Widget by:Baiozid khan
শিরোনাম:

ঢাকা Mon June 25 2018 ,

গুলশান ডিসিসি কর্নারের উদ্বোধন করলেন মেয়র

Published:2017-04-14 09:45:15    
গুলশান-১ ডিএনসিসি মার্কেটের ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের এশিয়ার সর্ববৃহৎ যমুনা ফিউচার পার্কে বরাদ্দকৃত দোকানগুলো বৃহস্পতিবার উদ্বোধন করেন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আনিসুল হক। বাংলা নববর্ষের আগের দিন যমুনা গ্রুপের বরাদ্দকৃত দোকানগুলো আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করায় ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীরা সন্তোষ প্রকাশ করেন। যমুনা ফিউচার পার্কের দ্বিতীয় তলায় ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের ১১০টি দোকান ডিসিসি কর্নার নামে চালু করা হয়েছে।  
  
ডিসিসি কর্নারের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন উপলক্ষে বৃহস্পতিবার ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীরা তাদের দোকানগুলো দৃষ্টিনন্দন করে সাজান।  
  
সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, যমুনা ফিউচার পার্কের গুলশান ডিসিসি কর্নারে আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ডের উন্নতমানের কসমেটিকস, ড্রাইফুড, টয়লেট্রিজ পণ্য সামগ্রী, ফ্রোজেন ফুড, শিশু খাদ্য সামগ্রী, চকলেট, খেলনা, গার্মেন্ট আইটেম, পার্টি আইটেম, ব্যাগ ও ক্রোকারিজের বিপুল সমাহার। উদ্বোধনের পরপর দোকানগুলোতে ক্রেতাদের উপচে পড়া ভিড় লক্ষ্য করা যায়।  
  
ডিসিসি কর্নারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মেয়র আনিসুল হক বলেন, ‘আমি খুবই খুশি যমুনা গ্রুপের প্রতি। কেননা, তারা বিপদে বন্ধুর পাশে দাঁড়িয়েছে। একজন ব্যবসায়ী হিসেবে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের পাশে দাঁড়ানোয় যুমনা গ্রুপের চেয়ারম্যানের প্রতি ঢাকা শহরের মেয়র হিসেবে আমি অনেক অনেক কৃতজ্ঞ।’ 
  
তিনি আরও বলেন, ‘গুলশান-১ ডিএনসিসি মার্কেটে অগ্নিকাণ্ডের পর ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীরা হতাশ হয়ে পড়েন। এমন সময় তাদের ঘুরে দাঁড়াতে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে যমুনা গ্রুপ। ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের এশিয়ার বৃহত্তম মার্কেটে ১১০টি দোকান বরাদ্দ দিয়েছেন। এছাড়াও ব্যবসায়ীদের ভাড়ার ক্ষেত্রে অনেক সুবিধা দিয়েছেন। আমি মনে করি, যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান এবং এ গ্রুপ সব সময়ই ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের পাশে দাঁড়াবে।’       
ডিসিসি কর্নারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম বলেন, টেলিভিশনে গুলশান-১ ডিএনসিসি মার্কেটের আগুনের খবর দেখে কষ্ট পেয়েছিলাম। সে সময় ভেবেছিলাম কিভাবে তাদের সহযোগিতা করা যায়। পরে সুযোগ এলে যমুনা ফিউচার পার্কের বড় দোকানগুলোকে ছোট ছোট ভাগ করে ব্যবসায়ীদের চাহিদার আলোকে ৪০০-৫০০ বর্গফুটের দোকান করে দিয়েছি।’  
  
তিনি আরও বলেন, ‘যমুনা গ্রুপ এবং যমুনা ফিউচার পার্কের পক্ষ থেকে আপনাদের এতটুকু আশ্বস্ত করতে চাই, আপনারা আমাদের ব্যবসায়ী ভাই। কখনও কোনো সাহায্য দরকার হলে সরাসরি আমাদের কাছে চলে আসবেন। আমরা আপনাদের সহযোগিতা করার সর্বোচ্চ চেষ্টা করব।
  
ব্যবসায়ীদের উদ্দেশে বক্তব্য দিচ্ছেন যমুনা গ্রুপ চেয়ারম্যানদেশের শীর্ষ শিল্পোদ্যোক্তা নুরুল ইসলাম বলেন, ‘যমুনা ফিউচার পার্কের মালিক শুধু যমুনা গ্রুপ নয়। এটার মালিক দেশের জনগণ। এটা দেশের গর্বের বিষয়। আগে বিদেশিরা দেশে এলে শুধু দেশের গরিব চিত্র দেখে যেত। এখন যমুনা ফিউচার পার্কে বিদেশিরা এসে অবাক হন। যমুনা ফিউচার পার্ক দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করতে ভূমিকা পালন করছে।’ 
  
যমুনা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শামীম ইসলাম বলেন, ‘ব্যবসায়ী হিসেবে নৈতিক দায়বদ্ধতা থেকে গুলশানের ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের পাশে দাঁড়িয়েছি। ভবিষ্যতেও আমরা ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের পাশে দাঁড়াব। যমুনা ফিউচার পার্কের ডিসিসি কর্নার উদ্বোধন করতে আসায় ডিএনসিসি মেয়রকে ধন্যবাদ জানান তিনি।’ 
  
বৃহস্পতিবার বিকালে ডিএনসিসি মেয়র আনিসুল হক যমুনা ফিউচার পার্কে প্রবেশ করে ডিসিসি কর্নার ঘুরে দেখেন। পরে আনুষ্ঠানিকভাবে ফিতা কেটে ডিসিসি কর্নারের উদ্বোধন করেন। এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন- যমুনা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শামীম ইসলাম। এরপর যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম ডিসিসি কর্নারের জন্য নর্থ এন্ট্রি গেটের ফিতা কেটে উদ্বোধন করেন। এর মধ্য দিয়ে যমুনা ফিউচার পার্কের ডিসিসি কর্নারে স্কেলেটরের (চলন্ত সিঁড়ি) মাধ্যমে সরাসরি প্রবেশের সুযোগ সৃষ্টি হল।

আরও সংবাদ