Widget by:Baiozid khan
  • Advertisement

আজ ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস

Published:2014-04-17 14:27:14    

বাংলাসংবাদ: ১৯৭১ সালের ১৬ এপ্রিল। কুষ্টিয়া জেলার মেহেরপুর মহাকুমা বৈদ্যনাথতলা গ্রামে মুজিবনগর সরকারের যাত্রা শুরু হয়। বাংলাদেশ স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে বিশ্বে আবির্ভূত হয়। ১৭ এপ্রিল নয়া সরকারের শপথগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। নতুন সরকার নয় মাস মুক্তিযুদ্ধ পরিচালনা করেন।

মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসে বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ দিন। ২১৪ বছর আগে পলাশীর আম্রকাননে স্বাধীনতার সূর্য অস্তমিত যায়। মুজিবনগর সরকারের সময়কালকে স্মরণীয় করে রাখতে স্মৃতিস্তম্ভ নির্মিত হয়। মুজিবনগরের এই স্মৃতিসৌধটি স্বাধীনতা যুদ্ধের উজ্জ্বল স্বাক্ষর বহন করে। ১৯৮৭ সালের ১৭ এপ্রিল রাষ্ট্রপ্রধান স্মৃতিসৌধের উদ্বোধন করেন। সৌধ নির্মাণে ব্যয় হয় ১ কোটি ৯৩ হাজার ১১ হাজার ১৩৩ টাকা। ১৬০ ফুট ব্যাসের গোলাকার স্তম্ভের ওপর মুজিবনগর স্মৃতিসৌধের বিভিন্ন অবয়ব নির্মিত।

এ উপলক্ষে খুলনা জেলা প্রশাসন বিস্তারিত কর্মসূচি নিয়েছে। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে সকাল ৮টায় খুলনা সার্কিট হাউস থেকে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা। সকাল সাড়ে ৮টায় ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবসের পটভূমি ও তাৎপর্যের ওপর ভিত্তি করে অফিসার্স ক্লাবে অনুষ্ঠিত হবে আলোচনা সভা। সন্ধ্যা ছয়টায় দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরে শিল্পকলা একাডেমীতে অনুষ্ঠিত হবে আলোচনা সভা এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। বাংলাদেশ শিশু একাডেমী খুলনা শিশুদের জন্য চিত্রাংকন প্রতিযোগিতার আয়োজন  করেছে।

১৭ এপ্রিল জাতীয় কর্মসূচির আলোকে (এলাকার একজন বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধাকে উপস্থিত রেখে) শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহে দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরে প্রত্যেক শ্রেণীতে পৃথকভাবে রচনা ও মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক উপস্থিত বক্তৃতা প্রতিযোগিতা এবং আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান করা হবে। জেলাধীন সকল উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুবিধাজনক সময়ে মুজিবনগর দিবস উপলক্ষে জাতীয় অনুষ্ঠানের সাথে সামঞ্জস্য রেখে অনুষ্ঠান আয়োজনের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। ওইদিন খুলনা শহীদ হাদিস পার্কসহ শহরের জনবহুল স্থানে খুলনা জেলা তথ্য অফিসের উদ্যোগে মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক সিনেমা স্লাইড প্রচার করা হবে। এ ছাড়া খুলনা অফিসার্স ক্লাব এবং স্কুলে স্কুলে মাল্টিমিডিয়ার মাধ্যমে ভিডিও প্রদর্শন করা হবে।

আওয়ামী লীগ: দিবসটি উপলক্ষে আজ সন্ধ্যা ৭টায় খুলনা মহানগর ও জেলা কমিটির উদ্যোগে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে। আলোচনা সভায় মহানগর, জেলা, থানা, ওয়ার্ড ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীদের যথাসময়ে উপস্থিত থাকার জন্য বিশেষ আহ্বান জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন কেন্দ্রীয় নেত্রী, সাবেক মন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান এমপি, মহানগর সভাপতি ও সাবেক মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক এমপি, জেলা সভাপতি ও জেলা পরিষদ প্রশাসক শেখ হারুনুর রশীদ, জেলা সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক হুইপ এস এম মোস্তফা রশিদী সুজা এমপি, মহানগর সাধারণ সম্পাদক ও ১৪ দলের সমন্বয়ক আলহাজ্ব মিজানুর রহমান মিজান এমপি।

বাংলাসংবাদ২৪/আল-গালীব/মাক্কী

আরও সংবাদ