Widget by:Baiozid khan
শিরোনাম:

ঢাকা Wed September 19 2018 ,

হাটহাজারীতে প্রকাশ্যে ইয়াবা ব্যবসা

Published:2014-01-25 10:25:07    

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: মরণ নেশার ইয়াবা ট্যাবলেট ব্যবসা এখন হাটহাজারী অবাধে বিক্রি হচ্ছে। ছড়িয়ে পড়েছে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে। অল্প সময়ে সহজেই কোটিপতি হওয়ার স্বপ্নে পৌর এলাকার বিভিন্ন চাইনিজ ও কপি হাউজসহ অলিগলিতে বিক্রির খবর পাওয়া গেছে।

পৌর এলাকার নিত্য নতুন চাইনিজ হোটেলের পর্দার আড়ালে চলছে অসামাজিক কার্যকলাপ। শিল্পপতি থেকে শুরু করে সন্ত্রাসীদের নিয়ন্ত্রণে চাইনীজ রেষ্টুরেন্টের ভিতরে চলছে অসামাজিক কার্যকলাপ। এক সময় ইয়াবা শিক্ষার্থী ও লোকজনের কাছে অবৈধ থাকলেও এখন অঘোষিতভাবে যেন বৈধতা পেয়েছে।

ইয়াবা প্রতিরোধ করে যারা এক সময় বাহবা পেতেন; এখন উল্টো তাদের ঘৃনা করা হচ্ছে। ফলে অপ্রতিরোধ্য গতিতে চলা ইয়াবা ব্যবসায় লগ্নি করে এর বাহকদের হাতে লক্ষ-কোটি টাকার থাকার কারণে স্থানীয় হাট-বাজারে এর বিরুপ প্রভাব পড়তে শুরু করেছে। ইয়াবা বিস্তারের ফলে হাটহাজারী পৌর এলাকাসহ উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় নানা অপরাধ বৃদ্ধি পেয়েছে।

স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, হাটহাজারী পৌর এলাকার অর্ধশতাধিক কপি হাউজ ও মিনি চাইনিজ পর্দার আড়ালে চলছে অসামাজিক কার্যকলাপ। স্কুল কলেজ এমনকি বোরকা পড়া ভদ্র পরিবারের মেয়েরা তাদের বয় ফ্রেন্ডের সাথে ওই চাইনীজ রেষ্ট্ররেন্টে  পর্দার আড়ালে বসে ইয়াবা সেবন এবং অনৈতিক কর্মকান্ডে জড়িয়ে পড়ছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক চাইনীজ রেষ্টুরেন্টের মালিক বলেন, পত্রিকায় লেখালেখি করলেও আমাদের কিছু হবে না। কারন আমাদের সাথে থানার ক্যাশিয়ারের মাসিক চুক্তি রয়েছে।

কয়েকটি বিশ্বস্ত সুত্র ও সরেজমিন অনুসন্ধানে জানা যায়, পৌর এলাকার কলেজ গেইটের আশপাশে বেশ কয়েকটি বাসা বাড়ির ফ্ল্যাটে প্রতিনিয়ত অসামাজিক কার্যকলাপ চলছে। সে সব আড্ডায় অবস্থান নেয় এলাকার সন্ত্রাসী, শিল্পতি, অর্থশালী ও প্রশাসনের লোকজন।

সুত্র মতে ইয়াবা ব্যবসায় হঠাৎ বড়লোক হওয়ার স্বপ্নে সাধারণ শ্রমিক থেকে শুরু করে রাস্তার বখাটে রাজনৈতিক নেতা, জনপ্রতিনিধি, স্থানীয় প্রভাবশালী ও আইন প্রয়োগকারী সংস্থার লোকজন পর্যন্ত এ কাজে বিচরণ করতে বিবেক বাঁধছে না।
এ সব ব্যবসায় টাকার লোভে গডফাদারদের বাহক হয়ে দেশে কত অসহায় নারী-শিশু-যুবক জেল কাটতে হচ্ছে যার কোনো হিসাব নেই। ইয়াবা ব্যবসা ও মাতালদের উৎপাতে হাটহাজারী পৌর এলাকাসহ অলিগলিতে বিরুপ প্রভাব এবং ধনী-দরিদ্রের ব্যবধান ও জনজীবনকে দুর্বিসহ করে তুলেছে। এ বিষয়টি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে খতিয়ে দেখে দ্রুত আইনী পদক্ষেপ নেয়া জরুরী বলে সচেতন মহল মনে করেন।

জাহেদ সেলিম/আর

আরও সংবাদ