Widget by:Baiozid khan
শিরোনাম:

ঢাকা Wed September 19 2018 ,

ঘটনা চাপা দিতে আরেক ঘটনা

Published:2016-06-08 11:55:00    
ঘটনা চাপা দিতে আরেক ঘটনা

A PHP Error was encountered

Severity: Warning

Message: file_get_contents(): https:// wrapper is disabled in the server configuration by allow_url_fopen=0

Filename: singlecontent/tcontent.php

Line Number: 32

A PHP Error was encountered

Severity: Warning

Message: file_get_contents(https://api.facebook.com/method/fql.query?format=json&query=SELECT+url%2C+normalized_url%2C+share_count%2C+like_count%2C+comment_count%2C+total_count%2C+commentsbox_count%2C+comments_fbid%2C+click_count+FROM+link_stat+WHERE+url+%3D+%27http%3A%2F%2Fbanglasongbad24.com%2Fcontent%2Ftnews%2F496%27): failed to open stream: no suitable wrapper could be found

Filename: singlecontent/tcontent.php

Line Number: 32

A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Trying to get property of non-object

Filename: singlecontent/tcontent.php

Line Number: 35

দিন যত যাচ্ছে, তত বাড়ছে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা। একটি ঘটনার রেশ না কাটতেই আরেক ঘটনা। একটি খুনের রহস্যভেদ না হওয়ার আগেই আরেক রহস্য। এভাবেই দেশে একের পর এক ঘটছে চাঞ্চল্যকর টার্গেট কিলিং। এখন পর্যন্ত যারা এই খুনের শিকার হয়েছেন তাদের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, ছাত্র, ব্লগার, ধর্মীয় নেতা, পীর, বিদেশী নাগরিক, সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের লোকজন, এমনকি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য এবং পুলিশ কর্মকর্তার স্ত্রীও রয়েছেন। চৌকস পুলিশ অফিসার এসপি বাবুল আক্তারের স্ত্রী হত্যার পরে পুরো দেশ এখন আতঙ্কের মধ্যে। সবাই কেবল একটি কথাই বলছেন, এর পর কে? কে হচ্ছেন খুনিদের পরবর্তী টার্গেট। এ দিকে একের পর এক পরিকল্পিত হত্যার ঘটনা ঘটলেও বেশির ভাগ ক্ষেত্রে খুনিরা ধরাছোঁয়ার বাইরে থকে যাচ্ছে। ঘটনার পর আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর শীর্ষ কর্মকর্তা এবং সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগগুলো থেকে খুনিদের ব্যাপারে প্রতিবারই কিছু কথা বলা হয়। কিন্তু বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই খুনিরা ধরা পড়ে না। 
অনুসন্ধানে দেখা গেছে, গত বছরের সেপ্টেম্বর মাস থেকে মূলত ব্যাপকহারে টার্গেট কিলিং ও হামলার ঘটনা শুরু হয়; যা এখনো অব্যাহত রয়েছে। সর্বশেষ গতকাল ৭ জুন সকাল ৯টায় ঝিনাইদহের নলডাঙ্গা সিদ্ধেশ্বরী মন্দিরের পুরোহিত আনন্দ গোপাল গাঙ্গুলী নন্দকে (৭০) গলা কেটে হত্যা করা হয়। সোনাইখালী গ্রামের মহিষের ভাগাড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। গত ৫ জুন ভোরে চট্টগ্রামের ব্যস্ততম জিইসি মোড়ে বহু মানুষের সামনে গুলি করে হত্যা করা হয় চৌকস পুলিশ অফিসার বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতুকে (৩২)। শিশু সন্তান মাহির আক্তারের চোখের সামনে দুর্বৃত্তরা মিতুকে গুলি ও ছুরিকাঘাতে হত্যা করে।
