানের মান আর মর্মাথের বদলে জায়গা করে নেয় অত্যাধুনিক ফ্যাশন, অশালীন অঙ্গভঙ্গি, বাদ্যযন্ত্র আর অজে বাজে কথাবার্তা।


এমতাবস্থায় মননশীল শ্রোতারা যখন কানে আঙ্গুল চেপে তরুনদের গাল পারতে শুরু করলেন, তখন দুই তরুন গড়ে  তুলেন  মননশীল গানের এক দল, ''ভিননো''। লোক সঙ্গীত আর গানের মাদ্যমে দেশীয় ঐতিহ্য ফুটিয়ে তুলাই এই দলের কাজ। রাধা-কৃষ্নের প্রেম থেকে শুরু করে সাধকের কাহিনিও ফুটে উঠে তাদের গানের মাধ্যমে। মাহি আর শাওন এই দুই সাধক এ ধরনের গানের  জন্য করে যাচ্ছেন সাধনা।


তাদের  কয়েকটি    গানের      কিছু কথা এখানে দেওয়া হল।

১.না বুঝে তুমি হারিয়ে গেলে, করলে অভিমান--
মান ভাঙ্গাতে পারলাম না, কাল হল যে গান !!!

২.কঁচু পাতার পানির মতো বন্ধু তোমার মন
পড়ি পড়ি করে তবু ঘোরে সারাক্ষণ
পাগল মন
পাগল মন
পাগল মনরে !

৩.হরেক রকম বৃক্ষ লতা থাকবে আমার বাড়ি
আনন্দেতে মাতবে তোমার পোষ্য পশু পাখি
সন্ধ্যা হলে দুজন মিলে যাবো বাড়ির ছাদে
আমার কাঁধে মাথা রেখে চাঁদ দেখিবে রাতে

৪.ঘুরিলাম নগর, ঘুরিলাম বন্দর
কথা বলিলাম, ভরল না অন্তর
অভিনয়ে সমাজের মান রেখেছি...

এছাড়াও তাদের রয়েছে এ ধরণের অনেক গান।


''ভিননো'' ব্যান্ডের সদস্যরা জীবনকে খঁজে পায় গানের মাঝে। এই ব্যন্ডের সদস্যরা গানের মাঝে মানুষের জীবন, দেশ বিদেশের সংস্কৃতির কথা ভিন্ন ভাবে উপস্থাপন করে তৃপ্তি পায় এবং সেই সাথে চেষ্টা করে অন্যদেরকে তৃপ্তি দিতে।

বাংলাসংবাদ২৪/সাদিক