Widget by:Baiozid khan
শিরোনাম:

ঢাকা Fri September 21 2018 ,

উত্তরায় স্কুলের সময় বাইরে ঘুরলে নেওয়া হবে থানায়

Published:2017-02-15 08:45:58    
ঢাকার উত্তরা এলাকায় স্কুল চলাকালে স্কুল ড্রেস পরা কোনো শিক্ষার্থী বাইরে ঘোরাফেরা করলে তাকে ধরে থানায় নেবে পুলিশ।
 
স্কুল শিক্ষার্থীদের কথিত দুই গ্রুপ ‘ডিসকো বয়েজ’ ও ‘নাইন স্টার’ গ্যাংয়ের দ্বন্দ্বে অষ্টম শ্রেণির ছাত্র আদনান কবির নিহতের প্রেক্ষাপটে এ সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়েছে।
 
মঙ্গলবার দুপুরে ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে পুলিশের উত্তরা বিভাগের উপ-কমিশনার বিধান ত্রিপুরা বলেন, “এ ধরনের ঘটনা যাতে না ঘটে সেজন্য পুলিশ সতর্ক রয়েছে।
 
“ওই এলাকায় কোনো শিক্ষার্থী স্কুল চলার সময় স্কুলের পোশাক পরে বাইরে ঘোরাফেরা করলে তাকে থানায় নিয়ে আসা হবে। অভিভাবক ও স্কুল কর্তৃপক্ষ ছাড়া কারও কাছে ছাড়া হবে না।”
 
উত্তরার ট্রাস্ট স্কুল অ্যান্ড কলেজের ছাত্র আদনান গত ৬ জানুয়ারি সন্ধ্যায় খুন হন। ১০/১৫ জন তরুণ ধাওয়া করে আদনানকে ১৩ নম্বর সেক্টরের ১৭ নম্বর সড়কে নিয়ে যায়। সেখানে তাকে এলোপাতাড়ি কোপানো হয়। হাসপাতালে নেওয়ার ঘণ্টাখানেকের মাথায় তার মৃত্যু হয়।
 
এই হত্যাকাণ্ডে এখন পর্যন্ত ১৪ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানান বিধান ত্রিপুরা।
 
উপ-কমিশনার বলেন, বৃহত্তর উত্তরায় অবস্থিত স্কুলগুলোতে উত্তরা ও টঙ্গীসহ আশপাশের এলাকার ছাত্র-ছাত্রীরা লেখাপড়া করে, স্কুলে ছাড়াও বিভিন্ন কোচিং সেন্টারে ব্যাচে ক্লাস করে।
 
“এর মাঝে নিজেদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি, হাতাহাতিসহ ছোটখাট বিষয়কে কেন্দ্র করে তাদের মধ্যে বিভিন্ন গ্রুপের সৃষ্টি হয়।
 
“শুরুর দিকে তারা এক সাথে খেলাধুলাসহ গ্রুপ ব্যাচে কোচিং ও ক্লাস শেষে আড্ডা দিত। পরে তারা ফেইসবুকের মাধ্যমে বিভিন্ন গ্রুপের পেইজ খুলে নিজেদের বিভিন্ন বিষয়ে তথ্য আদান-প্রদান করত। এইভাবেই ফেইসবুকের মাধ্যমে ডিসকো বয়েজ, নাইন স্টার গ্রুপ, সেভেন স্টার গ্রুপ, নাইন এমএম বয়েজ গ্রুপ, বিগ বস গ্রুস ইত্যাদি গ্রুপ আত্মপ্রকাশ করে।”
 
এসব গ্রুপে উচ্চবিত্ত পরিবারের সন্তানরা যেমন আছে, তেমনি স্কুল থেকে ঝরে পড়া বস্তি অথবা ভাসমান ঘরের ছেলেরাও রয়েছে বলে জানান তিনি।
 
প্রতিটি গ্রুপের সদস্যদের বয়স ১৩ থেকে ২২ বছরের মধ্যে জানিয়ে বিধান ত্রিপুরা বলেন, এর আগে তাদের মধ্যে কেউ এক গ্রুপ ছেড়ে অন্য গ্রুপে চলে যাওয়া নিয়ে বকাঝকা, ছোটখাট মারামারি হয়েছে।
 
এ ধরনের ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তরা পশ্চিম থানায় কয়েকটি মামলা হয় এবং আসামিদের গ্রেপ্তার করে চালানও দেওয়া হয়। এসব ঘটনায় অভিভাবকদেরও সতর্ক করা হয়।
 
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত নিহত আদনানের বাবা কবির হোসেনকে দেখিয়ে পুলিশ কর্মকর্তা বিধান ত্রিপুরা বলেন, “অভিভাবকরা সন্তানের গতিবিধির দিকে লক্ষ রাখলে এই ঘটনা ঘটত না।”
 
এই ধরনের ঘটনা প্রতিরোধে অভিভাবকদের সন্তানের প্রতি নজর দেওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

আরও সংবাদ