Widget by:Baiozid khan
শিরোনাম:

ঢাকা Sat October 23 2021 ,

  • Techno Haat Free Domain Offer

ঝালকাঠিতে পরকীয়া প্রেমে মাদ্রাসা শিক্ষক

Published:2013-05-01 18:07:56    

ফাঁস হওয়ায় এলাকায় তোলপার!
ঝালকাঠি প্রতিনিধি : ঝালকাঠি পৌরসভার বাসন্ডা এলাকার এক প্রবাসীর স্ত্রীর সাথে ইসলামীয়া সিনিয়র মাদ্রাসায় শিক্ষক মাও: মাহাবুবুর রহমানের অবৈধ শারীরিক সর্ম্পকের ঘটনা ফাঁস হওয়াকে কেন্দ্র করে ঝালকাঠি শহর জুরে তোলপার সৃষ্টি হয়েছে।     
    
ঝালকাঠি ইসলামীয়া সিনিয়র মাদ্রাসার শিক্ষক গোরস্থান মসজিদের ঈমাম মাহাবুবের কেলেংকারী জানাজানি হওয়ার পর মসজিদ পরিচালনা কমিটি তাকে স্বেচ্ছায় চলে যেতে বলায় ৩০ এপ্রিল মঙ্গলবার নিজেই দায়িত্ব থেকে অব্যহতি নিয়েছে বলে জানা গেছে।
     
এদিকে স্থানীয় একটি মহলকে মোটা অংকের অর্থের বিনিময়ে ঘটনা ধামাচাপা দেয়ার বহু চেষ্টা করেও ম্যানেজ করতে না পেরে নিজেই আত্মগোপনের কৌশল নিয়েছে বলে নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে।
     
সরেজমিন অনুসন্ধানে কালে প্রতিবেশী সূত্র জানায়, নলছিটি উপজেলার নাঈুলী গ্রামের মৃত মোজাম্মেল হক এর ছেলে মোঃ মাহাবুবুর রহমান দীর্ঘ ২০ বছর যাবৎ ঝালকাঠী ইসলামীয়া মাদ্রাসায় শিক্ষক হিসেবে কর্মরত ও বাসন্ডা এলাকায় বাড়ী-ঘর তুলে বসবাস করছে।
      
গত ১৭ এপ্রিল মাদ্রাসার শিক্ষক মাহাবুবের বাসায় স্ত্রী-সন্তান না থাকার বাসন্ডা এলাকায় তার ঘর একাংশের ভাড়াটিয়া মধ্যপ্রাচ্য চাকরিরত এক প্রবাসীর স্ত্রী ও পশ্চিম ঝালকাঠি খেয়াঘাট সংলগ্ন একটি ধর্মীয় পরিবারের মেয়ের সাথে অবৈধ যৌন সম্পর্কে লিপ্ত হয়। অপকর্মের ফলে উক্ত প্রবাসীর স্ত্রীর অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে তার পিতার বাসার নিয়ে গোপনে চিকিৎসাও দেয়া হচ্ছে বলে সূত্রটি জানিয়েছে।
    
সূত্রটি আরো জানায়, তার এ অবৈধ কর্মকান্ড কয়েকজন প্রতিবেশী দেখে ফেলায় ও তাদের মাধ্যমে কয়েকজন ‘চিহ্নিত মিডিয়ার লোক’ ঘটনা ধামাচাপা দিতে মাহাবুবের কাছ থেকে মোটা অংকের অর্থ হাতিয়ে নিলেও বিভিন্ন মাধ্যমে ১৮ এপ্রিল ঘটনা বিভিন্ন মহলে ছড়িয়ে পরে।
     
অবস্থা বেগতিক দেখে ১৯ এপ্রিল মাদ্রাসা থেকে পূর্বঅনুমতি না নিয়ে ঢাকা চলে যায় এবং ফোনের মাধ্যমে ৩দিনের ছুটি নিয়ে ৮দিন পর রবিবার সকালে মাও: মাহাবুব ঝালকাঠিতে ফিরে মাদ্রাসায় আসেন।
   
ঝালকাঠি ফিরে মাও: মাহাবুব জেলা প্রশাসক ওপৌর মেয়রের কাছে ছোটাছুটি করে ঘটনা মিথ্যা ও জমিজমা সংক্রান্ত পূর্ব বিরোধের জের ধরে অপপ্রচার বলে চালানোর চেষ্টা করে ব্যর্থ হন।
    
আলোচিত এ বিষয়টি ঝালকাঠি জেলা প্রশাসকের কানে পৌছলে তিনি নিরপেক্ষ তদন্তের মাধ্যমে ঘটনার সত্যতা জানতে পেরে গোরস্তান মসজিদ পরিচালনা কমিটির সদস্যদের মাও: মাহাবুব কে অপসারনের পরামর্শ দেন। ২৯ এপ্রিল মসজিদ কমিটি মিটিং করে মাও: মাহাবুব কে অপসারনের সিদ্ধান্ত জানিয়ে স্বেচ্ছায় চলে যাওয়ার সুযোগ দিলে তিনি নিজেই পদত্যাগ করেন।
     
তবে তার কর্মস্থল ঝালকাঠী ইসলামীয়া মাদ্রাসায় ৩ দিনের ছুটি নিয়ে ৮ দিন পরে যোগদান, রবিবারের পর আরো ৩ দিন মাদ্রাসায় ছুটি না নিয়ে অনুপস্থিত থাকা সর্বপরি এহেন কেলেংকারীর ঘটনায় দায়েকোন কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহন না করায় সচেতন মহলে নানা প্রশ্নের সৃষ্টি হয়েছে।
     
এ ব্যাপারে মাদ্রাসায় শিক্ষক মাওলানা মাহাবুব সাংবাদিকদের জানান, মিথ্যা-বানোয়াট বলে দাবী করেন। তিনি সকলের কাছেই বলেন, জমিজমা নিয়ে পূর্ব বিরোধের জের ধরে স্থানীয় একটি কুচক্রি মহল তাকে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য এসব অপপ্রচার চালাচ্ছে।


বাংলাসংবাদ২৪/আজমীর হোসেন/একে কাব্য

আরও সংবাদ