Widget by:Baiozid khan
শিরোনাম:

ঢাকা Mon June 18 2018 ,

শারীরিক ত্রুটি আড়াল করার ১৫ টি কৌশল

Published:2013-06-05 16:20:38    



ডেস্ক: সৃষ্টির সেরা জীব মানুষ। তবুও মানুষের চাহিদার কোনশেষ নেই। সব সময় নিজেকে অসন্তুষ্টির মধ্যেই যেন রাখতে ভালো বাসে!

আরেকটু লম্বা হলাম না কেন, আরেকটু ফর্সা হলাম না কেন, আরেকটু চিকন হলাম না কেন- এমন হাজারো অতৃপ্তি কাজ করে অনেকের মনে। তবে সব চাওয়া পূর্ণ না হলেও কিছু কিছু ব্যাপারের আপনি নিজেই আনতে পারেন পূর্ণতা। যেমন ঢেকে ফেলতে পারেন আপনার শরীরের অপছন্দের খুঁত! এজন্য আর কিছু নয়, পোশাক বাছাইয়ে হতে হবে একটুখানি কৌশলী।

১)অনেকেরই শরীরের উপরের অংশের চেয়ে নিচের অংশ ছোট বা লম্বায় কম থাকে, অর্থাৎ পা গুলো খাটো হয়। ফলে সব ধরনের ও কাটের পোশাক মানায় না। যাঁদের শরীরের ঊর্ধ্বাংশের চেয়ে নিম্নাংশ ছোট তাঁরা বেশি ঝুলওয়ালা পোশাক এড়িয়ে চলুন। এতে খাটো দেখায় বেশি। মেয়েরা কামিজ ও ছেলেরা পাঞ্জাবীর ক্ষেত্রে সেমি লং আকৃতির পরুন। একেবারে শর্ট কামিজ/ পাঞ্জাবীও আবার পরবেন না। এতে পা অনেকখানি বেরিয়ে থাকার ফলেও খাটো দেখাবে।

২)আপনার উচ্চতা কম হলে সালোয়ার বা প্যান্ট খুব বেশি ঢোলা পরবেন না, তাতে আরও খাটো দেখাবে। মেয়েরা টাইটস, লেংগিস বা জেংগিস পরতে পারেন কামিজের সাথে। ছেলেরা খুব বেশী ফিটিং বা একেবারে ঢোলা প্যান্ট বাদ দিয়ে মানানসই প্যান্ট পরুন, এবং অবশ্যই স্ত্রেইট কাটের। উচ্চতা কম হলে বা শরীরের নিম্ন অংশ তুলনামূলক ছোট হলে পশ্চিমা পোশাক পরতে হয় খুব সাবধানে। একেবারে ছোট টপস, গেঞ্জি, শার্ট পরবেন না। মাঝারি ঝুলের ফতুয়া, গেঞ্জি, টিউনিক, টপস ইত্যাদি পরুন।

৩)উচ্চতা কম, কিংবা মোটা মানুষেরা আড়াআড়ি স্ট্রাইপ বা বড় জংলী প্রিন্টের পোশাক পরবেন না একেবারেই। অপর দিকে যারা বেশী চিকন বা লম্বা, তাঁর পরুন আড়াআড়ি স্ট্রাইপ বা বড় জংলী প্রিন্টের পোশাক। এতে ওজন বেশী ও হ্যাংলা ভাব কম দেখাবে।

৪)যাঁদের শরীরের নিচের অংশ উপরের তুলনায় বেশি ভারি, বিশেষ করে থাই, তাঁরা এমন পোশাক পরলে ভালো দেখায় যা থাই বা খুঁতের জায়গাটি একেবারেই ঢেকে ফেলে। এক্ষেত্রে কামিজ বা পাঞ্জাবী পরুন একটু লম্বা ঝুলের এবং গাঢ় রঙের। পাঞ্জাবী/কামিজের দুপাশের কাটা অংশ একটু কম করে দিন। এতে পাশ থেকে থাই কম দেখা যাবে। নিচে চওড়া নকশার কাজ এড়িয়ে চলুন।

৫)থাই মোটা বলেই যে ঢিলা সালোয়ার বা প্যান্ট পরতে হবে, তা নয়! সেমি ফিটেড সালোয়ার বা প্যান্ট পরুন। তবে মেয়েরা টাইটস বা লেংগিসের মতো ফিটিং জিনিস না পরাটাই ভালো হবে। আর একান্তই পড়তে চাইলে সাথে রুমালছাঁট বা কুঁচি দেয়া লম্বা ঝুলের পোশাক পরুন।