৫ জুন দুপুরের দিকে নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলার বনপাড়া মা মারিয়া গির্জার পাশে সুনীল দানিয়েল গমেজ (৬০) নামে খ্রিষ্টান সম্প্রদায়ের এক লোককে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা করা হয়।
৪ জুন রাতে রাজধানীর উত্তরা এলাকায় সেনাকর্মকর্তা কর্নেল খালেদ বিন ইউসুফের মা মনোয়ারা সুলতানা খুন হন।
গত ৭ মে রাজধানীর গুলিস্তানে দুর্বৃত্তদের হাতে গুরুতর আহত হন নবাবপুর পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই আনিছুর রহমান আনিছ। আগের দিন ৬ মে সন্ধ্যায় রাজশাহীর তানোর উপজেলায় মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ (৬০) নামে এক পীরকে গলা কেটে হত্যা করা হয়। তানোর উপজেলার বাধাইড় ইউনিয়নের একটি আমবাগান থেকে তার গলা কাটা লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।
গত ৩০ এপ্রিল টাঙ্গাইলের গোপালপুরে কুপিয়ে হত্যা করা হয় দর্জি দোকানি নিখিল চন্দ্র জোয়ার্দারকে। দোকান থেকে রাস্তায় নামিয়ে দুর্বৃত্তরা তাকে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান। গত ২৩ এপ্রিল রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক অধ্যাপক রেজাউল করিম সিদ্দিকীকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়। একই দিনে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় পরমানন্দ রায় নামে এক সাধুকে একই কায়দায় চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে ও গুলি করে হত্যা করে ঘাতকেরা। এক দিন পর গত ২৫ এপ্রিল রাজধানী কলাবাগান লেকসার্কাসে নির্মমভাবে খুন করা হয় ইউএসএইডের কর্মকর্তা জুলহাজ মান্নান সুমন ও তার বন্ধু মাহবুব রাব্বী তনয়কে। এভাবেই একের পর এক ঘটছে টার্গেট কিলিংয়ের ঘটনা। কিন্তু এ কোনো ঘটনারই কূলকিনারা মিলছে না। গত ২০ মার্চ কলেজছাত্রী সোহাগী জাহান তনু হত্যার রহস্য এখনো উদ্ঘাটন হয়নি। গত ৬ এপ্রিল সন্ধ্যায় রাজধানীর পুরান ঢাকায় ব্লগার ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র নাজিমুদ্দিনকে কুপিয়ে ও গুলি করে হত্যা করা হয়। গত ২৩ এপ্রিল সকালে প্রকাশ্য দিবালোকে গাজীপুরের কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগারের পাশে খুন হন সাবেক প্রধান কারারক্ষী রুস্তম আলী। এর আগে ২২ এপ্রিল মধ্যরাতে চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলায় কুপিয়ে ও গুলি করে দুইজনকে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। গোপালগঞ্জে সাধু পরমানন্দ রায় হত্যা মামলায় পুলিশ শরিফুল শেখ নামে এক আসামিকে গ্রেফতারের পর সাত দিনের রিমান্ডে নিলেও কোনো রহস্য উদঘাটন করতে পারেনি। