Widget by:Baiozid khan
শিরোনাম:

ঢাকা Fri December 13 2019 ,

  • Techno Haat Free Domain Offer

নীলফামারীতে ৮৬ বোতল ফেন্সিডিল সহ ৩ মাদক ব্যবসায়ী আটক

Published:2015-09-09 09:18:22    
ডিমলা (নীলফামারী) প্রতিনিধি: ডিমলায় এক ফেন্সিডিল ব্যবসায়ী সহ তিন জনকে গ্রেফতার করেছে ডিমলা থানা পুলিশ। এসময় পুলিশ ঐ ব্যবসায়ীর নিকট থেকে ৮৬ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার করে। 
নীলফামারী জেলার ডিমলা থানা পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সোমবার মধ্য রাতে ঝুনাগাছ চাপানী ইউনিয়নের চাপানী হাট অটো ষ্ট্যান্ড হতে দবিয়ার রহমান (৩০) নামের এক ফেন্সিডিল ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে। এ সময় তার কাছ থেকে ৮৬ বোতল ভারতীয় ফেন্সিডিল উদ্ধার করেছে। এস আই মোঃ আব্দুল লতিফ জানান দবিয়ার রহমান লালমনিরহাট জেলার হাতিবান্ধা থানার সিংগি মারি গ্রামের আব্দুল মান্নানের পুত্র। সে একজন চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী। অপর দিকে নাশকতার আশংখায় পুলিশ মধ্যরাতে বদিউজ্জামান (৪৫) নামের এক জামায়াত নেতাকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃত বদিউজ্জামান নাউতারা নিজপাড়া গ্রামের মৃত রজব আলীর পুত্র। এছাড়া মঙ্গলবার বিকাল ০৩ টার দিকে ডিমলা সদরে সাব-রেজিঃ অফিস চত্বর থেকে রশিদুল ইসলাম (৩০) নামের এক যুবককে উপজেলা নির্বাহী অফিসার রেজাউল করিম জমির জাল পর্চা সহ আটক করে থানায় সোপর্দ করেছেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার রেজাউল করিম জানান দীর্ঘদিন থেকে সংজ্ঞবদ্ধ একটি চক্র জমির এসএ,  আরএস ও খারিজ খতিয়ান তৈরী করে জেলা প্রশাসক ও সহকারী ভুমি কমিশনারের স্বাক্ষর ও সীল মহর জাল করে জমি রেজিঃ সম্পাদন করে আসছে। মঙ্গলবার দুপুর ১ টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তিনি সাব-রেজিঃ অফিস চত্বরে অভিযান চালিয়ে হাতে-নাতে জাল কাগজ পত্র সহ রশিদুল ইসলাম নামের এক যুবককে আটক করে থানায় সোপর্দ করে। আটককৃত রশিদুল ইসলাম সদর ইউনিয়নের কুমারপাড়া গ্রামের জয়নাল আবেদীনের পুত্র। ডিমলা থানার অফিসার ইনচার্জ রুহুল আমিন খান পৃথক পৃথক ঘটনায় তিন জনকে আটকের বিষয়ে সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। আটককৃত রশিদুল ইসলাম জানায় সে একজন শারিরীক প্রতিবন্ধি তার নিজস্ব কোন দলিল লেখক লাইসেন্স নেই, জনৈক দলিল লেখক সামছুল হকের সহকারী হিসেবে কাজ করে দলিল প্রতি ১শ থেকে ২শ টাকা পর্যন্ত মজুরী পায়। প্রতি দিনের ন্যায় মঙ্গলবার সামছুল হক দলিল সম্পাদনের জন্য নাউতারা মৌজার তফশীলভুক্ত ৩৬১ নং খতিয়ানের এসএ ও খারিজ খতিয়ানের পর্চা দিয়ে দলিল তৈরী করতে বলে। তার কথা মত আমি উক্ত কাগজ পত্র দিয়ে দলিল তৈরীর কাজ করছিলাম। এমতাবস্থায় উপজেলা নির্বাহী মহদয় উক্ত কাগজপত্র সহ আমাকে আটক করে থানায় দিয়েছে। ওই কাগজপত্র জাল না সঠিক তাহা আমার জানা নেই। 
 
মোঃ বাদশা সেকেন্দার (ভুট্টু)
ডিমলা (নীলফামারী) প্রতিনিধি 
বাংলাসংবাদ২৪.কম
 

আরও সংবাদ