Widget by:Baiozid khan
শিরোনাম:

ঢাকা Tue September 25 2018 ,

নারায়ণগঞ্জ নির্বাচনে বেকায়দায় আ'লীগ,

Published:2016-12-01 16:27:41    
নারায়ণগঞ্জ নির্বাচনে বেকায়দায় আ'লীগ,

A PHP Error was encountered

Severity: Warning

Message: file_get_contents(): https:// wrapper is disabled in the server configuration by allow_url_fopen=0

Filename: singlecontent/tcontent.php

Line Number: 32

A PHP Error was encountered

Severity: Warning

Message: file_get_contents(https://api.facebook.com/method/fql.query?format=json&query=SELECT+url%2C+normalized_url%2C+share_count%2C+like_count%2C+comment_count%2C+total_count%2C+commentsbox_count%2C+comments_fbid%2C+click_count+FROM+link_stat+WHERE+url+%3D+%27http%3A%2F%2Fbanglasongbad24.com%2Fcontent%2Ftnews%2F523%27): failed to open stream: no suitable wrapper could be found

Filename: singlecontent/tcontent.php

Line Number: 32

A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Trying to get property of non-object

Filename: singlecontent/tcontent.php

Line Number: 35

শক্তি প্রয়োগে উপরে ওঠা যায়, মানুষের সত্যিকারের ভালবাসা অর্জন করা যায়না। তার জলন্ত প্রমাণ নারায়নগঞ্জের ওসমান পরিবার। সয়ং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সিন্ধান্তই তা পরিস্কার জানান দেয়। শক্তি, টাকা, জনবল এমনকি আন্ডারগ্রাউন্ড সন্ত্রাসী বাহিনী সমৃদ্ধ ওসমান পরিবারের সিংহের মতো গর্জনে যেন নারায়নগঞ্জ থরথর করে কাপে। সেই ওসমান পরিবারের ফ্রন্টে থাকা আ'লীগের ভ্যাটান নেতা শামিম ওসমানকে এবার মনোনয়ন দিলেন না শেখ হাসিনা। বরং মনোনয়ন সংক্রান্ত বৈঠকে শেখ হাসিনা উপোর্যপরি ধমক দিয়েছেন শামিম ওসমানকে। শামিম ওসমানের পক্ষ নেয়া নগর আ'লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন যার পর নাই ধমকের শ্বীকার হয়েছেন। এক পর্যায়ে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন- ‘তুমি পদত্যাগ করো বিদায় দিয়ে দিব’। নারায়নগঞ্জ সিটি গত নির্বাচনে যেখানে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করে নির্বাচিত হন সেলিনা হায়াত আইভি। সেই বিদ্রোহী প্রার্থীকেই এবার আওয়ামীলীগের দলীয় প্রার্থী হিসেবে ঘোষনা করা হয়েছে। এরই মাধ্যমে প্রমানিত হয়েছে জোড় করে মানুষের রায় গ্রহণ করা যায়না। প্রয়োজন হয় মানুষের কাছে গ্রহণযোগ্যতা। 
বিএনপি নির্বাচনে যাবে এই ঘোষনার সাথে সাথে নড়েচড়ে বসে ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগ। স্থানীয় আওয়ামীলীগের সম্ভাব্য দুই প্রার্থী শামীম ওসমান ও সেলিনা হায়াত আইভিকে ডেকে বসেন ফাটাকেষ্ট খ্যাত দলের নতুন চমক সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তাতে সারা দেয়নি কেউই। শেষ উইকেট হিসেবে দলের প্রধান শেখা হাসিনা ডেকে নিয়ে দলীয় মনোনয়ন বিষয়ে চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত দেন। এরপর থেকেই সরগরম হয়ে উঠে ভোটের ময়দান। সেনাবাহিনী মোতায়েন বিষয়ে মত দেন বিএনপি প্রার্থী অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান, বিপক্ষে মত দেন সেলিনা হায়াৎ আইভি। বিএনপি বলেছে ভোট দেয়ার পরিবেশ পেলে নায়ারায়নগঞ্জে এবার বিএনপি প্রার্থী জয়ী হবে। মঙ্গলবার রাতে খালেদা জিয়ার সাথে জোটের নেতৃবৃন্দের সভা অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে জোটের নেতৃবৃন্দ একযোগে ২০দলীয় প্রার্থী হিসেবে সমর্থন দেন বিএনপি প্রার্থী অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খানকে। এক জড়িপে উঠে এসেছে নারায়নগঞ্জে ভোটারের ৭১ শতাংশ ২০দলীয় জোট প্রার্থীর পক্ষে যাবে। অপরদিকে আওয়ামীলীগের শামীম ওসমানের পক্ষে কাজ করা বড় সংখ্যক ভোট আইভিকে দেবেননা বলে গুঞ্জন উঠেছে। যদিও প্রটৌকল ঠিক রাখতে শামিম ওসমান আইভির পক্ষেই কাজের ঘোষনা দিয়েছেন। অনেকের ধারণা শামিমের ভক্তদের ভোট আইভির ভোট বাক্সে যাবেনাতো বটেই, কিছু ভোট বিএনপি প্রার্থীর বাক্সে গোপনে চলে যেতে পারে। 
এদিকে সময় যত গড়াচ্ছে শামিম-আইভি দুরত্ব কিছুটা কমছে বলে অনেকে মত দিয়েছেন। তবে মনোনয়নপত্র জমার দিন শামিম ওসমান তার বিশাল বাহিনী সহ আইভির জন্য অপেক্ষা করেন আইভি শামিমকে ডেকে নেবেন বলে। বেশকিছু সময় অপেক্ষা শেষে শামীম ওসমান আইভিকে মোবাইল ফোনে টেক্সট লেখেন। তাতে রেসপন্স করেননি আইভি। অভিযোগ করে ওবায়দুল কাদেরের কাছেও মেসেস দেন শামিম ওসমান। তাতেও কোন রেসপন্স না পেয়ে শামিম ওসমান অনেকটা বিব্রত অবস্থায় পড়েন। মনোনয়নপত্র জমার পর নির্বাচন কমিশন থেকে বের হয়ে সেলিনা হায়াত আইভি প্রকাশ্যে বলে- ‘শামিম আমার সাথে আসলেও ভাল, না আসলে আরোও ভাল’। এতেও পরিস্কার হয়ে উঠে, শামীম ওসমান আইভির বাধা হয়ে দাড়িঁয়েছে বৈকি। 
তবে তারা একে অপরের বিরুদ্ধে বিষোদাগার ও আপত্তিকর মন্তব্যও করছেন বলে জানা গেছে। এ নিয়ে গত দুই দিন আইভী ও শামীম ওসমান পৃথকভাবে ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে একে অপরের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ করেন। শামীম ওসমানের বাবাকে নিয়ে আইভী আপত্তিকর মন্তব্য করায় তাদের মধ্যকার এ দ্বন্দ নতুন করে আলোচনার জন্ম দিয়েছে।
সেলিনা হায়াৎ আইভী গত রোববার দুপুরের পর ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে নির্বাচনের প্রস্তুতি অবহিত করার পাশাপাশি তুলে ধরেন নানা সমস্যা। এ সময় শামীম ওসমানের ভূমিকা নিয়ে নিজের নানা সন্দেহ ও সংশয়ের কথাও তুলে ধরেন তিনি। এদিকে প্রয়াত বাবা সাবেক সংসদ সদস্য এ কে এম শামসুজ্জোহাকে জড়িয়ে আইভী আপত্তিকর মন্তব্য করায় প্রতিবাদে দল থেকে শামীম ওসমান পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে বিভিন্ন সূত্রে বলছে। এ ছাড়া গণভবনে দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করে ঐক্যবদ্ধভাবে নির্বাচনে নৌকার পক্ষে কাজ করার প্রতিশ্রুতি দিলেও গত এক সপ্তাহে কেউ কারো সঙ্গে কোনো সেভাবে যোগাযোগ করেননি। 
 