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক অধ্যাপক এ এফ এম রেজাউল করিম সিদ্দিকী ও অধ্যাপক এ কে এম শফিউল ইসলাম লিলন হত্যা এবং বাগমারায় আহমদিয়া সম্প্রদায়ের মসজিদে আত্মঘাতী বোমা হামলার দায় স্বীকারের খবর দিয়েছিল ‘সাইট ইন্টেলিজেন্স গ্রুপ’। কিন্তু ওয়েবসাইটে পাওয়া এ তথ্যগুলোকে ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দিয়েছে পুলিশ। অধ্যাপক রেজাউল করিম হত্যা ও বাগমারায় মসজিদে হামলার ঘটনা সম্পর্কে এখনো অন্ধকারে পুলিশ। ২০১৪ সালের ১৫ নভেম্বর অধ্যাপক শফিউল ইসলাম হত্যার ঘটনাকে ব্যক্তিগত দ্বন্দ্বের জের উল্লেখ করে আদালতে অভিযোগপত্র দিয়েছে পুলিশ। দীর্ঘ সাত মাস অতিবাহিত হলেও পাবনার ঈশ্বরদী বিমানবন্দর সড়কের খ্রিষ্টান গির্জার যাজক লুক সরকারকে হত্যাচেষ্টা মামলার কোনো কূলকিনারা হয়নি। এ হত্যা প্রচেষ্টার প্রধান আসামি জেএমবি পাবনার আঞ্চলিক কমান্ডার রাকিবুল ইসলাম রাকিব ওরফে তাওহিদ ওরফে রাজনসহ ছয় ক্যাডারকে পুলিশ গ্রেফতার করে। গত বছরের ১২ মে সকালে সিলেট নগরীর সুবিদবাজার বনকলাপাড়ার নুরানীদীঘির দক্ষিণ কোনে কুপিয়ে খুন করা হয় ব্লগার ও ব্যাংকার অনন্ত বিজয় দাশকে। গত বছরের ২৬ ফেব্রুয়ারি ব্লগার অভিজিৎ রায়কে ৭ আগস্ট নিলাদ্রী চ্যাটার্জি ওরফে নিলয়, ৩০ মার্চ তেজগাঁওয়ে ব্লগার ওয়াসিকুর রহমান বাবু, ১২ মে সিলেটে ব্লগার অনন্ত বিজয় দাশ হত্যা, ২০১৩ সালের ১৫ জানুয়ারি ব্লগার আসিফ মহিউদ্দিনকে হত্যাচেষ্টা এবং একই বছরের ১০ এপ্রিল বুয়েটের ছাত্র ও ব্লগার আরিফুর রহমান দীপুকে হত্যার উদ্দেশ্যে হামলা করা হয়। 
গত বছরের ২৮ সেপ্টেম্বর রাজধানীর গুলশানে গুলি করে হত্যা করা হয় ইতালিয়ান নাগরিক তাভেলা সিজারকে। এ ঘটনার ছয় দিনের মাথায় রংপুরে দুর্বৃত্তদের গুলিতে নিহত হন জাপানি নাগরিক হোসিও কোনি। 
গত বছরের ৫ অক্টোবর রাতে রাজধানীর বাড্ডা থানার জ-১০/১ মধ্যবাড্ডার বাসায় নির্মমভাবে হত্যা করা হয় পিডিবির সাবেক চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার মুহম্মদ খিজির খানকে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর দাবি এ ঘটনায় জড়িত জঙ্গিরা।
গত ২২ অক্টোবর রাজধানীর গাবতলীতে চেকপোস্টে এক পুলিশ সদস্যকে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। ইব্রাহিম মোল্লা নামে পুলিশের ওই এএসআইসহ সাত-আট পুলিশ ও আনসার সদস্য চেকপোস্টে দায়িত্ব পালন করছিলেন। ঘটনার সময় একজন ধরা পড়লেও বাকিরা এখনো ধরাছোঁয়ার বাইরে। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, মামলাটির তদন্ত থেমে আছে।
গত ২৪ অক্টোবর রাজধানীর নাজিমউদ্দিন রোডের হোসনি দালানে ভয়াবহ বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এতে দুইজন নিহত এবং অন্তত ১৫০ মানুষ আহত হয়।
গত ২৬ নভেম্বর সন্ধ্যার পরে বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার চককানু গ্রামে শিয়া সম্প্রদায়ের আল মোস্তফা নামে একটি মসজিদে সন্ত্রাসীদের গুলিতে মসজিদের মুয়াজ্জিন মোয়াজ্জেম হোসেন (৭০) নিহত এবং ইমামসহ তিনজন গুরুতর আহত হন। 
