Widget by:Baiozid khan
শিরোনাম:

ঢাকা Fri July 20 2018 ,

রোযা শুধুই মুসলামানদের উপর ফরজ

Published:2013-08-01 11:53:45    

রোযা কি শুধু মুসলমানদের উপর ফরজ? অবশ্যই, এটা শুধু মুসলমানদের জন্যই ফরজ। যারা অমুসলিম, অবিশ্বাসী তাদের রোযা রাখার কোনো প্রয়োজন নেই। কারণ আল্লাহ তায়ালা বলেছেন-
“যারা কাফের, তাদের কর্ম মরুভূমির মরীচিকার সদৃশ যাকে পিপাসার্ত ব্যক্তি পানি মনে করে। এমনটি সে যখন তার কাছে যায় তখন সে কিছুই পায় না এবং পায় সেখানে আল্লাহকে, অতঃপর আল্লাহ তার হিসাব চুকিয়ে দেন। আল্লাহ তায়ালা দ্রুত হিসাব গ্রহণকারী।” (সূরা নূর, আয়াত-৩৯)
অর্থাৎ অমুসলিমরা তাদের ভালো কাজের জন্য আল্লাহর নিকট থেকে কোন প্রতিদান পায় না। তাদের সব পুণ্যের কাজ অর্থহীন। সকল ভালো কাজের জন্যই নিয়ত করতে হবে। যেটি আমরা পূর্বেই আলোচনা করেছি যে, নিয়ত খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। রোযাসহ প্রত্যেকটি উপাসনা নিয়তের সাথে করতে হবে। আর রোযা রাখার নিয়ত করতে হবে একমাত্র আল্লাহর উদ্দেশ্যে। যে ব্যক্তি অবিশ্বাসী, আল্লাহকে বিশ্বাস করে না সে নিয়ত করবে কার উদ্দেশ্যে? এটিই হলো অমুসলিমদের উপর রোযা বৈধ না হওয়ার মূল কারণ। যদি সে রোযা রাখে তাহলে সেটা রোযা হবে না, হবে এমন কিছু যেটা ইবাদতের মধ্যে পড়ে না। এখানে নিয়ত সবচেয়ে বড় ব্যাপার; যে কারণে অমুসলিমদের সকল পুণ্য বিফলে যায়। কিন্তু যে মুহূর্তে একজন অমুসলিম ব্যক্তি ইসলাম গ্রহণ করে সেই মুহূর্তে তার জন্য রোযা ফরজ হয়ে যায় অর্থাৎ কেউ যদি রমযানের কোনো এক সময় ধরা যাক মাঝামাঝি সময়ে ইসলাম গ্রহণ করে তাহলে ওই মুহূর্তে তার জন্য রোযা ফরজ হয়ে যাবে। এবং আল্লাহ বলেছেন-
“আপনি অবিশ্বাসীদেরকে বলে দিন তারা যদি বিশ্বাস স্থাপন করতে আরম্ভ করে তাহলে তাদের পূর্ববর্তী সকল গুনাহ মাফ করে দেওয়া হবে।” (সূরা আনফাল, আয়াত-৩৮)
অর্থ্যাৎ কোনো অবিশ্বাসী ইসলাম গ্রহণ করলে সাথে সাথেই তার পূর্বের সব গুনাহ মাফ হয়ে যাবে কিন্তু ওই মুহূর্তে তার জন্য রোযা ফরজ হয়ে যাবে।


বাংলাসংবাদ২৪/রাজু/বিএইচ

আরও সংবাদ