Widget by:Baiozid khan
শিরোনাম:

ঢাকা Sun July 22 2018 ,

মীর কাশেমের বিরুদ্ধে শুনানি শেষ

Published:2013-07-25 16:03:37    

ঢাকা: মুক্তিযুদ্ধের সময় সংগঠিত মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে আটক দিগন্ত মিডিয়া কর্পোরেশনের চেয়ারম্যান ও জামায়াতের নির্বাহী কমিটির সদস্য মীর কাসেম আলীর বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের বিষয়ে প্রসিকিউশনের শুনানি শেষ হয়েছে। আসামি পক্ষের শুনানির জন্য আগামী ৭ আগস্ট দিন ধার্য করেছে ট্রাইব্যুনাল।

বৃহস্পতিবার চেয়ারম্যান বিচারপতি এটিএম ফজলে কবীরের নেতৃত্বে গঠিত আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল -১ এ দিন ধার্য করেন। আদালতে আজ মীর কাশেম আলীর বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের প্রসিকিউটর সুলতান মাহমুদ সীমন শুনানি করেন ।  

এর আগে গত ২৬ মে জামায়াত নেতা মীর কাশেম আলীর বিরুদ্ধে অভিযোগ আমলে নেয় ট্রাইব্যুনাল। গত ১৬ মে প্রসিকিউটর জেয়াদ আল মালুমসহ প্রসিকিউশন টিম ১৪টি অভিযোগে আনুষ্ঠানিক অভিযোগ ট্রাইব্যুনালের রেজিস্ট্রার বরাবর দাখিল করেন।

মীর কাশেম আলীর বিরুদ্ধে আনিত ১৪টি অভিযোগের মধ্যে ১১ ও ১২ নাম্বার অভিযোগ ছাড়া বাকী সব অভিযোগই অপহরণ করে নির্যাতনের বর্ণনা রয়েছে। গত ৬ মে মীর কাশেম আলীর বিরুদ্ধে হত্যা, নারী নির্যাতন, অগ্নিসংযোগ, লুন্ঠনসহ মানবতাবিরোধী অপরাধের ১৪ টি অভিযোগে তদন্ত চুড়ান্ত করে তদন্ত সংস্থা প্রসিকিউশনের জমা দেয়।

গত বছরের ১৭ জুন মীর কাসেম আলীর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন ট্রাইব্যুনাল। এরপর ওইদিন বিকেলে মতিঝিলে দৈনিক নয়া দিগন্ত কার্যালয়ের (দিগন্ত মিডিয়া কর্পোরেশন) থেকে তাকে গ্রেফতার করে বিকেল সোয়া চারটার দিকে ট্রাইব্যুনালে হাজির করা হয়।

 ট্রাইব্যুনাল মীর কাসেম আলীকে কারগারে পাঠানোর নির্দেশ দিলে ওইদিন রাত সাড়ে আটটার দিকে তাকে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠিয়ে দেয়া হয়। এরপর ১৯ জুন মুক্তিযুদ্ধের সময় মানবতাবিরোধী অপরাধে জড়িত থাকার অভিযোগে মীর কাসেমের জামিন আবেদন খারিজ করে দেয়া হয়। একই সঙ্গে ৫ জুলাই তার বিরুদ্ধে তদন্তের অগ্রগতি প্রতিবেদন জমা দিতে নির্দেশ দেয় আদালত।
গত ৮ জুলাই প্রসিকিউশনের এক আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে মীর কাশেম আলীকে সেভ হোমে একদিনের জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দেয় ট্রাইব্যুনাল। এরপর পর্যায়ক্রমে তাকে সেভ হোমে নিয়ে ২বার জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

বাংলাসংবাদ২৪/সাকিল/এমএস
 

আরও সংবাদ