Widget by:Baiozid khan
  • Advertisement

কারাগারে পিন্টুর ইন্তেকাল; খালেদার শোক

Published:2015-05-03 13:11:07    

বাংলাসংবাদ: বিডিআর বিদ্রোহে যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক নাসির উদ্দিন আহমেদ পিন্টু ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

আজ (রোববার) বেলা ১২টা ২০ মিনিটে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের প্রিজন সেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। বেলা ১১ টার দিকে রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগারে হঠাৎ তিনি অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে রামেক হাসপাতালে পাঠানো হয়। তবে হাসপাতালের হৃদরোগ বিভাগের প্রধান ডা. রইস উদ্দিন দাবি করেন, হাসপাতালে নিয়ে আসার পর তাকে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়। তিনি জানান,হাসপাতালে আনার আগেই পিন্টু মারা যান।
 
রাজশাহীর কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার শফিকুল ইসলাম খান জানান, নাসির উদ্দিন আহমেদ পিন্টু নানাবিধ অসুখে ভুগছিলেন। হার্ট, কিডনি, ব্লাডপ্রেসারসহ চোখ ও বুকের সমস্যাও ছিল তার। সকালে তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে দ্রুত তাকে প্রথমে কারা হাসপাতালে এবং অবস্থার অবনতি হলে তাকে কারাগার থেকে রামেক হাসপাতালের ভর্তি করা হয়।

২০০৯ সালের ২৫ ও ২৬ ফেব্রুয়ারি বিডিআর বিদ্রোহের ঘটনায় ২০০৯ সালে গ্রেফতার হন বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ও কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি নাসির উদ্দিন আহমেদ পিন্টু। তার বিরুদ্ধে বিদ্রোহী বিডিআর জওয়ানদের পালিয়ে যেতে সহযোগিতার অভিযোগ আনা হয়। অভিযোগে তাকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়া হয়। গত ২০ এপ্রিল তাকে কাশিমপুর কারাগার থেকে রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগারে স্থানান্তর করা হয়। এর আগেও গত সপ্তাহে হার্টের সমস্যায় তাকে রামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল।

কারাবন্দী থাকা অবস্থায়ই ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদের জন্য মনোনয়নপত্র নিয়েছিলেন পিন্টু। তবে সাজাপ্রাপ্ত আসামি হওয়ায় তাঁর মনোনয়ন বাতিল করে নির্বাচন কমিশন।
নাসিরউদ্দিন আহম্মেদ পিন্টুর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া।

তৎকালীন বিডিআর (বর্তমানে বিজিবি) সদর দপ্তর পিলখানায় বিদ্রোহী জওয়ানরা ৫৭ সেনা কর্মকর্তা ও ১৭ বেসামরিক ব্যক্তিকে হত্যা করে। তাঁদের মধ্যে ছিলেন তৎকালীন মহাপরিচালক মেজর জেনারেল শাকিল আহমেদসহ উপমহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল বারী। বিদ্রোহীরা মহাপরিচালকের বাসভবনে ঢুকে তাঁর স্ত্রীসহ চার নারীকে হত্যা করে; সেনা কর্মকর্তাদের বাসা ও যানবাহনে অগ্নিসংযোগ, ভাঙচুর ও লুটপাট চালায়। তারা কর্মকর্তাদের পরিবারের সদস্যদের আটক করে নির্যাতন করে।

কারাগারে আটক ছাত্রদলের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি, বিএনপি নেতা নাসিরুদ্দিন পিন্টু আর নেই। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন। রোববার দুপুরে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে রবিবার দুপুরের দিকে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে তার মৃত্যু হয়।
 
রাজশাহী কারাগারে থাকা পিন্টু রোববার সকালে বুকের ব্যথা অনুভব করলে তাকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
- See more at: http://dev.dailynayadiganta.com/detail/news/19771#sthash.xW4iPgpV.dpuf

 

আরও সংবাদ