Widget by:Baiozid khan

শাদাব চমকে ফের ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারাল পাকিস্তান

Published:2017-03-31 15:14:49    
পাকিস্তানের স্পিনার শাদাব খানের চমক চলছেই। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম টি২০ ম্যাচে অভিষেক হয় শাদাবের। অভিষেকেই বল হাতে দলকে জয় এনে দিয়ে হয়েছিলেন ম্যাচসেরা।
 
দ্বিতীয় টি২০-তেও বল হাতে দুর্দান্ত পারফর্ম করে পাকিস্তানকে ৩ রানের জয় এনে দিয়েছেন। পাকিস্তানের দেয়া ১৩৩ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে ১২৯ রান করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। এই জয়ে ৪ ম্যাচের টি২০ সিরিজে ২-০তে এগিয়ে গেল সফরকারীরা।
 
বৃহস্পতিবার রাতে পোর্ট অব স্পেনে টস হেরে আগে ব্যাট করতে নামে পাকিস্তান। কোনো রান না করেই স্যামুয়েল বাদ্রির বলে সাজঘরে ফেরেন ওপেনার কামরান আকমল।
 
আহমেদ শেহজাদ ও বাবর আজম শুরুর ধাক্কা সামাল দেয়ার চেষ্টা করেন। তাদের জুটিতে আসে ৪১ রান। বাবর ২৭ রান করে কার্লোস ব্রাথওয়েটের বলে সাজঘরে ফেরেন। পরের ওভারেই ফিরে যান শেহজাদ। ১৪ রান করে সুনিল নারিনের বলে আউট হন শেহজাদ।
 
শেহজাদের পর দ্রুতই সাজঘরে ফেরেন ফকর জামান। তিনি ৩ রান করে বাদ্রির বলে প্যাভিলিয়নে ফেরেন। অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান শোয়েব মালিক ব্যাট হাতে বড় ইনিংস খেলার ইঙ্গিত দেন। তবে তিনিও ২০ বলে ২৮ রান করে ব্রাথওয়েটের বলে পোলার্ডের হাতে ধরা পড়েন।
 
এদিন ব্যর্থ হন অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ। তিনি ১২ রান করে নারিনের দ্বিতীয় শিকার হন। ইমাদ ওয়াসিম ও সোহেল তানভীর উভয়েই সংগ্রহ করেন ৪ রান করে। ইমাদ উইলিয়ামসের বলে এবং তানভীর নারিনের শিকারে পরিণত হন। শেষ দিকে শাদাব খানের ১৩ এবং ওয়াহাব রিয়াজের ২৪ রানের ঝড়ো ইনিংসে ভর করে ১৩২ রানের পুঁজি পায় সফরকারীরা। শাদাব রান আউট হন। আর রিয়াজকে ফেরান ব্রাথওয়েট।
 
জবাব দিতে নেমে দলীয় ১০ রানেই প্রথম উইকেট হারায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ইভেন লুইস ৩ রান করে রান আউট হন। এরপর চ্যাডউইক ওয়ালটন ও মারলন স্যামুয়েলস মিলে ৫০ রানের জুটি গড়ে দলকে এগিয়ে নেন।
 
এরপরই শুরু হয় শাদাব চমক। ব্যক্তিগত ২১ রানে শাদাবের বলে বোল্ড হন ওয়ালটন। পরের ওভারেই ব্যক্তিগত ১ রানে হাসান আলীর বলে লেগ বিফোরের ফাঁদে পরেন লেন্ডল সিমন্স। হাসানের পর ফের আঘাত হানেন শাদাব। পর পর দুই বলে কারইন পোলার্ড ও রমেশ পাওয়েলকে ফিরিয়ে হ্যাটট্রিকের সম্ভাবনা জাগান এই লেগ স্পিনার। পোলার্ড ৩ এবং পাওয়েল ০ রান করেন। একপ্রান্ত আগলে রেখে ক্যারিবীয়দের জয়ের স্বপ্ন দেখানো মারলন স্যামুয়েলসকে ব্যক্তিগত ৪৪ রানে ফিরিয়ে নিজের চতুর্থ উইকেট তুলে নেন শাদাব।
 
এরপর ব্রাথওয়েটকে ফিরিয়ে নিজের প্রথম শিকার তুলে নেন ওয়াহাব রিয়াজ। ব্রাথওয়েট ১৫ রান করেন। তবে জেসন হোল্ডার ২৬ রানে অপরাজিত থাকলেও দলের জয় নিশ্চিত করতে পারেননি।
 
শেষ ওভারে জয়ের জন্য ১৪ রানের প্রয়োজন ছিল। বল হাতে তুলে দেয়া হয় শাদাবের। শেষ ওভারে ১০ রান দিয়ে পাকিস্তানকে ৩ রানের জয় এনে দেন শাদাব।
 
৪ ওভারে ১৪ রানের বিনিময়ে ৪ উইকেট নিয়ে ম্যাচসেরা হয়েছেন শাদাব খান।

আরও সংবাদ