Widget by:Baiozid khan
  • Advertisement

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ঘেরাওয়ের হুঁশিয়ারি

Published:2013-06-06 16:14:08    

ঢাকা: বন্ধ গণমাধ্যম খুলে দেওয়ার দাবিতে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে সরকারের টনক না নড়লে রাস্তায় সভা-সমাবেশ, সচিবালয় ঘেরাওসহ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ঘেরাওয়ের হুঁশিয়ারি দিয়েছেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি রুহুল আমীন গাজী।

মঙ্গলবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাব চত্বরে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন ও ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন আয়োজিত গণমাধ্যম বন্ধের প্রতিবাদে অবস্থান কর্মসূচিতে তিনি এ  হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন।

তিনি বলেন, স্বাধীন গণমাধ্যম প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন অপরিহার্য। ৭৫ সালে আইন করে বাকশাল কায়েম করা হয়েছিল আর বর্তমানে আইন না করেই বাকশাল কায়েমের চেষ্টা করা হচ্ছে।

তথ্যমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, জীবনে একবার এমপি হয়েছেন আর শেষ সময়ে এসে মন্ত্রিত্ব পেয়েছেন, তাই ক্ষমতার ভারে তালগোল পাকিয়ে মিডিয়া ব্যবস্থাপনাকে জগাখিচুড়ি বানিয়ে দিচ্ছেন। বাংলার মিডিয়া সাদা কে সাদা বলবে, কালো কে কালো বলবে- এটাই স্বাভাবিক। মনে রাখবেন, সাংবাদিক সমাজ আপনাদের চাটুকারিতায় অভ্যস্ত নয়।

রুহুল আমীন গাজী বলেন, সবদলের অংশগ্রহণে একটি গ্রহণযোগ্য নির্বাচন না হলে গণতন্ত্র প্রাতিষ্ঠানিক রূপ পাবে না। স্বাধীন গণমাধ্যমও সম্ভব নয়।

র‌্যাবকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীরা যখন প্রকাশ্যে অস্ত্র নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে, তাদের গ্রেফতার করতে পারছেন না; ভিন্নমতের নিরপরাধ রাজনৈতিক নেতাকর্মীদের ধরে সন্ত্রাসী বানানোর চেষ্টা করছেন। ভিন্নমত দমনের জন্য র‌্যাব তৈরি হয়নি বরং অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীদের ধরার জন্য র‌্যাবের সৃস্টি হয়েছিল।

প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, বিরোধীদলের নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করা যায়; কিন্তু সাগর-রুনির খুনিদের গ্রেফতার করতে পারেন না। আসলে সরকার মুখে যা বলছে, কাজ করছে তার সম্পূর্ণ বিপরীত।

অনতিবিলম্বে মাহমুদুর রহমানের মুক্তি, আমার দেশ, দিগন্ত ও ইসলামিক টিভিসহ সকল সরকারের রোষাণলে পড়ে বন্ধ হওয়া গণমাধ্যম খুলে দেওয়া এবং অনতিবিলম্বে সাগর-রুনির খুনিদের গ্রেপ্তারের জোর দাবি জানান তিনি।

জাতীয় প্রেসক্লাবের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক কাদের গণি চৌধুরী বলেন, ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য সরকার যে নীলনকশা তৈরি করেছে তা যেন ফাঁস না হয়, সেজন্য গণমাধ্যমের কণ্ঠ চেপে ধরেছে সরকার।

অবস্থান কর্মসূচিতে আরো বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব এম আব্দুল্লাহ, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক বাকের হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম প্রধান, ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক ইলিয়াস খান, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের আমার দেশের ইউনিট চিফ বাছির জামান প্রমুখ।

বাংলাসংবাদ২৪/জিসান/নূর
 

আরও সংবাদ