Widget by:Baiozid khan

ঢাকা Wed November 21 2018 ,

  • Advertisement

জঙ্গি দমনে সফল অভিযান, জীবিত উদ্ধারের দাবী বিএনপি'

Published:2016-10-09 12:41:29    
জঙ্গি দমনে সফল অভিযান, জীবিত উদ্ধারের দাবী বিএনপি'

A PHP Error was encountered

Severity: Warning

Message: file_get_contents(): https:// wrapper is disabled in the server configuration by allow_url_fopen=0

Filename: singlecontent/tcontent.php

Line Number: 32

A PHP Error was encountered

Severity: Warning

Message: file_get_contents(https://api.facebook.com/method/fql.query?format=json&query=SELECT+url%2C+normalized_url%2C+share_count%2C+like_count%2C+comment_count%2C+total_count%2C+commentsbox_count%2C+comments_fbid%2C+click_count+FROM+link_stat+WHERE+url+%3D+%27http%3A%2F%2Fbanglasongbad24.com%2Fcontent%2Ftnews%2F518%27): failed to open stream: no suitable wrapper could be found

Filename: singlecontent/tcontent.php

Line Number: 32

A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Trying to get property of non-object

Filename: singlecontent/tcontent.php

Line Number: 35

সরকার যে জঙ্গি দমনে জিরো টলারেন্স দেখাচ্ছে তা আবারো প্রমাণিত হলো গতকাল র্যাব-পুলিশের পৃথক অভিযানে ১২ জঙ্গি নিহত হওয়ার মধ্য দিয়ে। শারদীয় দুর্গোৎসব চলছে। সামনে আশুরা। এরমধ্যে নানা রকম নাশকতার আশঙ্কা করা হচ্ছিল। তাজিয়া মিছিলে গতবারের নাশকতার পর আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী যথেষ্ট তৎপর রয়েছে। পূজায় নিরাপত্তা নিশ্চিত করতেও নেয়া হয়েছে সব ধরনের ব্যবস্থা। বিশেষ করে জঙ্গি হামলা ঠেকাতে প্রশাসন বদ্ধ পরিকর। এরই অংশ হিসেবে জঙ্গি আস্তানায় হানা দেয়া হয়েছে। সফল এই অভিযানের পর স্বস্তি নেমে এসেছে জনমনে। জঙ্গি দমনে এ ধরনের অভিযান অব্যাহত রাখতে হবে।  
 
তবে বিএনপির পক্ষ থেকে উল্টো অভিযোগ করা হয়েছে। বিএনপি নেতা নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, জঙ্গিবাদে সম্পৃক্ততা প্রকাশ হওয়ার ভয়েই সরকার তাদের আটক না করে হত্যা করছে । শনিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন। জঙ্গিদের আটক ও জিজ্ঞাসাবাদের মাধ্যমে তাদের মূলোৎপাটনের দাবিও জানান তিনি।
 
নজরুল ইসলাম খান বলেন, ‘আমরা চাই যে, এসব জঙ্গিবাদের মূল পর্যন্ত সন্ধান করা হোক। কিন্তু যাকেই খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে তাকেই মেরে ফেলা হচ্ছে। তাদেরকে মেরে ফেলা হচ্ছে এ কারণে যে তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে এমন সব লোকের নাম বের হয়ে আসতে পরে যেটা সরকারের জন্য বিব্রতকর হতে পারে। অনেক সময় এনকাউন্টারে দু'একজনতো মরে যেতেই পারে। কিন্তু সবই মরে যায় এটা কেমন কথা।’
 
জঙ্গিবাদ ইস্যুতে নজরুল ইসলাম খান বলেন, ‘জঙ্গি দমনে সফল দল বিএনপি এবং আগামীতে ক্ষমতায় গেলে জঙ্গিদের মূল উৎপাটন করা হবে।’
 
