Widget by:Baiozid khan
শিরোনাম:

ঢাকা Mon May 20 2019 ,

  • Techno Haat Free Domain Offer

বাজার সহনীয় রাখার উদ্যোগ জরুরী

Published:2017-10-29 08:38:08    
বাজার সহনীয় রাখার উদ্যোগ জরুরী

A PHP Error was encountered

Severity: Warning

Message: file_get_contents(): https:// wrapper is disabled in the server configuration by allow_url_fopen=0

Filename: singlecontent/tcontent.php

Line Number: 32

A PHP Error was encountered

Severity: Warning

Message: file_get_contents(https://api.facebook.com/method/fql.query?format=json&query=SELECT+url%2C+normalized_url%2C+share_count%2C+like_count%2C+comment_count%2C+total_count%2C+commentsbox_count%2C+comments_fbid%2C+click_count+FROM+link_stat+WHERE+url+%3D+%27http%3A%2F%2Fbanglasongbad24.com%2Fcontent%2Ftnews%2F544%27): failed to open stream: no suitable wrapper could be found

Filename: singlecontent/tcontent.php

Line Number: 32

A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Trying to get property of non-object

Filename: singlecontent/tcontent.php

Line Number: 35

কাঁচাবাজারে স্বস্তি নেই। স্বস্তি নেই সাধারণ মানুষের জীবনেও। দুর্মূল্যের চাপে স্বাভাবিক জীবনধারায়ও ছন্দ পতন ঘটছে। বাজারে এমন কোনো একটি নিত্যপণ্য হয়তো আর অবশিষ্ট নেই যা সাধারণের নাগালে রয়েছে। অনেকেই বাজারে গিয়ে হতাশ হয়ে ফিরে আসতে বাধ্য হচ্ছেন। কারণ চালের পর এবার সবজির দাম আকাশ ছুঁয়েছে। মাছ, মাংস, পেঁয়াজেরও একই অবস্থা! সংশ্লিষ্টরা এর নেপথ্যে নানা কারণ দেখানোর চেষ্টা করলেও সামর্থ্যরে প্রশ্নে সাধারণ মানুষকে হোঁচট খেতেই হচ্ছে। না খেয়ে কিংবা না কিনে হয়তো কেউ থাকছেন না কিন্তু সেটা কোনো যৌক্তিক বক্তব্য নয়। কারণ ক্রেতার কেনার পরিমাণ অনেক কমে এসেছে এবং সেটুকুও সাধ্যের অতিরিক্ত হয়ে যাচ্ছে। নিম্ন ও মধ্যবিত্ত শ্রেণীর ক্রেতারা দ্রব্যমূল্যের অসহনীয় চাপ মোকাবেলা করতে রীতিমতো হিমশিম খাচ্ছেন।  প্রকাশিত সংবাদে বাজারমূল্যের ঊর্ধ্বগতির যে চিত্র ফুটে উঠেছে তা রীতিমতো উদ্বেগজনক।
খাদ্যপণ্যের মূল্যবৃদ্ধি মানে অর্থনৈতিক ঝুঁকি শুধু নয় এর সঙ্গে শারীরিক-মানসিক স্বাস্থ্য সুরক্ষার প্রশ্নও আছে। নিত্যপণ্যের দাম বাড়লে মানুষ কেনাকাটায় কৃচ্ছ তা সাধন করতে বাধ্য হয়। এতে শরীর যথেষ্ট পুষ্টিমান সম্পন্ন খাবার পায় না। অন্যদিকে অর্থনৈতিক সক্ষমতা দুর্বল হওয়ায় ব্যক্তির ওপর এক ধরনের মানসিক চাপ পড়ে এবং এর নেতিবাচক প্রভাবও শরীরের ওপর পড়তে বাধ্য। এছাড়া একজন ব্যক্তি শুধু দৈনন্দিন খানাপিনার জন্যই আয় করেন না। পরিবারের সব সদস্যের বিভিন্ন চাহিদা মেটানোর পর আপদকালীন সময়ের জন্য সঞ্চয়ের বিষয়টিও তাকে মাথায় রাখতে হয়। কিন্তু দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির কারণে যদি নুন আনতে পান্তা ফুরায় অবস্থা চলে তবে প্রামিকভাবে পরিবারকেন্দ্রিক সমস্যা-সংকট তৈরি হলেও এর ক্ষতিকর প্রভাব সমাজ ও রাষ্ট্রে পড়তে বাধ্য।
বাংলাদেশের মানুষের প্রধান খাদ্য ভাত। ভাত তৈরির প্রধান উপকরণ চালের মূল্য এখনো সাধারণের নাগালের বাইরে। সরকারের পক্ষ থেকে নানা উদ্যোগ নেয়া হলেও এর ইতিবাচক প্রভাব বলতে গেলে সাধারণ মানুষের জীবনে কোনো প্রভাবই ফেলেনি। ৩৬-৩৮ টাকার মোটা চাল এখনো বিক্রি হচ্ছে ৪৫ থেকে ৪৮ টাকা কেজি দরে। পাইকারি বাজারে কেজিপ্রতি ২/৩ টাকা মূল্য কমলেও খুচরা বাজার কিংবা পাড়া-মহল্লায় এর প্রভাব পড়েনি। চিকন চাল এখনো ৫৭ থেকে ৬৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। চালের বাজারের অস্থিরতা কমতে না কমতেই সবজির বাজার সাধারণ ক্রেতাদের আরো বিপদে ফেলে দেয়। অন্যদিকে দুই সপ্তাহ ধরে কাঁচামরিচের ঝাল বেড়েছে মাত্রার বাইরে। পেঁয়াজের দাম একদিনের ব্যবধানে বেড়েছে ১০ টাকা। এভাবে সব পণ্য সাধারণের বাইরে চলে গেলে তা জনমনে বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করা অসম্ভব কিছু নয়।
নির্বাচনী ওয়াদায় বর্তমান সরকার নিত্যপণ্যের দাম সাধারণ মানুষের সহসীমায় রাখার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। কিন্তু তা রক্ষায় সরকারের আন্তরিকতা পরিলক্ষিত হচ্ছে না। পার্শ্ববর্তী দেশ কিংবা বন্যার অজুহাতে পণ্যের দাম বাড়ানো হলেও বাজারে কোনো পণ্যের ঘাটতি দেখা যাচ্ছে না। এর মানে হচ্ছে, বাজার তদারকি ব্যবস্থায় সমন্বয় না থাকায় ব্যবসায়ীরা নিজেদের খুশিমতো পণ্যের দাম বাড়াতে সাহস পাচ্ছে, ক্রেতাদেরও উচ্চমূল্যে পণ্য কিনতে বাধ্য করছে। সরকারের উচিত হবে, এ বিষয়ে অচিরেই কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করা। সামনে নির্বাচন। বর্তমান সরকারের দু’দফা মেয়াদের প্রায় শেষ পর্যায়ে এসে নিত্যপণ্যের দাম এভাবে বাড়লে এর বিরূপ প্রতিক্রিয়া নির্বাচনে প্রভাব ফেলতে পারে। সুতরাং বাস্তবতার নিরিখেই সরকারকে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে হবে এবং তা খুব দ্রুত।