৬)মোটা ছেলেরা জিন্স পরুন স্ট্রেইস কাটের, ন্যারো কাট একদম পরবেন না। এতে হিপ এবং থাই আরো চওড়া দেখাবে। প্যান্ট সব সময় গাঢ় রঙের পরুন। এছাড়াও গোল গলার গেঞ্জি না পরে শার্ট কলার পরুন। গোল গলায় ওজন বেশী মনে তো হবেই, সাথে ভুরিটাও বেশ ফুটে উঠবে।

৭)শাড়ি অনেকেরই পছন্দের পোশাক। তবে মোটা বলে অনেক মেয়েই পরতে অস্বস্তি বোধ করেন। ভাবেন শাড়ি পরলে বোধহয় আরো মোটা লাগবে! আসলে সঠিক কাপড় নির্বাচন এবং পরার ধরন আপনাকে দিতে পারে 'স্লিম লুক'! হালকা ধরনের কাপড়ের শাড়ি পরুন। যেমন সফট সিল্ক, ক্রেপ সিল্ক বা জর্জেট। অফিস বা অন্য কাজের জায়গায় অনায়াসে পরতে পারেন এসব শাড়ি। উত্‍সব বা পার্টিতে ভারী শাড়ি পরতে চাইলে তসর সিল্ক বা সিল্ক বেনারসি পরতে পারেন।

৮)মোটা মেয়েরা ভারী শাড়ি পরলে পেটের কাছে বেশি কুঁচি দেবেন না। বরং আঁচলটা লম্বা রাখুন। শাড়ি গাঢ় রঙের পরুন। একরঙা বা গাঢ় কনস্ট্রাস্টের শাড়ি পরলে বেশি ভালো লাগবে। প্রিন্টের শাড়ি যথাসম্ভব এড়িয়ে চলুন।

৯)সারা শরীর ঠিকঠাক অথচ হাতের গড়ন মোটা? এমনটা হলে পোশাক বাছাই বেশ ঝক্কির ব্যাপারই বটে! বিশেষ করে ছোটহাতার পোশাক পরতেই চান না অনেকেই। এবং আসলেই ছোটহাতার পোশাক যতটা সম্ভব এড়িয়ে চলাই ভালো এমন অসুবিধায়। তবে যদি একান্তই পরতে চান তবে ম্যাগি হাতা পরে দেখতে পারেন। পরতে পারেন কাপতান বা ওই কাটিংয়ের পোশাক। এতে হাত ঢেকে থাকে অনেকটা। ছোটহাতাও পরা হলো আবার হাতও দেখা গেল না!

১০)থ্রি-কোয়ার্টার রয়েছে হাল ফ্যাশনের হাতায়। তাই মোটা মেয়েরা নিশ্চিন্তে পরুন থ্রিকোয়ার্টার হাতার পোশাক, হতে পারে সেটা কামিজ, ফতুয়া বা টপস। নিজেকে আরেকটু 'স্টাইলিশ' রূপে দেখতে চাইলে পরুন বেল বা ডিভাইডার হাতার পোশাক। ডিভাইডার হাতার সৌন্দর্য বাড়াতে এতে যোগ করতে পারেন ফিতা।

১১)মোটা হাতের মেয়েরা শাড়ি পরলে স্ট্রেইট হাতের ব্লাউজ পরুন। ছোট হাতার ব্লাউজ একরঙা না পরে ছোট ছোট প্রিন্টের বা চেকের ব্লাউজ পরুন। এতে হাত কম মোটা দেখাবে।

১২)কারুকাজ করা ভারী শাড়ি পরলে ব্লাউজ পরুন সাধারণ। ভারী কাজের ব্লাউজ পরলে ওজন বেশী দেখায়। স্ট্রেইট কাটের থ্রিকোয়ার্টার ব্লাউজ পরতে পারেন। ফুলহাতা পরতে চাইলে নেটের হাতা পরুন। চুড়িদার ব্লাউজ পরলেও ওজন কম লাগবে, হাতও চিকন দেখাবে।

১৩) ছেলেরা এবং মেয়েরা উভয়েই লম্বালম্বি সরু স্ট্রাইপের পোশাক বেছে নিন। ওজন কম মনে হবে আবার লম্বাও দেখাবে বেশ।

১৪) ভুরি থাকলে খুব বেশী ফিটিং পোশাক ছেলেদের না পরাই ভালো। সেই সাথে একেবারে পাতলা ফিনফিনে শার্ট বা টি শার্টও এড়িয়ে চলুন।

১৫) যাদের কাঁধ বা শরীরের উপরের অংশ বেশী চওড়া, তেমন ছেলেরা টি শার্টে ও মেয়েরা ব্লাউজ বা কামিজের গলার ক্ষেত্রে ভি শেপ বেছে নিতে পারেন। এতে চওড়া ভাব কমে যাবে। চেক কাপড়ের পোশাকে ভুরি ঢাকা পরে অনেকটাই।

বাংলাসংবাদ২৪/এনএম

 

আরও সংবাদ