Widget by:Baiozid khan

লাইফ সাপোর্টে রাজীব হোসেন

Published:2018-04-10 11:32:46    
দুই বাসের চাপায় ডান হাত হারানো কলেজছাত্র রাজীব হোসেনের শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়েছে। এ তথ্য নিশ্চিত করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অর্থোপেডিকস বিভাগের প্রধান শামসুজ্জামান শাহীন জানান, রাজীব হোসেনের শারীরিক অবস্থা সোমবার পর্যন্ত ভালই ছিল। মঙ্গলবার সকালে হঠাৎ করেই তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়।
 
তিনি জানান, রাজীব হোসেনের মাথার অাঘাত গুরুতর হওয়ার কারণে নিউরোলজিক্যাল অবস্থার অবনতি ঘটে। এতে করে শ্বাসকষ্ট বেড়ে যায়। তাই তাকে লাইফ সাপোর্টে নেয়া হয়েছে।
 
রাজীব হোসেনের মামা জাহিদ হোসেন জানান, ভোর সাড়ে চারটা থেকে রাজীবের কোনো সাড়াশব্দ নেই। নড়াচড়া একেবারেই কম ছিল। তারপর ডাক্তাররা তাকে লাইফ সাপোর্টে রেখেছেন।
 
উল্লেখ্য, ৩ এপ্রিল বিআরটিসির একটি দোতলা বাসের পেছনের ফটকে দাঁড়িয়ে গন্তব্যের উদ্দেশ্যে যাচ্ছিলেন মহাখালীর সরকারি তিতুমীর কলেজের স্নাতকের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র রাজীব হোসেন। বাসটি হোটেল সোনারগাঁওয়ের বিপরীতে পান্থকুঞ্জ পার্কের সামনে পৌঁছালে হঠাৎ করে পেছন থেকে স্বজন পরিবহনের একটি বাস ওভারটেক করে।
 
সেসময় বিআরটিসির দোতলা বাসটির পেছনের ফটকে দাঁড়িয়ে থাকা রাজীবের ডান হাতটি বাইরের দিকে সামান্য বেরিয়েছিল। স্বজন পরিবহনের বাসটি বিআরটিসি বাসের গা ঘেঁষে পেরিয়ে যাওয়ার সময় রাজীবের হাতটি কাটা পড়ে। তাকে দ্রুত পান্থপথের শমরিতা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু চিকিৎসকেরা চেষ্টা করেও বিচ্ছিন্ন সে হাতটি রাজীবের শরীরে আর জোড়া লাগাতে পারেননি। পরে তাকে বুধবার ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়।
 
ঢাকায় রাজীব হোসেন যাত্রাবাড়ীর মীর হাজিরবাগের একটি মেসে থাকতেন। পড়াশোনা চালাচ্ছিলেন স্বজনদের সহযোগিতায়। রাজীবের মা-বাবা অনেক আগেই মারা গেছেন। তিন ভাইয়ের মধ্যে রাজীব সবার বড়। বাড়ি পটুয়াখালীর বাউফলের দাসপাড়ায়। রাজীব টিউশনি করতেন এবং চাচা, খালাসহ সবার সহযোগিতায় পড়াশোনা চালিয়ে নিচ্ছিলেন।
 
রাজীব হোসেনের চিকিৎসার যাবতীয় খরচ সরকার বহন করবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। সুস্থ হলে তাকে সরকারি চাকরি দেওয়ার আশ্বাসও দিয়েছেন তিনি।

আরও সংবাদ