Widget by:Baiozid khan
  • Advertisement

ভোলার বিভিন্ন হাট-বাজারে নকল ওষুধের ছড়াছড়ি

Published:2014-04-24 15:17:21    

ভোলা প্রতিনিধি: চরফ্যাশন সহ ভোলার বিভিন্ন হাট-বাজারের সর্বত্র স্কয়ার, এসিআই, রেনেটা, সেন্ডজ সহ বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ কোম্পানীর ঔষধের নকল ব্রান্ড ছড়িয়ে পড়েছে।

ওই ঔষধ কোম্পানীগুলো কর্তৃক নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে এক-তৃতীয়াংশ বা তার চেয়ে কম দামে ঔষধগুলো পেয়ে চরফ্যাশন সহ জেলা সদর থেকে ৭টি উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের হাট-বাজারের নামী-দামী ঔষধ বিক্রয় প্রতিষ্ঠানগুলো অধিক লাভের আশায় নকল ব্রান্ডগুলো সহজেই লুফে নিচ্ছে প্রতিনিয়ত।ফলে সাধারন রোগিরা ন্যায্য মূল্য দিয়ে ঔষধের নামে বিষ কিনে নিজের অজান্তেই মৃত্যুর ঝুকিতে পড়ছেন।

একাধিক বিক্রেতা অভিযোগ করেছেন,নামী-দামী কোম্পানীর বিক্রয় প্রতিনিধিরা এসব নকল ঔষধ বাজারজাত করার সাথে জড়িত। দায়িত্বশীল একটি সূত্র জানায়,গত শনিবার ও রবিবার নকল ঔষধের কয়েকটি বড় চালান চরফ্যাশন বাজার সহ উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের হাট-বাজার গুলোতে সরবরাহ করা হয়েছে।

এই চালানগুলোর মধ্যে স্কয়ারের সিপ্রোসিন,ক্যালবো-ডি,নিউরো-বি,এসিআই’র ফ্লুক্লক্স-৫০০,রেনেটার রোলাক এবং সেন্ডজ’র ভল্টালিন ইনজেকশন ও ভল্টালিন এসআর রয়েছে।

এছাড়াও ডিপো ইনজেকশন,স্যানোগ্রা এবং ভায়াগ্রার মতো যৌন উদ্দিপক ঔষধ রয়েছে। চরফ্যাশন সহ ভোলার একটি  বিশেষ চক্র ঢাকা থেকে সরাসরি ভোলা জেলার সর্বত্র দোকানে দোকানে এসব নকল ঔষধ পৌছে দিচ্ছে। জানা গেছে, কোম্পানীর ২/১জন প্রতিনিধি অবৈধ এই ঔষধ বাজারজাত করনে প্রতারক চক্রকে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ ভাবে সহযোগিতা করছে।

সূত্র জানায়,স্কয়ারের সিপ্রোসিন-৫০০এর এক বক্সে ৩০টি ক্যাপসুলের কোম্পানী মূল্য ৪৫০টাকা। নকল এই বক্সের পাইকারী মূল্য ২৫০টাকা। স্কয়ারের ক্যালবো-ডি এক কৌটায় ৩০টি ক্যাপসুলের কোম্পানী মূল্য ১৫০টাকা। নকল ক্যালবো-ডি’র এক কৌটার পাইকারী মূল্য ৬০টাকা। স্কয়ারের নিউরো-বি’র ৩০টির এক কৌটার কোম্পানী মূল্য ১৫০টাকা।নকল নিউরো-বি’র এক কৌটার পাইকারী মূল্য ৬০টাকা।

এইসআইর ফ্লুক্লক্স-৫০০এর ৫০টির এক বক্স ক্যাপসুলের কোম্পানী মূল্য ৫২৫টাকা। নকল ফ্লুক্লক্স-৫০০এর ৫০টি’র এক বক্সের পাইকারী মূল্য ২৬০টাকা।রেনেটার এক বক্সে ৪০টি রোলাক ট্যাবলেটের কোম্পানী মূল্য ৪০০টাকা। নকল রোলাক ট্যাবলেটের ওই এক বক্সের মূল্য ২০০টাকা।সেন্ডজ’র ৫এম্পল এক বক্সের ভল্টালিন ইনজেকশনের কোম্পানী মূল্য ৫৫০টাকা। ওই ব্রান্ডের নকল বক্সের দাম ১৭০টাকা। সেন্ডজ’র ৫০টির এক বক্স ভল্টালিন এসআর ট্যাবলেটের কোম্পানী মূল্য ৭৫০টাকা। নকল ওই ব্রান্ডের পাইকারী মূল্য ১২৫টাকা।

সূত্র আরো জানায়, বর্তমানে বাজারে প্রাপ্ত এসব ব্রান্ডের ঔষধের আসল নকল পার্থক্য করা সাধারন রোগিদের পক্ষে সম্ভব নয়। কোন কোন ক্ষেত্রে ঔষধ বিক্রেতারাও আসল আর নকলের পার্থক্য করতে পারছে না। নকল আর আসলের মধ্যে খুব মিল থাকায় বিক্রেতা প্রতিষ্ঠান গুলো কম দামের ঔষধ গুলোই অহরহ ক্রয় করছে।

চরফ্যাশন উপজেলা ক্যামিস্ট এন্ড ড্রাগিষ্ট সমিতির সাধারন সম্পাদক জালাল আহমেদ জানান, জীবন রক্ষাকারী এসব ঔষধ নিয়ে এমন অনৈতিক বানিজ্য চলতে দেয়া যায় না। যে বা যাহারাই এতে জড়িত তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া অতিব জরুরী।

তিনি আরো জানান,চরফ্যাশনের হাট-বাজারে নকল ঔষধ বিক্রি না করার জন্য  ইতিমধ্যেই ঔষধ বিক্রেতাদের ক্যামিস্ট এন্ড ড্রাগিষ্ট সমিতির পক্ষ থেকে চিঠি দেয়া হয়েছে। ওই চিঠিতে জরিমানা সহ আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের বিষয়ে ঔষধ বিক্রেতাদের অবহিত করা হয়েছে।


বাংলাসংবাদ২৪/এনআমীন/মাক্কী

আরও সংবাদ