Widget by:Baiozid khan
  • Advertisement

এমপি নদভীরকে মুসল্লিদের জুতা নিক্ষেপ

Published:2014-02-01 11:18:51    

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: লোহাগাড়া উপজেলায় এক মাহফিলে মুসল্লিদের জুতা নিক্ষেপে  চরমভাবে লাঞ্ছিত হলেন দশম সংসদ নির্বাচনে চট্টগ্রামের সাতকানীয়া-লোহাগাড়া আসন থেকে নির্বাচিত আওয়ামী লীগের এমপি ড. আবু রেজা নদভী।

শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে লোহাগাড়া উপজেলার চুনতি কামিল মাদরাসা মাঠে ১৯ দিনব্যাপী সিরাতুন্নবী মাহফিলের শেষ দিন এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মাহফিল মঞ্চে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আমিনুল ইসলাম আমিন সম্প্রতি সাতকানীয়া-লোহাগাড়ার সহিংসতার কথা তুলে ধরে বলেন, ইউরোপে তারেক বিন জিয়াদ অস্ত্র দিয়ে ইসলাম কায়েম (মুসলমানদের স্পেন বিজয়) করেছেন বলে সেখানে পাঁচ ভাগও মুসলমান নেই। তার এ বক্তব্যের পরপরই বিশাল মাহফিলস্থলের মুসল্লিরা দাঁড়িয়ে হৈ চৈ ও চেঁচামেচি শুরু করে। এক পর্যায়ে আওয়ামী লীগ নেতা আমিন বক্তব্য না দিয়ে মঞ্চ ত্যাগ করেন।

এর পরপরই মঞ্চে উপস্থিত হন স্থানীয় আসন থেকে নির্বাচিত আওয়ামী লীগের এমপি ড. আবু রেজা নদভী। তিনি মঞ্চে আসনগ্রহণ করার পরপরই উত্তেজিত মুসল্লিরা তাকে বেঈমান, প্রতারক বলে গালমন্দ করতে থাকে। একপর্যায়ে বিপুল সংখ্যক মুসল্লি তার দিকে জুতা ও পানির বোতল নিক্ষেপ করে। অবস্থা বেগতিক দেখে তিনি পাশের চুনতি জামে মসজিদে আশ্রয় নেন। পরে মুসল্লিরা মসজিদ ঘিরে রাখে।

নদভীকে উদ্ধার করতে পুলিশ আসলেও উত্তেজিত মুসল্লিরা মসজিদ থেকে তাকে বের হতে দেয়নি। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে বিজিবি এসেও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে বেগ পেতে হয়। পরে বিজিবি ও পুলিশ ফাঁকা গুলি ছুড়ে। এতে আরো ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে জনতা। তারা পুলিশ ও বিজিবর উপর ইট-পাথর নিক্ষেপ করে এবং তাদের তিনটি গাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করে। এ ঘটনায় কমপক্ষে ৫ থেকে ৭ বিজিবি ও পুলিশ সদস্য আহত হয়। এরপর পুলিশি প্রহরায় নদভী ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন।

লোহাগড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহজাহান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

উল্লখ্য, গত ১৭ জানুয়ারি পটিয়া উপজেলায় জমিয়াতুল ইসলামীয়া জিরি মাদরাসার বার্ষিক ইসলামী সম্মেলনে লাঞ্ছিত হন আনোয়ারার সংসদ সদস্য ও ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ। বার্ষিক ইসলামী সম্মেলনে বক্তব্য দেয়ার সময় উপস্থিত মুসল্লিরা হইচই এবং হট্টগোল শুরু করে। এসময় লোকজন উত্তেজিত হয়ে মন্ত্রীর দিকে তেড়ে যায়। মাদরাসা কর্তৃপক্ষ বার বার চেষ্টা করেও মুসল্লিদের থামাতে ব্যর্থ হয়। ক্ষুব্ধ মুসল্লিরা মন্ত্রীকে লক্ষ্য করে জুতা ও পানির বোতল নিক্ষেপের চেষ্টা করলে মন্ত্রী বক্তব্য না দিয়েই মঞ্চ ছেড়ে পুলিশি প্রহরায় সম্মেলনস্থল ত্যাগ করেন।

তার একদিন আগে নিজ নির্বাচনী এলাকায় অপদস্থ হন সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মহীউদ্দীন খান আলমগীর। গত ১৬ জানুয়ারি বার্ষিক ওয়াজ মাহফিলে যোগ দিতে গেলে তাকে লক্ষ্য করে জুতা নিক্ষেপ করে মুসল্লিরা। পরে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে।

বাংলাসংবাদ২৪/ওএফ

আরও সংবাদ