আ'লীগের রু লেভেলের নেতারা শামসুজ্জোহা শুধু শামীম ওসমানের বাবা হিসেবেই নন; তিনি আওয়ামী লীগের অন্যতম একজন প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ছিলেন বলে মত দিয়েছেন। বঙ্গবন্ধু নিজেও ‘অসাপ্ত আত্মজীবনী’-তে উল্লেখ করেছেন জ্জোহা ও তার পরিবারের অবদানের কথা। তিনি আমাদের নেতা ছিলেন। তাকে নিয়ে সেলিনা হায়াৎ আইভী যে আপত্তিকর মন্তব্য করেছেন সেটি তিনি মোটেও ঠিক করেননি। এতে করে শুধু আমরাই নই, নারায়ণগঞ্জের সিনিয়র আওয়ামী লীগ নেতা ও সাধারণ মানুষ খুবই ক্ষুব্ধ হয়েছেন। আমরা তার এ ধরনের আপত্তিকর মন্তব্য কোনোভাবেই গ্রহণ করতে পারি না। এ ব্যাপারে দলের হাইকমান্ডকে ব্যবস্থা নিতেও অনুরোধ করেন অনেক নেতা। 
বিপরিত দিকে দিনে দিনে চাঙ্গা হচ্ছে ২০ দলীয় প্রার্থীর প্রচারণার ধরন। খালেদা জিয়াও বলেছেন তিনি নিজে মাঠে নামবেন নারায়নগঞ্জের মানুষের কাছে ভোট চাইতে। জোটের অন্যান্য দলের প্রতিনিধিদের নিয়ে সভায় খালেদা জিয়া পরিস্কার বলেছেন সম্বিলিত প্রচেষ্টায় নারায়নগঞ্জ নির্বাচনে ২০ দলীয় জোট প্রার্থীকে বিজয়ী করে আনতে হবে। বিগত ৪বছর মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পালন করা সেলিনা হায়াৎ আইভির জনপ্রিয়তাও আগের মতো নেই বলে মন্তব্য করছেন স্থানীয় নির্বাচন পর্যবেক্ষকরা। কারন উন্নয়নের যে প্রতিশ্রুতি তিনি দিয়ে নির্বাচিত হয়েছিলেন তার ধারের কাছেও নাকি যেতে পরেনি আইভি। ফলে তার বিজয়ের বিষয়টি গতবারের মতো এতো বেশি পরিস্কার নয় এবার। কিন্তু ক্লিন ইমেজে থাকা আইনজীবি নেতা শাখাওয়াত হোসেন খান একদিকে প্রথমবারের মতো প্রার্থী, অপরদিকে আপাতত কোন গ্রুপিং এর খবর নেই তার নির্বাচনী মাঠে। তবে ছোট-খাটো সমস্যা মোকাবেলা ও নির্বাচনী তরী দ্রুতগতিতে এগিয়ে নিতে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়কে প্রধান করে ছয় সদস্যের নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচন সমন্বয় কমিটি গঠন করেছে দলটি। ফলে সকল বিবেচনা নির্বাচন পূর্ব সময়ে আ’লীগকে অনেকটা ভাবনায় ফেলেছে বলে মনে হচ্ছে।