Widget by:Baiozid khan
শিরোনাম:

ঢাকা Sun September 23 2018 ,

ঈদের আগে সড়ক মহাসড়ক সংস্কারে ৩১১ প্রকল্প

Published:2018-03-05 21:19:13    

আগামী ঈদুল ফিতরের আগেই সারা দেশের সড়ক-মহাসড়কগুলো সংস্কার করে তা চলাচলের উপযোগী করতে ৩১১টি প্রকল্প নিয়েছে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়। এ প্রকল্পগুলোর বাস্তবায়নে অর্থ ব্যয় ধরা হয়েছে ১৫ হাজার ৯৪১ কোটি টাকা।

সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের অধীন সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের রক্ষণাবেক্ষণ কর্মসূচি এবং চলমান উন্নয়ন প্রকল্প সম্পর্কিত বিবরণীতে এসব তথ্য উল্লেখ করা হয়েছ।

বিবরণীতে বলা হয়েছে,  রক্ষণাবেক্ষণ খাতের অধীনে চলতি অর্থবছরে গৃহীত ও চলমান কর্মসূচির সংখ্যা ১৮৬ টি এবং বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির আওতায় বর্তমানে চলমান প্রকল্প সংখ্যা ১২৫ টি। সর্বমোট ৩১১টি প্রকল্প বাস্তবায়নে চলতি অর্থবছরে মহাসড়ক রক্ষণাবেক্ষণ খাতে বরাদ্দ হয়েছে ১৭০৪ কোটি ৪৮ লাখ কোটি টাকা এবং বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির আওতায় সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের অনুকূলে বরাদ্দের পরিমান ১৩০৭০ কোটি ৯৪ লাখ কোটি টাকা। বন্যায় ও অতিবর্ষণে ক্ষতিগ্রস্থ মহাসড়ক রক্ষণাবেক্ষণের জন্য রক্ষণাবেক্ষণ খাতে বিদ্যমান বরাদ্দের অতিরিক্ত ১১৬৬ কোটি টাকার চাহিদা অর্থ মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে।

আজ সোমবার সচিবালয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় এক সংবাদ সম্মেলনে এসব প্রকল্পের বিবরণী তুলে ধরেন সচিব মো. নজরুল ইসলাম।

সচিব বলেন, সম্প্রতিকালের বন্যায় ও অতিবৃষ্টিতে মহাসড়কের বেশ কিছু অংশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এগুলো সচল রাখার জন্য তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা গ্রহণের পাশাপাশি সম্পূর্ণরূপে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে আনার জন্য সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। যার অধিকাংশ চলমান রয়েছে। সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর এ সকল কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছে এবং মন্ত্রণালয় থেকে ২৩টি মনিটরিং টিম এর মাধ্যমে এ সকল কার্যক্রম তদারকী করা হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

বিবরণীতে বলা হয়েছে, সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের আওতাধীন সারাদেশে ৮৭৬টি মহাসড়ক রয়েছে। এগুলোর দৈর্ঘ্য হলো ২১৩০২ দশমিক ৮ কিলোমিটার। গত বন্যায় ও অতিবর্ষণে দেশের ২২টি জেলায় ৬২টি স্থানে মোট ৪ দশমিক ৯২ কিলোমিটার মহাসড়ক বিলীন হয়ে যায় এবং ৭৫টি স্থানে ৬৭ দশমিক ২০ কিলোমিটার মহাসড়ক পানিতে নিমজ্জিত হয়ে পড়ে। এছাড়া তিনটি পার্বত্য জেলায় ২৫১টি স্থানে পাহাড় ধ্বসে মহাসড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। বন্যায় ৫১১৫ কিলোমিটার মহাসড়ক ক্ষতিগ্রস্থ হয়।

সচিব বলেন, চলতি অর্থবছরে রক্ষণাবেক্ষণ খাতে দৈনন্দিন মেরামতের জন্য ১০০ কোটি টাকা, পিএমপি মাইনর কর্মসূচির আওতায় ৫৫৯ কোটি টাকা, পিএমপি মেজর কর্মসূচির আওতায় ১১২৫ কোটি টাকা এবং অন্যান্য খাতে ২০ দশমিক ৪৮ কোটি টাকা। আগামী ঈদের আগে সবগুলো সড়ক ও মহাসড়কেরই সংস্কার কাজ শেষ হবে এবং যানবাহন চলাচল কোনো ধরনের অসুবিধা হবে না বলে জানান সচিব।

আরও সংবাদ