Widget by:Baiozid khan
শিরোনাম:

ঢাকা Sun August 19 2018 ,

ভারতের সাবেক শিক্ষামন্ত্রী ও কংগ্রেসের সভাপতির ফাঁসির দাবি রাবি ছাত্রলীগের

Published:2013-01-06 02:21:04    

ফেসবুক, ব্লগ ও অনলাইনে এঘটনা প্রকাশের পর দেশব্যপী তোলপাড়

রাবি প্রতিনিধি: স্বাধীন ভারতের প্রথম শিক্ষামন্ত্রী, ভারতের জাতীয় কংগ্রেসের সাবেক সভাপতি প্রভাবশালী মুসলিম নেতা মওলানা আবুল কালাম আজাদের ফাঁসির দাবিতে পোস্টার সাঁটানো প্ল্যাকার্ড নিয়ে র‌্যালি করেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ।

ছাত্রলীগের ৬৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে গতকাল শনিবার বেলা ১২টায় ওই র‌্যালিতে বিভিন্ন প্ল্যাকার্ডে জামায়াত নেতাদের পাশাপাশি মওলানা আজাদের ছবিতে গলায় ফাঁসির রশি ঝুলানো অবস্থায় লেখা ছিল ‘ফাঁসি চাই, ফাঁসি চাই, স্বাধীনতা বিরোধী আবুল কালাম আজাদের ফাঁসি চাই’।

ছাত্রলীগের এ ধরনের ন্যাক্কারজনক ঘটনার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মাঝে চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে। এর আগে গত ২২ ডিসেম্বর বিশ্ববিদ্যালয় বিনোদপুর গেইট সংলগ্ন বিনোদপুর বাজারে আওয়া লীগ অফিসের ঠিক সামনে মওলানা আজাদের ফাঁসির দাবিতে একই ধরনের ছবি সাঁটানো দেখা যায়। পরে বিভিন্ন দৈনিক পত্রিকায় এ ঘটনার সংবাদ প্রকাশ হলে ওই ছবিটি সরিয়ে ফেলা হয়।

জানা যায়, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৬৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে শনিবার বেলা ১২টায় একটি আনন্দ র‌্যালি বের করে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ। ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আবু হুসাইন বিপুর নের্তৃত্বে র‌্যালিতে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় ভিসি প্রফেসর এম আব্দুস সোবহান, প্রক্টর প্রফেসর চৌধুরী মোহাম্মদ জাকারিয়া, ছাত্র উপদেষ্টা গোলাম সাব্বির সাত্তার, প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের আহ্বায়ক প্রফেসর আনন্দ কুমার শাহা, রাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল ইসলাম ঠান্টুসহ ছাত্রলীগে সাবেক ও বর্তমানের শতাধিক নেতাকর্মী। র‌্যালিটি ছাত্রলীগের দলীয় টেন্ট থেকে শুরু হয়ে ক্যাম্পাসের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে পূর্বের স্থানে এসে শেষ হয়। এ সময় র‌্যালিতে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীর হাতে বিভিন্ন ছবি সাঁটানো প্ল্যাকার্ড দেখা যায়। প্ল্যাকার্ডে জামায়াত নেতা নিজামী, সাঈদী ও মুজাহিদের পাশাপাশি ভারতের বিখ্যাত ওই পাকিস্তান বিরোধী মুসলিম নেতার ফাঁসির দাবিতে প্ল্যাকার্ডও দেখা যায়। তাতে মওলানা আজাদের গলায় ফাঁসির রশি ঝুলানো ছবি ছিল। ছবিতে লেখা ছিল ‘ফাঁসি চাই, ফাঁসি চাই, স্বাধীনতা বিরোধী আবুল কালাম আজাদের ফাঁসি চাই’।

র‌্যালিতে ফাঁসির রশি ঝুলানো আবুল কালাম আজাদের ছবি দেখে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা সাংবাদিকদের কাছে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যাক্ত করেন। তারা বলেন, যে র‌্যালিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসিসহ প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা আছে সেখানে মওলানা আজাদের মতো একজন মুসলিম প্রভাবশালী নেতার গলায় ফাঁসির রশি ঝুলানো ছবি এটা কীভাবে সম্ভব। এ ঘটনায় আমরা বিশ্ববিদ্যালয় পরিবার মর্মাহত। এ ন্যাক্কারজনক ঘটনা এর আগে স্থানীয় আওমী লীগের নেতাকর্মীরাও ঘটিয়েছে। এদের বিরুদ্ধে আইনত ব্যবস্থা না নিলে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা কঠোর আন্দোলন গড়ে তুলবে বলেও জানান তারা।

মওলানা আবুল কালাম আজাদের ছবি সাঁটানো প্ল্যাকার্ড সম্পর্কে জানতে চাইলে রাবি ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক আবু হুসাইন বিপু বলেন র‌্যালিতে জামায়াত নেতা নিজামী, সাঈদী ও মুজাহিদের ছবি ছিল। এখানে মওলানা আজাদের কোনো ছবি ছিল না। সাংবাদিকদের কাছে র‌্যালিতে ব্যবহৃত ওই প্ল্যাকার্ডের ছবি আছে বললে তিনি বলেন, আমার জানা মতে এ ধরনের কোনো ছবি নেই। এটা আপনাদের ভুল তথ্য। থাকলে বিষয়টি খুবই দুঃজনক। এ বিষয়ে পরে কথা বলব।

প্রসঙ্গত, মওলানা আবুল কালাম আজাদ ১৯৪০ থেকে ’৪৫ সাল পর্যন্ত ভারতের জাতীয় কংগ্রেসের সভাপতি দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ভারত থেকে পৃথক পাকিস্তান রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার ঘোর বিরোধী একজন মুসলিম নেতা ছিলেন। পরবর্তীতে ভারত স্বাধীন হলে তিনি ভারতের প্রথম শিক্ষামন্ত্রী হন। তার জন্মদিনকে ভারতের জাতীয় শিক্ষা দিবস হিসেবে পালন করা হয়। ১৯৯২ সালে তাকে মরণোত্তর ভারতরত্ন পুরস্কারে ভূষিত করা হয়। তিনি অসহযোগ আন্দোলনে মহাত্মা গান্ধীর সঙ্গে সক্রিয়ভাবে নেতৃত্ব দেন।

বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক, ব্লগ ও অনলাইনে এঘটনা সচিত্র প্রকাশের পর দেশব্যপী তোলপাড় শুরু হয়েছে। নষ্ট হয়েছে দেশের ঐতিহ্যবাহী এ ছাত্র সংগঠনটির ভাবমুর্তি। দেশের বাইরেও এর প্রভাব পড়তে পারে বলে অনেকেই ধারণা করছেন।

বাংলাসংবাদ২৪/এনডি/এসএস

আরও সংবাদ