গত ১১ ডিসেম্বর দিনাজপুরের কাহারোল উপজেলার জয়নন্দ ডহচি গ্রামে ইসকন মন্দিরে গুলি চালায় দুর্বৃত্তরা। এতে রঞ্জিত চন্দ্র রায় এবং মিঠুন চন্দ্র রায় নামে দুইজন গুলিবিদ্ধ হন। এর আগে গত ৪ ডিসেম্বর রাতে কাহারোলের কান্তজিউ মন্দিরে রাস মেলায় বোমা হামলার ঘটনায় ছয়জন আহত হন। ৩০ নভেম্বর রাতে চিরিরবন্দর উপজেলার রানীরবন্দরে দুর্বৃত্তদের গুলিতে বীরেন্দ্রনাথ রায় নামে এক হোমিও চিকিৎসক আহত হন। ১৮ নভেম্বর দিনাজপুর শহরের বিআরটিসি বাস ডিপোর কাছে ডা: পিয়েরো পিচম নামে এক ইতালীয় নাগরিক গুলিতে আহত হন। 
গত ২০ মে দুর্বৃত্তদের হামলায় কুষ্টিয়ার কবুরহাটের বটতৈল এলাকায় ছানোয়ার হোসেন (৫৫) নামে এক হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক নিহত এবং ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় বাংলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সাইফুজ্জামান গুরুতর আহত হন। হোমিও চিকিৎসক ছানোয়ার হোসেন কুষ্টিয়া সদরের শিশিরমাঠে গত ১৫ বছর ধরে প্রতি শুক্রবার ফ্রি চিকিৎসা প্রদান করে আসছিলেন। প্রতি শুক্রবারের মতো ওই দিন সকাল ১০টায় তিনি ইবি শিক সাইফুজ্জামানসহ সেখান যাচ্ছিলেন। তারা কুষ্টিয়ার কবুরহাটের বটতৈল এলাকায় পৌঁছলে তাদের চলন্ত মোটরসাইকেলে হামলা করে দুর্বৃত্তরা। হামলাকারীদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে ঘটনাস্থলেই মারা যান ছানোয়ার হোসেন ও অধ্যাপক সাইফুজ্জামান গুরুতর আহত হন। 
গত ২৫ মে গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে জুতা ব্যবসায়ী দেবেশচন্দ্র প্রামাণিককে (৬৮) গলা কেটে হত্যা করা হয়। মহিমাগঞ্জ বাজারে দোকানের ভেতরেই এ ঘটনা ঘটে। এর কয়েক দিন আগে গোবিন্দগঞ্জে তরুণ দত্তকে হত্যা করা হয়।
আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এবং সরকারের সংশ্লিষ্ট দফতরের কর্তা ব্যক্তিরা বরাবরই বলে আসছেন এ ঘটনায় সাথে জঙ্গিরা জড়িত। কোনো কোনো ক্ষেত্রে দু-একজন গ্রেফতারও হয়েছেন। কিন্তু বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই অপরাধীরা থেকে যাচ্ছে ধরাছোঁয়ার বাইরে। সম্প্রতি পুলিশের আইজি এ কে এম শহীদুল হক এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, জঙ্গিগোষ্ঠীর ঘটানো ৩৭টি হত্যাকাণ্ডের মধ্যে ২৫টির সাথেই নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জামায়াতুল মুজাহিদিন বাংলাদেশ (জেএমবি) জড়িত। আনসারুল্লাহ বাংলাটিম আটটি হত্যাকাণ্ডে জড়িত এবং বাকি চারটি ঘটনা সন্ত্রাসী অথবা অন্যান্য জঙ্গিগোষ্ঠী ঘটিয়েছে। ওই সংবাদ সম্মেলনের পরেও বেশ কয়েকটি ঘটনা ঘটেছে। বেশির ভাগ ঘটনার পরই পুলিশ ও গোয়েন্দাদের পক্ষ থেকে জঙ্গিদের সম্পৃক্ত থাকার দাবি করা হয়। চট্টগ্রামে বাবুল আক্তারের স্ত্রী হত্যার পরেও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকে ওই একই কথা বলা হয়েছে।