Widget by:Baiozid khan
শিরোনাম:

ঢাকা Fri December 13 2019 ,

  • Techno Haat Free Domain Offer

সুস্বাস্থ্য রক্ষায় সকাল বেলায় করনীয়

Published:2014-01-30 17:58:33    

লাইফ স্টাইল ডেস্ক : একটি সুন্দর জীবন কে না চায়? আর সুন্দর জীবনের মূল চাবিকাঠি হলো সুস্বাস্থ্য। সুস্বাস্থ্য পেতে হলে চাই ছন্দেবাঁধা জীবন, পরিমিত আহার গ্রহণ এবং নিয়ম মেনে চলা। কিন্তু এই দৌড়ঝাঁপের জীবনে নিজের প্রতি এত খেয়াল রাখার সময় কোথায়। এতকিছু না হোক, নিজের সামান্য একটু যত্ন, কিছু সুঅভ্যাস আপনাকে রাখতে পারে সুস্থ ও নীরোগ। সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর নিজের পেছনে সামান্য কিছু সময় ব্যয় করে কিছু কাজ নিয়মিত করলেই আপনি হতে পারেন সুস্বাস্থ্যের অধিকারী।

খালি পেটে পানি পান করুন :
সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর খালি পেটে পানি পান করুন। এতে আপনার শরীরের মেটাবলিজম ত্বরান্বিত হবে এবং ওজন বৃদ্ধি পাবার সম্ভাবনা কমে যাবে। সম্ভব হলে এক গ্লাস কুসুম গরম পানিতে ২ চা চামচ মধু মিশিয়ে পান করুন। এতে আপনার পেটের যাবতীয় সমস্যা দূর হয়ে যাবে। পেট পরিষ্কার থাকবে ও কোষ্ঠকাঠিন্য দূর হবে।

দাঁত পরিষ্কার করুন :
আমরা প্রায় সকলেই ঘুম থেকে উঠে নাশতা করার আগে দাঁত ব্রাশ করি। আসলে সকালে দাঁত ব্রাশ করার নিয়ম হলো নাশতার পর দাঁত ব্রাশ করা। যদি আপনি রাতে দাঁত ব্রাশ করে ঘুমান, তাহলে নাশতা করার আগে শুধু কুলি করে নিন। এরপর নাশতা করার পর দাঁত ভালো করে ব্রাশ করে পরিষ্কার করুন। এতে আপনার মুখ ও দাঁত সারাদিনের জন্য পরিষ্কার থাকবে এবং নিঃশ্বাসেও খুব বেশি দুর্গন্ধ হবে না।

ব্যায়াম করুন :
নিয়মিত ব্যায়াম আপনাকে করবে সুস্বাস্থ্যের অধিকারী। প্রতিদিন ঘুম থেকে ওঠার পর নিয়মিত ব্যায়াম করুন। অল্প সময়ের ব্যায়ামেই আপনি পাবেন দীর্ঘমেয়াদী ফল। আপনি থাকবেন সারা দিনের জন্য ঝরঝরে এবং কর্মক্ষম। জোরে হাঁটা বা দৌড়ানো খুব ভালো ব্যায়াম। ঘুম থেকে ওঠার পর প্রতিদিন ৩০ থেকে ৪০ মিনিট হাঁটতে পারেন। এছাড়া করতে পারেন হালকা কোনো ব্যায়াম।

শবাসন করুন :
আমাদের উপমহাদেশে উদ্ভাবিত যোগ ব্যায়াম আজ সারা বিশ্বে সমাদৃত, অথচ আমরা অনেকে এ বিষয়ে একবারেই অজ্ঞ। এ ব্যায়ামের মূল বৈশিষ্ট্য হলো বিশেষ ধরনের দেহভঙ্গিমা, যাকে আসন বলা হয়। একেক আসনে দেহে একেকভাবে চাপ পড়ে, যা দেহের একেক অংশের উপকার সাধন। এসব আসনে কিছুক্ষণ থাকার পর একটি বিশেষ আসনে বিশ্রাম নিতে হয় যাকে শবাসন বলে।

মনকে চিন্তামুক্ত রেখে বালিশ ছাড়া চিত হয়ে হাত-পা ছড়িয়ে শুয়ে শবাসন করতে হয়। সকালে ঘুম ভাঙলে লাফিয়ে বিছানা থেকে না উঠে কিছুক্ষণ শবাসন করুন। এতে দৈহিক শক্তি ও আত্মবিশ্বাস বাড়ে। প্রতিদিন আধাঘণ্টা শবাসন করলে মেরুদণ্ড ভালো থাকে, অনেক পরিশ্রম ও মানসিক চাপ সহ্য করা যায় এবং দেহের যেকোনো ব্যথা ও লুকানো সমস্যা দূর হয়।

সকালে ভরপেট নাশতা করুন :
অনেকেই মোটা হয়ে যাবার ভয়ে সকালে ঠিকমতো নাশতা করেন না। এটা আসলে একটা ভুল ধারণা। বরং সকালে নাশতা না করলেই ওজন বৃদ্ধি পাবার সম্ভাবনা বেড়ে যায়। সকালে ভরপেট নাশতা করুন। এতে আপনার সারাদিনের কর্মক্ষমতা ঠিক থাকবে। দুপুরে ও রাতে অল্প পরিমাণে খেলেও সমস্যা হবে না। সকালের খাদ্য তালিকায় পুষ্টিকর খাবার রাখুন।

চা বা কফি নাশতার পরে খান :
সকালে ঘুম থেকে উঠে অনেকেই খালি পেটে চা বা কফি খান। এটা খুবই খারাপ একটা অভ্যাস। এতে বিভিন্ন ধরনের অসুখ-বিসুখ হবার সম্ভাবনা বেড়ে যায়। বিশেষ করে ক্রনিক অ্যাসিডিটি বা আলসারের সূত্রপাত এভাবেই হয়। এছাড়া কোষ্ঠকাঠিন্যের জন্যেও এ অভ্যাস দায়ী। তাই সকালে নাশতা করার পর চা বা কফি খান।

বাংলাসংবাদ২৪/কেএন
 

আরও সংবাদ