Widget by:Baiozid khan
শিরোনাম:

ঢাকা Tue July 07 2020 ,

  • Techno Haat Free Domain Offer

সাবেক মন্ত্রী দুলু ১৩ মাস ১৩ দিন পর জামিনে মুক্ত

Published:2014-01-21 17:34:40    

নাটোর প্রতিনিধি: বিএনপির কেন্দ্রীয় স্বনির্ভর বিষয়ক সম্পাদক নাটোর জেলা সভাপতি সাবেক মন্ত্রী অ্যাডভোকেট এম রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু যুবলীগ নেতা পলাশ হত্যা মামলায় টানা ১৩মাস ১৩দিন কারাভোগের পর মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে জামিনে  মুক্ত হয়ে নাটোরের বাসায় ফিরেছেন।

এর আগে ২০১২ সালের ৮ ডিসেম্বর রাত ১টার দিকে পুলিশ তাকে আটক করেছিল। গত রোববার দুলুর পক্ষে সুপ্রীম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি এজে মো¤ম্মদ আলী, সাবেক এটর্নী জেনারেল হাসান আরিফ ও অ্যাডভোকেট আমিনুল হক হেলাল হাইকোর্টের বিচারপতি বোরহান উদ্দিন ও কে এম কামরুল কাদেরের যৌথ বেঞ্চে জামিন আবেদন করলে তাকে ছয় মাসের জামিন প্রদান করা হয়। পরে সরকার পক্ষ চেম্বার জজের কাছে জামিন স্থগীতের আবেদন করলে আগে একাধিক বার তার জামিন স্থগীত হওয়ায় সোমবার তার জামিন স্থগীতের আবেদন খারিজ করে দেয় চেম্বার জজ। ফলে তিনি মঙ্গলবার দুপুরে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে জামিনে মুক্ত হয়ে বাসায় ফিরেন। এ সময় বাসার সামনে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে দুলু বলেন, এই নির্বাচনে সরকারকে দেশবাসী প্রত্যাখান করেছে। ২৯ জানুয়ারী দেশের মানুষ সরকারকে কালো পতাকা দেখাবে। তিনি গত সাড়ে ১৩মাস তার মুক্তির দাবীতে আন্দোলনের জন্য নাটোরবাসীকে ধন্যবাদ জানান।

তার মুক্তির জন্য হরতাল করতে গিয়ে নিহত ছাত্রদল নেতা সাইফুজ্জামান সুজনের পরিবারের প্রতি তিনি সমবেদনা জানান। অসুস্থ্য দুলু তার জন্য নাটোরবাসীকে দোয়া করতে বলেন। জেলা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সাবেক এমপি অধ্যাপক কাজী গোলাম মোর্শেদের সভাপতি এ সময় আরো বক্তব্য রাখেন, জেলা সাধারন সম্পাদক আমিনুল হক, সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী শাহ আলম, প্রচার সম্পাদক ফরহাদ আলী দেওয়ান শাহিন প্রমুখ। পরে তিনি উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় চলে যান।
     
প্রসঙ্গত ২০১২ সালের ৮ ডিসেম্বর রাত ১১টার দিকে দুলুর বাসার সামনে দু’পক্ষের সংঘর্ষে জেলা বিএনপির প্রচার সম্পাদক ও জেলা স্বেচ্ছাসেবক দল সভাপতি ফরহাদ আলী দেওয়ান শাহীন ডান কানে গুলিবিদ্ধ হন আর শহর যুবলীগের নেতা পলাশ চন্দ্র কর্মকার পিঠে গুলিবিদ্ধ হন। এর কয়েক মিনিট পরে উর্দ্ধতন কতৃপক্ষের নির্দেশের কথা বলে রাত একটার দিকে দুলুসহ চার বিএনপি কর্মীকে পুলিশ আটক করে থানায় নিয়ে যায়। দু’দিন পর হাসপাতালে পলাশ মারা গেলে সাবেক মন্ত্রী দুলুকে ওই হত্যা মামলায় আটক দেখানো হয়। দুলুর মুক্তির দাবীতে গত ২ ডিসেম্বর নাটোর জেলায় ডাকা হরতালে যুবলীগ নেতাকর্মীদের হামলায় ছাত্রদল নেতা সাইফুজ্জামান সুজন নিহত হয়েছে।

গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হয়েছে দুলুর ভাতিজা জেলা যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল হাই তালুকদাল ডালিমসহ চারজন। এ ঘটনায় নাটোর জেলা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক সদর আসনের সংসদ সদস্য শফিকুল ইসলাম শিমুলসহ ১৯জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেছেন নিহত সুজনের বড় ভাই মোঃ শহিদুজ্জামান খোকন।

বাংলাসংবাদ২৪/রিয়াজুল ইসলাম/ইএফ

আরও সংবাদ