Widget by:Baiozid khan
শিরোনাম:

ঢাকা Sat September 19 2020 ,

  • Techno Haat Free Domain Offer

বিদায় ঘটনাবহুল ২০১৯

Published:    
Image

ঘড়ির কাঁটা রাত ১২টা পেরোলেই বিদায় নেবে ২০১৯ সাল। গণনা শুরু হবে নতুন খ্রিস্টীয় বছর ২০২০-এর। তবে কালের গর্ভে হারিয়ে গিয়েও যেন হারাবে না বিদায়ী এই বছর। কারণ কেমন গেল বছরটি সেই স্মৃতির রোমন্থন যেমন হবে, তেমনি সব জরা ক্লান্তিকে মুছে ফেলে নতুন বছরকে বরণ করে নিতে মেতে উঠবে সবাই। 

বুধবার (১ জানুয়ারি ২০২০) ভোরে উদিত হবে নতুন বছরের সূর্য। বিগত বছরের সব দুঃখ-কষ্ট, আনন্দ-বেদনা কালের মহাস্রোতে হবে ইতিহাস। যা স্মৃতি হয়ে থাকবে আমাদের ব্যক্তি এবং সামাজিক জীবনে। ২০১৯ সালটি জাতীয় জীবনে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ছিল। বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে বছরটি ছিল রাজনৈতিক, সামাজিক, অর্থনৈতিক, সাংস্কৃতিক এবং শিক্ষাসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে বেশ ঘটনাবহুল। ২০১৯ সাল শুরু হয় আওয়ামী লীগের সরকার গঠনের মধ্য দিয়ে।

ভয়ঙ্কর অগ্নিকাণ্ডের বছর বছরের শুরুতেই ২০ ফেব্রুয়ারি রাতে পুরান ঢাকার চকবাজারের চুড়িহাট্টায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। আগুন লাগার পর থেকেই ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা অক্লান্ত পরিশ্রম করে গেছেন। তারপরও মৃত্যুপুরী চকবাজার থেকে বের হয়ে এসেছে একের পর এক লাশ। এ দুর্ঘটনায় শেষ পর্যন্ত ৭১ জনের মৃত্যু হয়। চুড়িহাট্টার ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই রাজধানীর বনানীর বহুতল ভবন এফআর (ফারুক রূপায়ন) টাওয়ারে অগ্নিকাণ্ড ঘটে ২৮ মার্চ।

২২ তলা এই ভবনটির অষ্টম তলা থেকে বেলা ১টায় আগুনের সূত্রপাত হয়, যা পরে অন্যান্য তলাতেও ছড়িয়ে পড়ে। আগুন থেকে বাঁচতে ভবন থেকে লাফিয়ে নিচে পড়ে মারা যান কয়েকজন। এ ঘটনায় শেষ পর্যন্ত মোট ২৭ জনের মৃত্যু হয় এবং আহত হয় ৭০ জন। হতবাক করে দেয়া তিন হত্যাকাণ্ড নুসরাত হত্যা: ৬ এপ্রিল ফেনীতে মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে পুড়িয়ে হত্যা করা হয়।

ওই হত্যাকাণ্ডের সাত মাসের মাথায় অধ্যক্ষসহ ১৬ আসামির সবাইকে মৃত্যুদণ্ড দেয় ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল। সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল (ডিগ্রি) মাদ্রাসা থেকে এবার আলিম পরীক্ষা দিচ্ছিলেন নুসরাত। ওই মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ-উদ দৌলার বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ তুলেছিলেন তিনি।

ওই ঘটনায় নুসরাতের মা মামলা করার পর গত ২৭ মার্চ পুলিশ গ্রেপ্তার করে অধ্যক্ষ সিরাজকে। কিন্তু মামলা তুলে নিতে নুসরাতের পরিবারকে হুমকি দিতে থাকে সিরাজের সহযোগীরা। এরপর ৬ এপ্রিল পরীক্ষা শুরুর আগে পরীক্ষা কেন্দ্র সাইক্লোন শেল্টারের ছাদে নুসরাতকে কৌশলে ডেকে নিয়ে তার গায়ে আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়।

ঢাকা মেডিকেলের বার্ন ইউনিটে পাঁচ দিন সব যন্ত্রণা সহ্য করে ১০ এপ্রিল মারা যায় নুসরাত। মামলাটির তদন্তভার আসে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) হাতে। এজহারভুক্ত আট আসামির সঙ্গে আরও আটজনকে যুক্ত করে ১৬ জনকে আসামি করে ৫ মে আদালতে অভিযোগপত্র দেয়া হয়। ২০ জুন অভিযোগ গঠনের মধ্য দিয়ে শুরু হয় ১৬ আসামির বিচার। ২৪ অক্টোবর ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল থেকে আসামিদের সবার ফাঁসির রায় আসে।

