Widget by:Baiozid khan
শিরোনাম:

ঢাকা Sun August 19 2018 ,

মুক্তিযোদ্ধার তালিকায় রাজাকার, ডাকাত ও শিশু

Published:2017-05-01 10:26:26    

কিশোরগঞ্জের হোসেনপুরে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার আবদুস সালামের বিরুদ্ধে প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের বাদ দিয়ে রাজাকার, ডাকাত ও শিশুদের তালিকায় রাখার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেছে স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধারা। রোববার দুপুরে উপজেলা আওয়ামীলীগ কার্যালয়ের সামনে এ কর্মসূচি পালন করা হয়।
মুক্তিযোদ্ধা, মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও সর্বস্তরের জনগণের ব্যানারে আয়োজিত এ কর্মসূচিতে স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতারাও সংহতি প্রকাশ করে বক্তৃতা করেন। পরে তারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর কাছে একটি স্মারকলিপি দেন।

স্মারকলিপিতে অভিযোগ করা হয়, গত ১৮ ফেব্রুয়ারি মুক্তিযোদ্ধাদের যে যাচাই-বাছাই অনুষ্ঠিত হয়, তাতে প্রকৃত অনেক মুক্তিযোদ্ধাদের বাদ দিয়ে রাজাকার, ডাকাত ও একাত্তরে তিন বছর বয়স ছিল-এমন তিন জনকে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে অন্তভূক্তির সুপারিশ করা হয়। এসব অপকর্ম স্থানীয় কমান্ডার আবদুস সালামের নেতৃত্বে সম্পন্ন হয়েছে।
উপজেলা ডেপুটি কমান্ডার জামাল উদ্দিনের সভাপতিত্বে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধনে বক্তৃতা করেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জহিরুল ইসলাম নূরু মিয়া, সাধারণ সম্পাদক শাহ মাহবুবুল হক, আওয়ামী লীগ নেতা তাজুল ইসলাম, আবদুল্লাহ আল মামুন সহ প্রমুখ।
উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহ মাহবুবুল হক অভিযোগ করেন, কমান্ডারের নেতৃত্বে যাচাই-বাছাইয়ের নামে এখানে প্রহসন হয়েছে। কাজেই রাজাকার ও ডাকাতদের তালিকা থেকে বাদ দিয়ে বাদ পড়া প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের নাম তালিকাভুক্ত করতে হবে। নইলে আরো কঠোর কর্মসূচি দেয়ার হুশিয়ারি দেন মুক্তিযোদ্ধারা।


জানা গেছে, হোসেনপুরে মুক্তিযোদ্ধাদের যাচাই বাছাইয়ে আগের তালিকাভুক্ত ২১০জন মুক্তিযোদ্ধার মধ্যে ৩৫জন বাদ পড়েছেন। আর নতুন আবেদন করা ১৬৬ জনের মধ্যে ১৬জনের নাম তালিকায় যোগ করতে সুপারিশ করা হয়েছে।
এব্যাপারে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার আব্দুস সালাম তাঁর বিরুদ্ধে আনা সব অভিযোগ অস্বীকার করে তিনি বলেন, বাদ পড়া অমুক্তিযোদ্ধারাই এক হয়ে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অপবাদ দিচ্ছে। তিনি বলেন, যাচাই-বাছাই কমিটিতে আমি একা ছিলাম না। সবার সম্মিলিত সিদ্ধান্তেই এ প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে।
তিনি আরো বলেন, আসলে মূল বিষয় এখানে না, সামনে আওয়ামী লীগের সম্মেলন হবে। এতে আমি সভাপতি পদের জন্য প্রার্থী হব। তাই দলের একটি অংশ আমার বিরুদ্ধে উঠেপড়ে লেগেছে। সব মিলিয়ে এ বিক্ষোভ বা মানববন্ধনকে আমি ষড়যন্ত্রমূলক মনে করি। আর যাচাই-বাছাই নিয়ে কারো অভিযোগ থাকলে তার আপিলের সুযোগও রয়েছে। এসব নিয়ে একা আমাকে দায়ী করলে তো অবিচার করা হবে।

আরও সংবাদ