Widget by:Baiozid khan
  • Advertisement

নবাবগঞ্জে ইটভাড়ার দেয়াল ধসে নিহত ১ আহত ২

Published:2016-03-20 07:32:42    
 
নবাবগঞ্জ (দিনাজপুর) থেকে এম রুহুল আমিন প্রধান: নবাবগঞ্জ উপজেলার নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিষ্টেট মোঃ বজলুর রশিদ ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে ১নং জয়পুর ইউনিয়নের খোসলামপুর মৌজায় স্থাপিত আরটিবি ইট ভাটা লাইসেন্স ছাড়াই ইট পোড়ার অপরাধে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেছেন। অপর দিকে ওই ভাটার সার্বিক কার্যক্রম স্থগিত ঘোষনা করে থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য নির্দেশ দেন আদালত।
 
নবাবগঞ্জের খোসলামপুর মৌজায় ইটভাটার  চিমনীর দেয়াল ধ্বসে ইটের নিচে চাঁপা পড়ে কামরুজ্জামান সাকিল (২৪) ভাটার শ্রমিক নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে ২ জন ভাটার শ্রমিক। নিহত ভাটার শ্রমিক কামরুজ্জামান সাকিল, উপজেলার হরনাথপুর নয়াপাড়া গ্রামের মৃত সাখওয়াৎ আলীর পুত্র। আহতরা হলেন, একই গ্রামের, মোস্তাফা আলী ছেলে আব্দুল বারী (৩২) ও একই উপজেলার খোমলামপুর গ্রামের অবিনাশ চন্দ্রের ছেলে মিন্টু চন্দ্র (২৪)। তাদের অবস্থা আশঙ্কাজনক। শুক্রবার সকাল সাড়ে ৮টায় এ দূর্ঘটনা ঘটে। প্রত্যক্ষদর্শী ও পুশিল জানায়, শুক্রবার সকালে টলিতে ইট তোলার সময় চিমনীঘেরা ফাটা দেয়ালটি ধ্বসে পড়ে ওই সময় ৩ শ্রমিক চাঁপা পড়ে ইটের নিচে। এ সময় গ্রামবাসী ও অন্যান্য আহত শ্রমিকদের উদ্ধার করে ফুলবাড়ী উপজেলা হাসপাতালে নিয়ে যায়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় শ্রমিক কামরুজ্জামান মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে। এদিকে ২ আহত শ্রমিক মিন্টু চন্দ্র ও আব্দুল বারীর অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাদেরকে চিকিৎসার জন্য রমেক হাসপাতালে রিফার্ড করেন। নিহত ভাটার শ্রমিক কামরুজ্জামান এর বাড়ী হরনাথপুর নয়াপাড়ায় গিয়ে দেখা যায় কামরুজ্জামান ছিলেন একমাত্র উপার্জন সক্ষম ব্যক্তি। তার আয়েই চলত কামরুজ্জামান এর স্ত্রী বিধমা মা কারিনা বেওয়া ছোট ভাই জাহিদ হাসান ও ভোট বোন সাবিনা। কিন্তু তার এই অকাল মুত্যুতে তার পরিবারের সদস্যরা এখন দিশেহারা হয়ে পড়েছে। এ রিপোট লেখা পর্যন্ত স্থানীয় জনতা ইট ভাটা উচ্ছেদের দাবী জানান। আফতাবগঞ্জ পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ উপ-পরিদর্শক মোঃ মিজানুর রহমান জানান খবর পেয়েই তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে বিক্ষিদ্ধ জনতাকে প্রশোমিত করেন। ইটভাটার মালিক আলহাজ মোঃ মশফিকুর রহমান (মিন্টু) জানান এটা দূর্ঘটনা। 
 

আরও সংবাদ