Widget by:Baiozid khan
শিরোনাম:

ঢাকা Wed April 21 2021 ,

  • Techno Haat Free Domain Offer

দেশের বৃহত্তম পৌরসভা বিএনপির দখলেই

Published:2016-01-01 11:29:08    
আয়তন ও জনসংখ্যার দিক থেকে দেশের বৃহত্তম পৌরসভার (বগুড়া) মেয়র পদ বিএনপির দখলেই থাকল। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ এ পৌরসভার মেয়র পদ দখলে নিতে নানা কৌশল করলেও তার সবই বিফলে গেছে। ধানের শীষ নিয়ে বর্তমান মেয়র অ্যাডভোকেট এ কে এম মাহবুবুর রহমান তৃতীয়বারের মতো ৫৭ হাজার ৯ শ' ২৩ ভোটের বিশাল ব্যবধানে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। গত নির্বাচনে যে ব্যবধান ছিল ৩৯ হাজার ভোট।
 
বগুড়া পৌরসভার আয়তন ৭০ বর্গ কিলোমিটার ও জনসংখ্যা ৬ লাখ। ধানের শীষ নিয়ে বর্তমান মেয়র অ্যাডভোকেট এ কে এম মাহবুবর রহমান ১ লাখ ৭ হাজার ৩৪০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি অ্যাডভোকেট রেজাউল করিম মন্টু নৌকা প্রতীকে পেয়েছেন ৪৯ হাজার ৪১৭ ভোট। ভোটের ব্যবধান ৫৭ হাজার ৯২৩। ২০১১ সালের নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী মাহবুবর রহমান ৯৬ হাজার ৩৩৪ ভোট ও আওয়ামী লীগের রেজাউল করিম মন্টু পেয়েছিলেন ৫৯ হাজার ৩৫৫ ভোট। এবার ধানের শীষের ভোট বেড়েছে এবং কমেছে নৌকার। মিনার প্রতীকে ইসলামী ঐক্যজোটের প্রার্থী এস এম শামছুল হক পেয়েছেন ২ হাজার ৫ শ' ৪৭ ভোট। মোট ভোটার ছিল ২ লাখ ৪৮ হাজার ১শ ৩৬ জন। এর মধ্যে ভোট পড়েছে শতকরা ৬৫.১৯ ভাগ।
এবারের নির্বাচনে বগুড়া জেলার ৯টি পৌরসভার মেয়র পদের ৫টিতে আওয়ামী লীগ ও ৪টিতে জিতেছে বিএনপি। এ ছাড়া কাউন্সিলর পদেও ভালো করেছে বিএনপি । তবে নির্বাচনে ব্যাপক কারচুপির অফিযোগ করেছেন প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীরা। অনিয়মের মাধ্যমে ফল আওয়ামী লীগ নিজেদের পক্ষে নিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন তারা। কারচুপি নয় ভালো ফলের জন্য সরকারের উন্নয়নকে পুঁজি হিসেবে দেখছেন ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীরা। 
২০১১ সালের পৌরসভা নির্বাচনে বগুড়া জেলার ৯টি পৌরসভার ৭টিতে বিএনপি ও ২টিতে আওয়ামী লীগ প্রার্থীরা মেয়র পদে জিতেছিল। 
শেরপুরে বিএনপি ২০১১ সালে জিতলেও এবার হেরেছে। এখানে আওয়ামী লীগ প্রার্থী আব্দুস সাত্তার প্রায় তিন হাজার ভোটের ব্যবধানে পরাজিত করেন বিএনপি প্রার্থী ও বর্তমান মেয়র স্বাধীন কুমার কুণ্ডুকে। 
ধুনটে গত নির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী হিসেবে এ জি এম বাদশা প্রায় ১ শ' ভোটে জিতলেও এবার স্বতন্ত্র প্রার্থী (বিদ্রোহী) হিসেবে নৌকার প্রার্থী শরিফুল ইসলাম খানের চেয়ে ভোট বেশি পেয়েছেন আড়াই হাজার। 
সারিয়াকান্দি পৌরসভায় বিএনপির প্রার্থী টিপু সুলতান গত নির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর চেয়ে ২ শ' ভোটে জিতলেও এবার নৌকার প্রার্থী আলমগীর শাহী সুমনের কাছে প্রায় তিন হাজার ভোটের ব্যবধানে হেরেছেন।
 
শিবগঞ্জ পৌরসভায় গত নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থী মতিয়ার রহমান মতিন ১ হাজার ৭শ ভোটে জিতলেও এবার নৌকার প্রার্থী তৌহিদুর রহমান মানিকের কাছে হেরেছেন প্রায় ১ হাজার ৪শ ভোটে।
 
কাহালু পৌরসভায় দ্বিতীয় বারের মতো জিতেছেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী হেলাল উদ্দিন কবিরাজ। তিনি গত নির্বাচনের চেয়ে এবার প্রায় ২ হাজার ভোট বেশী পেয়েছেন যা ধানের শীষের চেয়ে ১৩শ বেশী।
 
নন্দীগ্রামে বিএনপি প্রার্থী শুশান্ত কুমার শান্ত বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী কামরুল হাসান সিদ্দীকী জুয়েলের বিপক্ষে গত নির্বাচনে প্রায় তিন হাজার ভোটে জিতলেও এবার তারই কাছে হেরেছেন মাত্র ৯৭ ভোটে।
 
শান্তাহারে বিএনপি প্রার্থী গত নির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর বিরুদ্ধে প্রায় তিন হাজার ভোটে জিতলেও এবার জিতেছেন মাত্র ৬ শ' ভোটে।
 
গাবতলী পৌরসভায় বিএনপি প্রার্থী সাইফুল ইসলাম এবার ৫ হাজার ভোটের ব্যবধানে জিতেছেন স্বতন্ত্র প্রার্থীর বিপক্ষে। এখানে নৌকার প্রার্থী শিলুর অবস্থান তৃতীয় ।

আরও সংবাদ