Widget by:Baiozid khan
  • Advertisement

সিরিয়ায় যুদ্ধবিরতি: যুক্তরাষ্ট্রের সদিচ্ছা নিয়ে প্রশ্ন পুতিনের

Published:2016-09-18 09:07:27    
সিরিয়ায় যুদ্ধবিরতি অব্যাহত রাখতে যুক্তরাষ্ট্রের সদিচ্ছা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন।
 
 
গার্ডিয়ানের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সিরিয়ায় প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদের অনুগত বাহিনীর বিরুদ্ধে লড়াইরত ‘সন্ত্রাসীদের’ সঙ্গে সম্পর্ক ছেদে ওয়াশিংটন প্রস্তুত নয় বলে অভিযোগ করেছেন রুশ প্রেসিডেন্ট।
 
এদিকে আইএসবিরোধী লড়াইয়ে থাকা  যুক্তরাষ্ট্র নেতৃত্বাধীন জোটের বিরুদ্ধে সিরীয় বাহিনীর ওপর বিমান হামলার অভিযোগ করেছে সিরীয় সেনাবাহিনী।
 
দেশটির রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা বলছে, দিয়ের আল-জোর বিমানবন্দরের নিকটবর্তী জেবেল থারডা এলাকায় সিরীয় আর্মির অবস্থানে এই হামলা হয়। ওই সেনা সদস্যরা আইএসের ওপর হামলার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন।
 
যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্ররা জিহাদি গ্রুপগুলোকে সহায়তা করছে বলে সিরীয় সেনাবাহিনীর এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে।
 
রুশ সেনাবাহিনীর ভাষ্যমতে, ওই হামলায় ৬২ সিরীয় সৈন্য নিহত হয়েছে।
 
আইএসের বিরুদ্ধে অভিযান জোরদারের লক্ষ্য নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়ার উদ্যোগে গত সোমবার সিরিয়ায় যুদ্ধবিরতি শুরু হয়। তবে উভয় পক্ষই যুদ্ধবিরতির শর্ত লংঘনের কয়েক ডজন অভিযোগ তুলেছে। বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত উত্তরাঞ্চলীয় শহর আলেপ্পোয় এখনও পৌঁছাতে পারেনি ত্রাণবাহী যানবাহন।
 
ওয়াশিংটনের বিরুদ্ধে বিদ্রোহীদের নিয়ন্ত্রণ করতে ব্যর্থতার অভিযোগ করছে মস্কো। যুক্তরাষ্ট্র কেন যুদ্ধবিরতি চুক্তির লিখিত অনুলিপি প্রকাশ করছে না তা নিয়ে শনিবার প্রশ্ন তুলেছেন পুতিন।
 
সংবাদ সম্মেলনে চুক্তির বিভিন্ন দিক তুলে ধরা হলেও এখনও আনুষ্ঠানিকভাবে লিখিত কিছু প্রকাশ করা হয়নি, যা নিয়ে উভয়পক্ষে সন্দেহ তৈরি করছে।
 
“সিরিয়া নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র যে সমস্যার মধ্যে পড়েছে তার কারণে এটা হচ্ছে। তারা এখনও আধা ক্রিমিনাল ও সন্ত্রাসীদের থেকে কথিত ‘ভালো’ বিরোধীদের আলাদা করতে পারেনি,” কিরগিজস্তান সফরে বলেছেন পুতিন।
রুশ প্রেসিডেন্ট বলেন, “আমার মতে, বাশার আসাদের বৈধ সরকারের বিরুদ্ধে লড়াই টিকিয়ে রাখার আকাঙ্ক্ষা থেকে এটা হচ্ছে।”
 
সিরিয়ার শান্তি প্রক্রিয়াকে সঠিক রাস্তায় ফিরিয়ে আনতে গেল সপ্তাহে  যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়ার মধ্যে মতৈক্য হয়।
 
গত শনিবার জেনেভায় দিনব্যাপী আলোচনার পর এ বিষয়ে দুপক্ষের মধ্যে একটি সমঝোতা চুক্তি হয়।
 
এতে সোমবার সূর্যাস্তের পর থেকে সিরিয়াজুড়ে যুদ্ধবিরতি শুরু,মানবিক ত্রাণ সরবরাহ পরিস্থিতির উন্নয়ন এবং নিষিদ্ধ ঘোষিত ইসলামি উগ্রপন্থি গোষ্ঠীগুলোর ওপর যৌথ অভিযানের কথা বলা হয়।
 
চুক্তি অনুযায়ী রুশ সমর্থিত সিরিয়ার সরকারি বাহিনী এবং যুক্তরাষ্ট্র ও পারস্য উপসাগরীয় দেশগুলো সমর্থিত সিরিয়ার সরকারবিরোধী বাহিনীগুলোর আস্থার পরিবেশ তৈরি করতে কিছুদিন লড়াই বন্ধ রাখার কথা।
 
আলেপ্পো ও এরকম কিছু জায়গা থেকে জঙ্গিগোষ্ঠীগুলো থেকে বিরোধী বাহিনীগুলোর আলাদা হওয়ার সুযোগ দিতে এই সিদ্ধান্ত হয়। এসব এলাকায় বিরোধী বাহিনীগুলো জঙ্গিগোষ্ঠীগুলোর সঙ্গে মিলেমিশে সরকারি বাহিনীগুলোর বিরুদ্ধে লড়াই করছে।
 

আরও সংবাদ