Widget by:Baiozid khan
  • Advertisement

খসড়া অভিন্ন দাবি ও লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে : মান্না

Published:2018-10-12 22:46:19    

বিশেষ প্রতিবেদক: ‘একটা আন্দোলন গড়ে তোলার জন্য যে অভিন্ন দাবি সেটা সন্নিবেশিত করার চেষ্টা করছিলাম। লক্ষ্য নির্ধারণ করার চেষ্টা করছিলাম।’ তিনি আরো বলেন, ‘একটা খসড়া অভিন্ন দাবি ও লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে।’

আজ শুক্রবার সন্ধ্যায় রাজধানীর উত্তরায় জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) সভাপতি আ স ম আবদুর রবের বাসায় অনুষ্ঠিত বৈঠক শেষে এসব কথা বলেন মাহমুদুর রহমান মান্না। জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার চূড়ান্ত রূপরেথা নির্ধারণে অনুষ্ঠিত ওই বৈঠকে অংশ নেয় বিএনপি, যুক্তফ্রন্ট ও জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়া।

বৈঠকশেষে মাহমুদুর রহমান মান্না সাংবাদিকদের বলেন, ‘একটা আন্দোলন গড়ে তোলার জন্য যে অভিন্ন দাবি সেটা সন্নিবেশিত করার চেষ্টা করছিলাম। লক্ষ্য নির্ধারণ করার চেষ্টা করছিলাম। যাদের যে সমস্ত প্রস্তাব ছিল সে প্রস্তাবগুলো আমরা সন্নিবেশ করার চেষ্টা করেছি। একটা খসড়া অভিন্ন দাবি ও লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে।’

মান্না আরো বলেন, ‘আমরা মনে করি এটা একটা খুব বড় রকম অগ্রযাত্রা; আমরা আমাদের মূল দাবি এবং ঘোষণা, লক্ষ্য স্থির করতে পেরেছি। কাল শুধু একটা ফরমালিটির বাকি আছে। শেষ করার পর আমরা আপনাদের সামনে হাজির হব।’ 

এদিকে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মালেক রতন নয়া দিগন্ত প্রতিবেদককে জানান, জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার রূপরেখা প্রস্তুত হয়েছে। তবে আন্দোলনের অভিন্ন লক্ষ্য ও দাবির খসড়াও চূড়ান্ত করতে আজ আবার বসবেন তারা। তিনি জানান দীর্ঘ আলাপ আলোচনার পর আমরা বৃহত্তর জাতীয় ঐক্য গড়ে তুলতে সম্মত হয়েছে। ঐক্যবদ্ধভাবে গণতন্ত্র প্রতিষ্টা এবং ভোটের অধিকার রক্ষায় এক সাথে আমরা আন্দোলন করবে বলে সিদ্ধান্ত হয়। এজন্য অভিন্ন দাবিদাওয়া, লক্ষ্য এবং রূপরেখার খসড়া চুড়ান্ত করেছি। দুই একদিনের মধ্যে আরও একদফা বৈঠকের পর এটি ঘোষণা করা হবে।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রব, সহ-সভাপতি তানিয়া রব, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, প্রধান সমন্বয়ক শহীদুল্লাহ কায়সার, কেন্দ্রীয় নেতা ডা. জাহিদ, গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসিন মন্টু, নির্বাহী সভাপতি সুব্রত চৌধুরী, বিকল্প ধারার যুগ্ম মহাসচিব মাহি বি চৌধুরী, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, ডাকসুর সাবেক ভিপি সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমেদ প্রমুখ।

আরও সংবাদ