এছাড়া নুসরাতের জবানবন্দি নেয়ার ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ায় সোনাগাজী থানার তৎকালীন ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনকেও আট বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেন বাংলাদেশ সাইবার ট্রাইব্যুনাল। রিফাত হত্যা বরগুনা জেলা শহরের কলেজ রোডে প্রকাশ্যে কুপিয়ে রিফাত শারিফকে হত্যা করা হয় ২৬ জুন। স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নির সামনে ওই হত্যাকাণ্ডের ঘটনার একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়লে দেশজুড়ে শুরু হয় তোলপাড়।

সেই ভিডিওতে দেখা যায় দুই যুবক রামদা হাতে কোপাচ্ছে রিফাতকে; আর মিন্নি চেষ্টা করছেন তাদের থামাতে। জানা যায় ওই দুই যুবক হল সাব্বির আহম্মেদ ওরফে নয়ন, যিনি নিজেকে জেমস বন্ড ভাবেন বলে নাম নিয়েছেন নয়ন বন্ড। অন্যজন তার সহযোগী রাকিবুল হাসান ওরফে রিফাত ফরাজী। বন্ড গ্রুপ নামে দল গড়ে বরগুনা শহরে ত্রাসের রাজস্ব কায়েম করেছিলেন তারা। এ ঘটনায় রিফাতের বাবা দুলাল শরীফ বাদী হয়ে ১২ জনকে আসামি করে বরগুনা থানায় হত্যা মামলা করেন। মামলায় রিফাতের স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নিকে মামলায় ১ নম্বর সাক্ষী করা হয়।

এরপর ২ জুলাই নয়ন বন্ড পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হন। ধরা পড়েন রিফাত ফরাজীসহ কয়েকজন। কিন্তু পুলিশের তদন্তে পরিস্থিতি মোড় নেয় আরেক দিকে। নয়নের মা দাবি করেন, মিন্নি একসময় ছিলেন তার পুত্রবধূ, পরে রিফাতকে বিয়ে করেন। এক পর্যায়ে নিহত রিফাতের বাবা এ হত্যাকাণ্ডে পুত্রবধূর জড়িত থাকার অভিযোগ তুললে তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। বলা হয়, স্বামীকে হত্যার পরিকল্পনায় সরাসরি যুক্ত ছিলেন ওই তরুণী। রিমান্ড শেষে মিন্নি আদালতে জবানবন্দিও দেন। দেশজুড়ে আলোচনার মধ্যে উচ্চ আদালত ২৯ অগাস্ট মিন্নিকে শর্তসাপেক্ষে জামিন দেয়। পরিবারের পক্ষ থেকে বলা হয়, নির্যাতন করে মিন্নির স্বীকারোক্তি আদায় করেছে পুলিশ। মিন্নিসহ ২৪ জনকে আসামি করে ১ সেপ্টেম্বর আদালতে অভিযোগপত্র দেয় পুলিশ। এ মামলায় প্রাপ্তবয়স্ক ১০ জন আর অপ্রাপ্তবয়স্ক ১৪ জনের বিরুদ্ধে আলাদাভাবে অভিযোগপত্র দেওয়া হয়।

এর মধ্যে প্রাপ্তবয়স্ক ১০ জনের বিরুদ্ধে মামলার অভিযোগ গঠনের শুনানির জন্য ১ জানুয়ারি তারিখ রেখেছে আদালত। আবরার হত্যা বুয়েটের তড়িৎ কৌশল বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে ৬ অক্টোবর রাতে শেরেবাংলা হলের একটি কক্ষে ডেকে নিয়ে কয়েক ঘণ্টা ধরে পিটিয়ে হত্যা করে একদল ছাত্রলীগ কর্মী। পরদিন বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকসহ ১০ জনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। আর ছাত্রলীগ ১১ জনকে বহিষ্কার করে।

শিবির সন্দেহে ডেকে নিয়ে আবরারকে যেভাবে কয়েক ঘণ্টা ধরে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছিল, সেই বিবরণ হতবাক করে দেয় পুরো দেশকে। বুয়েটে র‌্যাগিংয়ের নামে শিক্ষার্থীদের ওপর ছাত্রলীগের নির্যাতন যে নিয়মিত ঘটনা ছিল, সে বিষয়টিও প্রকাশ্যে আসে এরপর। এ ঘটনায় প্রতিবাদের ঝড় উঠে বুয়েট ক্যাম্পাসে। সিসিটিভি ফুটেজ দেখে শিক্ষার্থীরাই জড়িতদের চিহ্নিত করে। আন্দোলনের মধ্যে তোপের মুখে পড়েন বুয়েট উপাচার্য।

