Widget by:Baiozid khan
  • Advertisement

যশোরের চৌগাছায় ২১ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীর ভবিষ্যৎ অনিশ্চিত

Published:2015-03-21 19:01:02    
যশোর প্রিতিনিধ: যশোরের চৌগাছা উপজেলায় ২১ টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভূক্ত হয়নি। ফলে ৫শতাধিক শিক্ষক-কর্মচারী চাকুরীর ভবিষৎ নিয়ে ভোক্তভোগী শিক্ষক, কর্মচারী, অবিভাবক মহলের মধ্যে চরম হতাশা দেখা দিয়েছে। এ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য এ্যাড.মনিরুল ইসলামসহ সংশ্লিষ্ট উদ্ধর্তন কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা কর্মচারীবৃন্দ।
 
প্রায় এক যুগ ধরে উপজেলার ৮টি কলেজ,৮টি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও ৫টি দাখিল মাদ্রাসার এমপিও ভূক্ত না হওয়ায় ৫শতাধিক শিক্ষক কর্মচারীর চাকুরীর ভবিষ্যৎ অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। এ সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষানীতিমালার সকল শর্ত পূরন করলেও  মাসিক বেতর পাচ্ছেন না। 
 
ফলে ভোক্তভোগী শিক্ষক, কর্মচারী, অবিভাবক মহলের মধ্যে চরম হতাশা দেখা দিয়েছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলো হচ্ছে এস এম হাবিবুর রহমান পৌর কলেজ, হাকিমপুর মহিলা কলেজ, জে এম এস কে কলেজ, জি সি বি কলেজ, তরিকুল ইসলাম পৌর কলেজ,আমজামতলা মডেল কলেজ মিলে ৬টি কলেজের ১শ ২০ জন, ডিগ্রী পর্যায়ের এবিসিডি কলেজের ও সলুয়া আদর্শ কলেজসহ ২টিতে ২০ জন, দাখিল মাদ্রাসার মধ্যে জেটি (বেলেমাঠ-জিয়েলগাড়ি) পাতিবিলা, নিয়ামতপুর, শাহাজাদপুরসহ ৬ টিতে ৭০ জন এবং জুনিয়র ও মাধ্যমিক পর্যায়ের স্কুলের মধ্যে খলসি, ঝাউতলা, এবিসিডি, বাড়িয়ালি, গরীবপুর, কেসমত খাপুর, হিজলী, ঝিনাইকুন্ড, মুক্তদাহ বালিকা, স্বরূপদাহ, ফাঁসতলা, রায়নগর চারা বাড়িসহ মিলে ১শ ৬০ শ জনসহ ৫শতাধিক শিক্ষক-কর্মচারী। 
 
এবিসিডি স্কুলের সহকারী শিক্ষক জিয়া উদ্দিন বলেন চাকুরী পেয়েও বেকারত্বের অভিশাপে ভূগছি। ইতিমধ্যে সরকারী চাকুরীরও মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে। ফলে অন্যন্য চাকুরীতে যাবার সুযোগও নেই। এদিকে অবিভাবক মহলেরও অনুরূপ অভিযোগ ছেলে-মেয়েদের লেখা পড়া শিখাতে গিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা ব্যয় করার পাশাপাশি চাকুরী নেবার সময় আবার ডোনেশানের টাকা দিয়েই চাকুরী দিতে নিতে হয়েছে। 
 
অপরদিকে জেটি দাখিল মাদ্রাসার সুপার মাও,আনোয়ার হোসেন বলেন,দীর্ঘ ১১বছর ধরে মাদ্রাসার শিক্ষক ও কর্মচারীদের নিয়ে অতি কষ্টে আছি। ঝাউতলা মাধ্যমিক স্কুলের প্রধান শিক্ষক আয়নাল হোসেন জানান মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষকদের এপিওভূক্ত না হওয়ায় সংশ্লিষ্ট শিক্ষকরা ভীষন কষ্টে আছি। পাশাপোল আমজামতলা মডেল কলেজের অধ্যক্ষ শহিদুল ইসলাম বলেন শিক্ষামন্ত্রণালয়ের সকল শর্ত ও নীতিমালা পূরন করা সত্বেও কলেজটি এমপিওভূক্ত হচ্ছে না। যে কারনে শিক্ষক কর্মচারীরা অর্থের অভাবে অতিকষ্টে জীবন যাপন করছেন।
 
নবাগত উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ওহিদুজ্জামান জানান,যে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভূক্ত হয়নি তাদের সমস্যার বিষয়টি সংশ্লিষ্ট উদ্ধর্তন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেছি।পাশাপাশি ভূক্তভোগী শিক্ষক-কর্মচারী,অভিভাবক এবং চৌগাছাবাসী এ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য এ্যাড.মনিরুল ইসলাম মনিরসহ সংশ্লিষ্ট উদ্ধর্তন কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন।
 
বাংলাসংবাদ২৪/ইয়াকুব আলী/কবির হোসেন।

আরও সংবাদ