Widget by:Baiozid khan
শিরোনাম:

ঢাকা Tue September 25 2018 ,

সিরিয়ায় রাসায়নিক হামলায় কঠিন পদক্ষেপের প্রতিশ্রুতি ট্রাম্পের

Published:2018-04-10 11:36:25    
সিরিয়ার দৌমা শহরে কথিত রাসায়নিক অস্ত্রের হামলার জবাবে দ্রুত, জোরালো পদক্ষেপ নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।
 
সোমবার মার্কিন সামরিক বাহিনীর নেতৃবর্গ ও দেশটির জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টাদের সঙ্গে এক বৈঠকে এ প্রতিশ্রুতি দেন তিনি।
 
বৈঠকে ট্রাম্প বলেছেন, সোমবার রাতের মধ্যে ‘বা এরপর খুব অল্প সময়ের মধ্যেই’ প্রতিক্রিয়া জানানোর বিষয়ে একটি সিদ্ধান্ত নিবেন তিনি।
 
সিরিয়ায় ‘সামরিকভাবে বেছে নেবার মতো অনেক বিকল্প’ যুক্তরাষ্ট্রের আছে বলে এ সময় মন্তব্য করেন তিনি।
 
“সবাই যেরকম নৃশংসতা প্রত্যক্ষ করলাম তা হতে দিতে পারি না আমরা। আমাদের বিশ্বে এটি হতে দিতে পারি না আমরা, বিশেষভাবে যখন যুক্তরাষ্ট্রের শক্তির কারণে আমাদের সক্ষমতা আছে, আমাদের দেশের শক্তির কারণে আমরা এগুলো বন্ধ করতে সক্ষম,” বৈঠকে তিনি এমনটি বলেছেন বলে জানিয়েছে রয়টার্স।
 
সিরিয়ায় নিয়োজিত প্রধানত যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক ত্রাণ সংস্থাগুলো ও দৌমার বিদ্রোহীগোষ্ঠী জইশ আল ইসলাম শনিবার রাতে দৌমায় রাসায়নিক অস্ত্রের হামলা চালানো হয়েছে বলে অভিযোগ করেছে। এতে অন্তত ৬০ জন নিহত ও হাজার জনেরও বেশি আহত হয়েছেন বলে অভিযোগ পক্ষগুলোর।
 
দৌমায় কোনো ধরনের ‘রাসায়নিক’ হামলার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা অস্বীকার করেছে সিরিয়া সরকার ও রাশিয়া।
 
রয়টার্স জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের প্রাথমিক পর্যালোচনা এ পর্যন্ত সন্দেহাতীতভাবে নির্ধারণ করতে পারেনি হামলায় কী ধরনের ‘রাসায়নিক’ ব্যবহার করা হয়েছে, আর সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদের সরকারের বাহিনীগুলোই যে এর পেছনে আছে তাও নিশ্চিতভাবে বলতে পারেনি।
 
ট্রাম্প বলেছেন, এই হামলার জন্য কে দায়ী তা ওয়াশিংটনের কাছে ‘আরও পরিষ্কার হচ্ছে’।
 
যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা রয়টার্সকে জানিয়েছেন, বহুজাতিক সামরিক পদক্ষেপের বিষয়টি যাচাই করে দেখছে ওয়াশিংটন।
 
হোয়াইট হাউস জানিয়েছে, তাদের পদক্ষেপ সমন্বিত করার জন্য ২৪ ঘন্টারও কম সময়ের মধ্যে দ্বিতীয়বার টেলিফোনে কথা বলেছেন ট্রাম্প ও ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ।
 
সোমবার সকালে যুক্তরাষ্ট্রের মন্ত্রীসভার এক বৈঠকে দৌমার হামলার জন্য যদি রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের ওপর কোনো দায় বর্তায় সে ক্ষেত্রে কী হবে, এমন সম্ভাবনা নিয়ে আলোচনায় ট্রাম্প বলেছেন, “তিনি হতে পারেন, হ্যাঁ, তিনি হতে পারেন। যদি তিনি করে থাকেন, তাহলে এটি খুব কঠিন হতে যাচ্ছে, খুব কঠিন।”
 
রাশিয়া জানিয়েছে, সিরিয়ার সরকারি বাহিনীর বিরুদ্ধে মার্কিন বাহিনী কোনো হামলা চালালে তা ‘গুরুতর বিপর্যয়’ সৃষ্টি করবে বলে যুক্তরাষ্ট্রকে সতর্ক করেছে তারা।
 
অর্গানাইজেশন ফর দ্য প্রহিবিটেশন অব কেমিক্যাল উইপন (ওপিসিডব্লিউ) এর নেতৃত্বাধীন আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলো সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কের নিকটবর্তী পূর্ব গৌতা অঞ্চলের বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত শহর দৌমায় প্রকৃতপক্ষে কী ঘটেছে তা বের করা চেষ্টা করছে।

আরও সংবাদ