Widget by:Baiozid khan
শিরোনাম:

ঢাকা Fri December 06 2019 ,

  • Techno Haat Free Domain Offer

জাতির পিতার অবদান অস্বীকার মানে স্বাধীনতা অস্বীকার :ডেপুটি স্পিকার

Published:2017-08-23 21:17:08    
নিজস্ব প্রতিবেদক:      
জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার মো. ফজলে রাব্বী মিয়া বলেছেন, যারা জাতির পিতার অবদানকে অস্বীকার করে তারা বাংলাদেশ, বাঙালি জাতি ও স্বাধীনতাকে অস্বীকার করে। জাতির পিতার জন্ম না হলে এ বাংলাদেশ নামক স্বাধীন রাষ্ট্রের জন্ম  হত না। আর বাংলাদেশ না হলে দেশের কোন গুরুত্বপূর্ণ পদে কোন বাঙালি আসীন হতে পারতেন না। 
 
বুধবার সংসদ ভবনের এলডি হল প্রঙ্গণে শেরেবাংলানগর গণপূর্ত ঠিকাদার ব্যবসায়ী কো-অপারেটিভ আয়োজিত জাতীয় শোকদিবসের  আলোচনাসভা ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন।  
 
আয়োজোক সংগঠনের সভাপতি মো.আবু দায়েন মীর এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন এমপি, আওয়ামীলীগের উপ-প্রচার সম্পাদক মো. আমিনুল ইসলাম, ডিএনসিসি’র কাউন্সিলর ফরিদুর রহমান খান ইরান, শেরে বাংলানগর থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি মো.ছাব্বির হোসেন মাছুদ, সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মো. খুরশিদুর রহমান প্রমুখ।
 
ফজলে রাব্বী মিয়া বলেন, বঙ্গবন্ধু শুধু একটি নাম নয় একটি ইতিহাস, একটি আন্দোলন, একটি স্বাধীন বাংলাদেশ। দীর্ঘ আন্দোলন সংগ্রাম ও আত্মত্যাগের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধু গোটা বাঙালি জাতিকে একত্রিত করতে পেরেছিলেন। ৭ মার্চে রেসকোর্স ময়দানে ঐতিহাসিক ভাষণের মধ্য দিয়ে স্বাধীনতার ডাক দিয়েছিলেন। তাঁর আহবানে সাড়া দিয়ে বাঙালি জাতি মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন। বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বেই বাংলাদেশে স্বাধীন হয় এটাই ঐতিহাসিক সত্য। 
 
এসময় তিনি ষোড়শ সংশোধনী এ্যপিলেট ডিভিশনের দেয়া রায়ে কিছু অপ্রাসঙ্গিক কথাবর্তার সমলালোচনা করে বলেন, সংসদ যদি অকার্যকর হয়, সংসদ সদস্যরা যদি অদক্ষ হন তাহলে এই সংসদই রাষ্ট্রপতি নির্বাচন করেছেন এবং সেই রাষ্ট্রপতিই প্রধান বিচারপতিসহ অন্যান্য বিচারপতি নিয়োগ দিয়েছেন। তাদের (বিচারক) নিয়োগের বিষয়ে তো  তাদের কোন প্রশ্ন নেই। এই সংসদই বিচারকদের বেতন-ভাতাসহ অন্যাান্য সুযোগ সুবিধা বৃদ্ধি করেছে সেটি গ্রহণ করার ক্ষেত্রেও তো তাদের কোন দ্বিমত আমরা লক্ষ্য করিনি। কিন্তু যখন ৭২ এর মূল সংবিধানে ফিরে যেতে সরকার ষোড়শ সংশোধী বিল আনল এবং সংসদ সেটি পাশ করল ঠিক তখনই সংসদ ও সরকার  বিচার বিভাগের বিরাগভাজন হয়ে পড়ল।
 
ডেপুটি স্পিকার বলেন, একজন এমিক্যাস কিউরি যিনি বাংলাদেশের সংবিধান প্রণয়ন কমিটির সভাপতি ছিলেন তিনিই আজ ৭২ এর সংবিধান পরিপন্থি কথা বলছেন। অনেকটা নিজেই নিজের সন্তানকে হত্যা করার মত কাজে লিপ্ত হয়েছেন। তার কাছ থেকে এমন স্ববিরোধী কথাবার্তা জাতি আশা করেনি।
 
তিনি বলেন, দেশের অগ্রযাত্রাকে ব্যাহত করতে একধরণের ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছে। এসময় তিনি আওয়ামীলীগ ও তার অঙ্গসংগঠনগুলোর নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধভাবে এ ষড়যন্ত্রের মোকাবেলা করার আহ্বান যানান।
 
আলোচনান্তে  জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ ১৫ আগস্টের কালরাতে ঘাতকের হাতে নিহত সকল শহীদদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন ডেপুটি স্পিকার।
 
 

আরও সংবাদ