Widget by:Baiozid khan
শিরোনাম:

ঢাকা Thu September 20 2018 ,

নিজের বুকে ভারত প্রেম, কুকুরের গায়ে গিনেজ বুক

Published:2014-04-05 17:31:46    

বাংলাসংবাদ: এফডিসির মহা পরিচালক এবং আওয়ামীলীগ নেতা পিযুশ বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্ত্রী জয়শ্রী কর জয়া গত স্বাধীনতা দিবসে বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা দিয়ে তার কুকুরের শরীর মুড়িয়ে দিয়েছিলেন। অথচ গত ৪.০৪.২০১৪ইং তারিখ টি২০ বিশ্বকাপের দ্বিতিয় সেমি ফাইনালে ভারতের সমর্থনে তিনি ভারতের জাতীয় পতাকে বাতাসের সাথে আনন্দে দোলিয়েছেন।

যে পতাকাকে আমাদের বাংলাদেশের আকাশে স্বাধিন ভাবে উড়ানোর জন্য লক্ষ বাঙ্গালির প্রাণ নিয়েছিল পাক বাহিনী, যে পতাকার জন্য নিজেদের সব কাছু হরিয়েছে আমাদের মা বোনেরা আজ সে পতাকাকে কুকুরের গায়ে জরিয়ে ভারতের পতাকাকে নিজের বুকে জরিয়ে নিয়েছেন জয়শ্রী কর জয়া।

অতি সম্প্রতি বাংলাদেশে ভারতীয় বাংলা ছবি আমদানির তোড়জোড় শুরু হয়েছে। প্রতিবাদ করেছেন দেশের চলচিত্র সংশ্লিষ্ট ব্যাক্তিরা। কিন্তু কল কাঠি নাড়ছেন একজন। তিনি পিযুশ বন্দ্যোপাধ্যায়।আওয়ামী লীগ নিয়োজিত এফডিসির প্রধান। জয়ার কুকুর প্রীতিতে কারো সমস্যা না থাকলেও কুকুরের গায়ে জাতীয় পতাকা জড়ানোর তীব্র নিন্দা জানিয়েছিলেন অনেকে।

যেখানে আমাদের দেশে জাতীয় পতাকা উৎলন করে গিনেজ বুকে নাম লিখিয়ে নিয়েছে সেখানে আমাদের দেশের একজন নাগরিক হয়ে তার এই ভারত প্রিতি এদেশের স্বাধিন জনগনের মাঝে একটি প্রশ্নের সৃষ্টি করেছে যার জবাব হয়ত ঐ এফডিসির পরিচালকের স্ত্রী কিংবা তার নিজের কাছেও নেই। যেখানে জাতীয় পতাকার ওপর কিছু লেখা অথবা মুদ্রণ করা যায়না এমনকিকোনো অনুষ্ঠান উপলক্ষে কিছু আঁকা যায়না সেখানে কুকুরের বুকে পতাকাকে জরিয়ে আর ভারতের পতাকাকে নিজের বুকে জরিয়ে নেচেছেন।  

শুধু তাই নয় বাংলাদেশ জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক এবং উইকেট কিপার খালেদ মাসুদ পাইলট তার ফেইসবুক স্ট্যাটাসে লিখেছেন কদিন আগে বিসিবির তরফ থেকে ভিনদেশী পতাকা নিয়ে কোনো বাংলাদেশী নাগরিকের স্টেডিয়ামে প্রবেশের ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছিল। কিন্তু বুঝতে পারছি না সেটি এখনো বহাল রয়েছে কিনা। আজ বেশ কিছু দেশী নাগরিককে লক্ষ্য করলাম ভারতীয় ফ্ল্যাগ নিয়ে বাঁদরের মত উল্লাস করছে! এটা ঠিক যে আজ মাঠে বেশ কিছু ভারতীয় নাগরিকও উপস্থিত ছিলেন এবং তাদের দলকে সমর্থন জানিয়েছেন। তাদের হাতে তাদের দেশের জাতীয় পতাকা ছিল। কিন্তু আমাদের দেশেরও বেশ কিছু মানুষ দেখলাম আজ ভারতীয় পতাকা ধারণ করে ভারতীয় দলকে সমর্থন জানাচ্ছে!! এটা তো হওয়া উচিত ছিল না। যারা এ কাজটি করলো তাদের মধ্যে আমাদের দেশের মিডিয়াতে কাজ করে এমন একজনকে ভারতীয় পতাকা হাতে দেখা গেছে!ভদ্রমহিলাকে আমি ব্যক্তিগতভাবে চিনি না কিন্তু সে বাংলাদেশের বেশ কিছু ম্যাচে মাঠে উপস্থিত ছিল। এই মহিলা হিন্দু ধর্মাবলম্বী। আমি জানতে পেরেছি এই মহিলাই নাকি কদিন আগে বাংলাদেশের পতাকা অসম্মান করে তার পোষা কুকুরকে নিয়ে ছবি প্রকাশ করে বিতর্কে জড়িয়েছিল! আজ যেসব বাংলাদেশী নাগরিক ভারতীয় পতাকা হাতে দেখা গেছে তাদের প্রায় বেশির ভাগই আমাদের সংখালঘু সম্প্রদায়ের বন্ধু। আমি মনে করি তারা এই কাজটি করে ঠিক করেননি। ভারতীয় পতাকা হাতে নিয়ে তারা বাংলাদেশকেই হেয় করেছেন বলে আমি মনে করি।

উপরের লেখা গুলো কোন লেখক বা রাজনৈতিক দলের নেতার নয় লেখাটি একজন সাবেক ক্রিকেটারের। বর্তমানে আমাদের দেশ ভারত বান্ধব সরকার ঠিক আছে কিন্তু এই বলে আমরা নিজেদের স্বাধীনতার কথা ভুলে গিয়ে নিজেদের জাতীয় পতাকাকে কুকুরের গায়ে জড়াবে এবং ভারতের পতাকাকে বুকে জড়িয়ে আমাদের চোখের সামনে নাচবে এইটা কোন ধরনের বদ্রতা বা দেশের প্রতি তার কোন ধরনের ভালবাসা তা আমার জানা নেই। এখন আওয়ামীলীগ নেতা পিযুশ বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্ত্রী জয়শ্রী কর জয়া যদি আমাদের একটু কষ্টকরে বলেন তাহলে হয়ত আমি বা এদেশের জনগন কেউ বিব্রত হবেনা।


বাংলাসংবাদ২৪/ইএফ/আব্দুর রহীম/গালীব

আরও সংবাদ