Widget by:Baiozid khan
  • Advertisement

দিনাজপুরে চাঞ্চল্যকর রোমানা হত্যার রহস্য উদঘাটন, মূল আসামী গ্রেফতার

Published:2015-07-28 00:38:09    
দিনাজপুর জেলা প্রতিনিধিঃ
দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলায় কলেজ ছাত্রী রোমানা আক্তার হত্যাকারীকে গ্রেফতার করে 
‌র্র্যাব-১৩। রোমানার প্রাক্তন প্রেমিক একই এলাকার ছোট শীতলাই গ্রামের মোঃ শহীদুল ইসলামের পুত্র মাহফুজ আলম মানিক (২৫) স্বীকার করেছে সে একাই রোমানাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপানোর পর অগুন দিয়ে পুড়িয়ে হত্যা করেছে। ২৬ জুলাই রাতে মানিককে রংপুর শহর থেকে র্যা ব গ্রেফতার করে।
সোমবার  দুপুর সাড়ে ১ টায় দিনাজপুর র্যাব সিপিসি-১ ক্যাম্পে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের এই তথ্য জানান র্যাব-১৩’র অধিনায়ক লে. কর্নেল কিসমত হায়াত পিপিএম। এ সময় দিনাজপুর র্যাব সিপিসি-১ ক্যাম্পের কমান্ডার মেজর মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল-মাহমুদ রাজু উপস্থিত ছিলেন। র্র্যাব
‌ জানিয়েছে প্রেমের সূত্র ধরেই ওই কলেজ ছাত্রীকে হত্যা করা হয়েছে। জানা গেছে, ২০১২ সাল থেকে দিনাজপুর জেলার বীরগঞ্জ উপজেলার বড় শীতলাই চৌধুরীপাড়া গ্রামের আব্দুল মালেকের মেয়ে রোমানা আক্তার মৌয়ের সঙ্গে একই এলাকার শহীদুল ইসলামের ছেলে মাহফুজ আলম মানিকের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। কিন্তু পারিবারিক অসম্মতি ও মৌয়ের একাধিক প্রেমের সম্পর্ক থাকায় মানিক অন্যত্র বিয়ে করে। কিন্তু বিয়ের পরেও মৌয়ের প্রতি তার দুর্বলতা থেকেই যায়। এ কারণে অন্য প্রেমিকের সাথে মৌয়ের মেলামেশা সে মেনে নিতে না পেরে ১৬ জুলাই রাতে মৌকে ডেকে নিয়ে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে।
পরে র্যাব সদস্যরা মৌয়ের ডায়েরির লেখনী থেকে প্রেমঘটিত ব্যাপার সন্দেহ করে তদন্ত শুরু করে। এক পর্যায়ে মাহফুজ আলম মানিক নিখোঁজ থাকায়  র্র্যা বর গোয়েন্দা দল আরোও তৎপরতা শুরু করে। রোববার দিবাগত রাতে  র্র্যাব সদস্যরা রংপুর থেকে মানিককে গ্রেফতার করে জিজ্ঞাসাবাদ করে। জিজ্ঞাসাবাদে সে মৌকে হত্যার কথা স্বীকার করে। 
উল্লেখ্য, গত ১৬ই জুলাই রাতে পথচারীরা বীরগঞ্জ উপজেলার সুজালপুর ইউনিয়নের আমতলী থেকে কবিরাজহাট যাওয়ার রাস্তার ভোগনগর ইউনিয়নের নওগা নাপিতপাড়ার নির্জন রাস্তায় মৌয়ের লাশ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে। মৌ এবার ঠাকুরগাঁওয়ের বালুয়াডাঙ্গী কারিগরি কলেজ থেকে এইচএসসি পরীক্ষা দিয়েছে। নিহতের গলায় ছুরিকাঘাত করে হত্যার পর মাথা থেতলে ও শরীরের নিচের অংশ আগুনে ঝলসে দেয়া ছিল।
 
আজাদ/তারিক 
 
 

আরও সংবাদ