কল্যাণপুরে জঙ্গি আস্তানায় পুলিশের সফল অভিযানের পর জঙ্গিরা একটি বার্তা পেয়েছিল। সেটি হচ্ছে সরকার যে কোনো মূল্যে জঙ্গিবাদের মূলোৎপাটনে বদ্ধপরিকর।  গতকালের সফল অভিযানে জনমনে এই ধারণা আরও পোক্ত হলো যে মানবতাবিরোধী জঙ্গিদের কোনো রেহাই নেই। গাজীপুর, টাঙ্গাইল ও সাভারে চার আস্তানায় র্যাব ও পুলিশের পৃথক অভিযান চালানো হয়। এতে নব্য জেএমবির ১২ জঙ্গি নিহত হয়েছে। গতকাল শনিবার ভোর থেকে বিকেল পর্যন্ত এসব অভিযান চালানো হয়। এর মধ্যে গাজীপুর সদরের নোওয়াগাঁওয়ের পাতারটেক এলাকায় পুলিশের অভিযানে নিহত হয়েছে সাতজন। তার আগে সদরের হাড়িনালের লেবুবাগান এলাকার একটি বাড়িতে র্যাবের অভিযানে নিহত হয়েছে দুই জঙ্গি। আর টাঙ্গাইল সদরের কাগমারা মির্জা মাঠ এলাকায় র্যাবের অভিযানে নিহত হয়েছে দুজন। সন্ধ্যায় আশুলিয়ায় র্যাব অভিযান চালিয়ে গ্রেপ্তার করে আবদুর রহমান ওরফে নাজমুলকে। নব্য জেএমবির অর্থ জোগানদাতা হিসেবে চিহ্নিত রহমান রাতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছে। আশুলিয়ার আস্তানা থেকে ৩০ লাখ টাকাসহ অস্ত্র ও বিস্ফোরক উদ্ধার হয়েছে। প্রায় ৯ ঘণ্টার অভিযানে গাজীপুরের দুই আস্তানা থেকে একে টোয়েন্টি টু রাইফেল, নাইন এমএম পিস্তল, বিস্ফোরক, গুলি, চাপাতি, গ্যাস সিলিন্ডার ও ল্যাপটপ জব্দ করা হয়েছে। গুলশান হামলার পর এ নিয়ে রাজধানীসহ বিভিন্ন স্থানে গত তিন মাসে পুলিশ ও র্যাবের অভিযানে ৩৩ জঙ্গি নিহত হলো।
 
জঙ্গি দমনে এ ধরনের অভিযান নিঃসন্দেহে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর একটি বড় সাফল্য। যখন একের এর এক জঙ্গি হামলার ঘটনা ঘটছে এবং দেশের মানুষ যখন জঙ্গিবাদের অভিশাপ থেকে মুক্তি পেতে চাচ্ছে তখন জঙ্গিদের অপতৎপরতা অঙ্কুরেই নষ্ট করে দেওয়া স্বস্তির বিষয়। আমরা এই সফল অভিযানের জন্য আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে অভিনন্দিত করি। তবে তাদের জীবিত গ্রেফতার করে পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদ করলে তাদের মদদদাতাদের মুখোশ উম্নোচন করা সম্ভব হবে বৈকি। বিষয়টিকে সরকার কিভাবে নেবেন তা নিছক সরকারের ব্যাপার। তবে ঘটনাটি বিভিন্ন স্তরের জনগণের মাঝে আলোচনার বিষয় হয়ে দাড়িয়েছে। 
 
জঙ্গিদের বাড়িভাড়া না দেওয়ার ব্যাপারে পুলিশের পক্ষ থেকে সতর্ক করা হয়েছিল। এরপরও বিভিন্ন স্থানে জঙ্গিদের বাড়ি ভাড়া দেওয়ার ঘটনা বিস্ময়কর। এ ব্যাপারে বাড়িওয়ালাদের সতর্ক থাকতে হবে। ভাড়াটিয়ার তথ্য যাচাই-বাছাই করে তবেই বাড়িভাড়া দিতে হবে।যদিও যখন কোন ব্যাক্তি বাড়ী ভাড়া নিতে আসেন তখন অনেক কৌশলের আশ্রয় নেন। সেক্ষেত্রে করা সতর্ক হওয়া বিকল্প নেই।