পরে শিক্ষার্থীদের দাবির মুখে বুয়েটে সব ধরনের রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড নিষিদ্ধ করা হয়। আবরার হত্যা মামলায় ২৫ জনকে আসামি করে ১৩ নভেম্বর আদালতে অভিযোগপত্র দেয় গোয়েন্দা পুলিশ। সেখানে বলা হয়, শিবির হিসেবে সন্দেহের বিষয়টি ছিল আবরারের ওপর নির্যাতনের ‘একটি কারণ’। আসলে বুয়েট ছাত্রলীগের ওই নেতাকর্মীরা অন্যদের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টির জন্য ‘উচ্ছৃঙ্খল আচরণে অভ্যস্ত’ হয়ে গিয়েছিল।

এরপর হত্যায় জড়িত আসামিসহ ২৬ শিক্ষার্থীকে বুয়েট থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়। আরও ২৬ জনকে বহিষ্কার করা হয় বিভিন্ন সময় র‌্যাগিংয়ের নামে শিক্ষার্থীদের নির্যাতন করার অভিযোগে। কর্তৃপক্ষ সব দাবি মেনে নেওয়ায় দুই মাস পর ক্লাসে ফেরার ঘোষণা দেয় বুয়েট শিক্ষার্থীরা। ক্যাসিনোবিরোধী অভিযান এছাড়া এই বছরই ক্যাসিনোবিরোধী অভিযানে গ্রেপ্তার হয় সরকারি দলের প্রভাবশালীরা।

গত ১৮ সেপ্টেম্বর ঢাকার ফকিরাপুলের ইয়ংমেনস ক্লাবে র‌্যাবের প্রথম অভিযানের দিন যুবলীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সাংগঠনিক সম্পাদক ওই ক্লাবের সভাপতি খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়াকে গ্রেপ্তার করা হয়। এরপর একে একে গ্রেপ্তার হন কলাবাগার ক্রীড়া চক্রের সভাপতি শফিকুল আলম ফিরোজ, যুবলীগের প্রভাবশালী নেতা ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাট, এনামুল হক আরমান, মোহাম্মদপুরের আলোচিত ওয়ার্ড কাউন্সর হাবিবুর রহমান মিজান, তারেকুজ্জামান রাজিব, পুরান ঢাকার কাউন্সিলর ময়নুল হক মঞ্জু। ক্যাসিনোকাণ্ডের মধ্যেই নিজের অফিস থেকে বিপুল পরিমাণ অর্থসহ গ্রেপ্তার হন যুবলীগ নেতা পরিচয় দিয়ে ঠিকাদারি ব্যবসা চালিয়ে আসা জিকে শামীম।

অনলাইন ক্যাসিনোর কারাবারে সম্পৃক্ততায় গ্রেপ্তার হন ব্যবসায়ী সেলিম প্রধান। গেণ্ডারিয়ার আওয়ামী লীগ নেতা এনামুল হক এনু ও তার ভাই রুপন ভূঁইয়ার বাড়িতে অভিযানে পাওয়া যায় কয়েকটি সিন্দুক বোঝাই টাকা ও গয়না, যার উৎস ওয়ান্ডারার্স ক্লাবের ক্যাসিনো। ক্যাসিনোকাণ্ডে আলোচিত ফকিরাপুল-মতিঝিল এলাকার কাউন্সিলর এ কে এম মমিনুল হক সাঈদ অভিযান শুরুর আগেই বিদেশে চলে যান। তাকেও দায়িত্ব থেকে অপসারণ করেছে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়।

আলোচিত এসব ঘটনাপ্রবাহ ছাড়াও এই বছরেই ১৪ জুলাই ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন সাবেক রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচএম এরশাদ। বিদায়ী এই বছরে পেঁয়াজের দাম অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে যায়। বছর শেষে রাজাকারের তালিকা প্রকাশের পর শুরু হয় তুমুল বিতর্ক। বছরজুড়ে ডেঙ্গুজ্বরে মারা যায় অনেক মানুষ। এসব কিছুর মধ্যে বছর শেষে ঢাকা সিটির নির্বাচনের ডাকে চঞ্চল হয়ে ওঠে রাজনৈতিক অঙ্গন।

পিএসএস