Widget by:Baiozid khan
  • Advertisement

ইউসুফের অভিযোগ গঠনের শুনানি ১৬ জুন

Published:2013-06-06 13:12:11    

ঢাকা: মুক্তিযুদ্ধের সময় সংঘটিত মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে আটক জামায়াতের নায়েবে আমির মাওলানা একেএম ইউসুফের বিরুদ্ধে আসামীপক্ষের প্রস্তুতির জন্য সময় বাড়িয়ে অভিযোগ গঠনের শুনানি আগামী ১৬ জুন অনুষ্ঠিত হবে।

বৃহস্পতিবার এটিএম ফজলে কবিরের নেতৃত্বে গঠিত তিন সদস্যের আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ এ একে এম ইউসুফের আইনজীবী অ্যাডভোকট তাজুল ইসলাম মামলার প্রস্তুতির জন্য সময় আবেদন করলে  ১৬ জুন অভিযোগ গঠনের শুননির জন্য দিন ধার্য করা হয়।

এর আগে গত ৬ মে তার পক্ষে করা জামিন আবেদন খারিজ করেছেন ট্রাইব্যুনাল।

আদালতে সময় আবেদনের পরে ট্রাইব্যুনাল বলেন মিস্টার তাজুল ইসলাম কতদিনের সময় চান ? তাজুল বলেন, ৪ সপ্তাহ। আদালত বলেন ১৩ জুন। ৪ সপ্তাহ না ১ সপ্তাহ সময় দিলাম।

তাজুল ইসলাম বলেন, ১০ দিন সময় দেয়া হলো না। আদালত পরে ১৬ জুন দিন ধার্য করেন এবং  বলেন ১৬ জুন দিলাম। পরে আর সময় আবেদন গ্রহণ করবো না বলেও জানান আদালত।

এর আগে গত ১৪ মে তার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের শুনানির জন্য ৬ জুন দিন ধার্য করে দেন ট্রাইব্যুনাল। তবে আজ তার আইনজীবীর সময় আবেদন গ্রহণ করে শুনানি পিছিয়ে শুনানির পরবর্তী দিন ১৬ জুন দিন ধার্য করা হয়েছে।

আদালতে আজ শুনানিতে অ্যাডভোকেট তাজুল ইসলাম অভিযোগ করেন প্রসিকিউশন তার মক্কেলের বিরুদ্ধে কেস ডায়েরি ও তদন্ত প্রতিবেদন বাদেও তার প্রয়োজনীয় নথিপত্র  আদালতে দাখিল করার পরও তাকে দেয়া হয়নি।  অপরদিকে প্রসিকিউটর সৈয়দ হায়দার আলী এই অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন আমরা কেস ডায়েরি ও তদন্ত রিপোর্ট বাদে সকল ডকুমেন্ট তাদের আইনজীবীদের কাছে দিয়েছি।

আদালত তাদের উভয়ের আর্গুমেন্ট শুনে বলেন আমরা দাখিলকরা ডকুমেন্ট পর্যবেক্ষন করার পরে প্রয়োজনীয় আদেশ দিব।
 
আসামীপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট তাজুল ইসলাম, সাইফুর রহমান, ব্যারিস্টার এমরান এ সিদ্দিক, মতিউর রহমান আকন্দ ও রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন চীফ প্রসিকিউটর গোলাম আরিফ টিপু, প্রসিকিউটর সৈয়দ হায়দার আলী, হৃষিকেশ সাহা, সুলতান মাহমুদ সিমন, জেয়াদ আল মালুম ও আব্দুর রহমান হাওলাদার সহ অন্যান্য প্রসিকিউটর আদেশের সময় ট্রাইব্যুনালে উপস্থিত ছিলেন।

জামায়াত নেতার পক্ষে শুনানি করেন আসামীপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট তাজুল ইসলাম। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন সৈয়দ হায়দার আলী।

এর আগে গত ১২ মে রোববার ট্রাইব্যুনালের এক আদেশে ধানমন্ডির বাসা থেকে জামায়াতের এই নেতাকে গ্রেফতার করে আইন শৃংখলা বাহিনী।

এর আগে গত ৮ মে বুধবার ট্রাইব্যুনালের রেজিস্ট্রার অফিস বরাবর প্রসিকিউটর হৃষিকেষ ১৫ টি অভিযোগের ভিত্তিতে আনুষ্ঠানিক অভিযোগ (ফরমাল চার্জ) দাখিল করে প্রসিকিউশন। একই সঙ্গে তাকে গ্রেফতারের আবেদনও করা হয়।

গত ২২ এপ্রিল জামায়াতের এ নেতার বিরুদ্ধে তদন্ত চুড়ান্ত করে প্রতিবেদন চীফ প্রসিকিউটর বরবার প্রতিবেদন জমা দেয় তদন্ত সংস্থা।

একেএম ইউসুফের বিরুদ্ধে একাত্তর সালে ৭শ জনকে গণহত্যা, ৮ জনকে হত্যা, ২শ হিন্দু লোককে জোরপূর্বক ধর্মান্তরিত করাসহ ৩শ বাড়ী লুন্ঠন এবং ৪শ দোকান লুন্ঠন ও অগ্নিসংযোগ করার অপরাধ আনা হয়েছে।

মাওলানা একেএম ইউসুফের বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিক অভিযোগে (ফরমাল চার্জে) মূল ৮৫পৃষ্ঠার ১৫ টি অভিযোগের ভিত্তিতে ফরমাল চার্জ দাখিল করা হয় ।

তদন্ত সুত্রে জানা যায় একেএম ইউসুফের বিরুদ্ধে ২০১২ সালের ২২ জানুয়ারি তদন্ত শুরু করে গত ২১ এপ্রিল শেষ করে।

বাংলাসংবাদ২৪/সাকিল আহমেদ/এসএস
 

আরও সংবাদ