Widget by:Baiozid khan
  • Advertisement

স্বাস্থ্যকর খাবার তৈরির পদ্ধতি

Published:2013-05-23 04:03:57    

বাংলাসংবাদ ডেস্ক: রান্নার কিছু কিছু পদ্ধতি খাবারের পুষ্টিগুণ অনেকটাই নষ্ট করে দিতে পারে। খাবারের গুণাগুণ ধরে রাখার জন্য তাই দরকার কিছু সচেতনতা।

১. সবজির খোসা ছাড়ানোর সময় যতটা পাতলা করে সম্ভব খোসা ছাড়ানো উচিত। সবজির ভিটামিন ও খনিজ সবচেয়ে বেশি থাকে ঠিক তার খোসার তলায়। তাই মোটা করে খোসা ছাড়িয়ে পানিতে সেদ্ধ করলে সবজির ভিটামিন হারিয়ে যায়।

২. সবজি যতটা সম্ভব বড় বড় টুকরো করে কাটা উচিত। ছোট টুকরো দ্রুত অক্সিজেনের সংস্পর্শে এসে ভিটামিনকে ধ্বংস করে খুব তাড়াতাড়ি।

৩. সবজি কাটার পর তা পানিতে বেশিক্ষণ ডুবিয়ে রাখলে পানিতে দ্রবণীয় ভিটামিনের প্রায় ৪০ শতাংশ নষ্ট হয়ে যায়। সবজি কাটার পর তাই সামান্য পানিতে অল্প সময়ে ধুয়ে নেওয়া ভালো।

৪. গাজর, মুলা, বিট, আলু খোসাসহ সেদ্ধ করে পরে খোসা ছাড়ান। এতে ভিটামিন ও খনিজ সবজির ভেতরে ঢুকে পড়ে। ফলে পুষ্টিগুণ বজায় থাকে বহুগুণে।

৫. চাল যতটা সম্ভব কম পরিমাণ পানি দিয়ে ধোয়া ভালো। বারবার চাল পানিতে ধোয়ার ফলে থায়ামিন ও নিকোটিনিক অ্যাসিডের মতো গুরুত্বপূর্ণ দুটি উপাদান নষ্ট হয়ে যায়।

৬. সালাদ বেশি আগে কেটে রাখা ঠিক নয়। খাওয়ার ঠিক আগেই সালাদ কাটা ভালো। সালাদ কখনো খোলা ছড়ানো বাটিতে পরিবেশন করবেন না। এতে অক্সিজেনের সংস্পর্শে এসে কাঁচা সালাদের গুণাগুণ কমে যায়।

৭. দুধ ঢেকে না রাখলে দুধের রিবোফ্লাবিন নষ্ট হয়ে যায় খুব অল্প সময়ে।৯. শাকসবজি রান্না করে বেশিক্ষণ রেখে দিলে বা বারবার গরম করলে এর পুষ্টিগুণ হারিয়ে যায়। শাকসবজি তাই রান্নার পরপরই বাসি না করে খেয়ে ফেলা ভালো।

৮. রান্নায় বেকিং সোডা খাবারকে সুস্বাদু করে ঠিকই, কিন্তু পাশাপাশি ভিটামিন সি এবং বি ধ্বংস করে দেয় পুরোপুরি।

৯. শাকসবজি রান্না করে বেশিক্ষণ রেখে দিলে বা বারবার গরম করলে এর পুষ্টিগুণ হারিয়ে যায়। শাকসবজি তাই রান্নার পরপরই বাসি না করে খেয়ে ফেলা ভালো।

১০. শসা, গাজর, লেটুস, বিট, মুলা ইত্যাদি সবজি কাঁচা খাওয়াই ভালো। কাঁচা সবজিতে পুষ্টির গুণাগুণ অনেক বেশি থাকে।


বাংলাসংবাদ২৪/জিসান/সাকিল