Widget by:Baiozid khan
শিরোনাম:

ঢাকা Thu September 20 2018 ,

সূচকের ওঠানামার মধ্য দিয়ে উভয় বাজারে লেনদেন চলছে

Published:2013-07-21 12:53:22    

ঢাকা: দেশের শেয়ারবাজারে সূচকের উত্থান-পতন প্রত্যক্ষ করা যাচ্ছে। এর আগে টানা দুই দিন বাজারে সূচকের পতন ঘটে।

রোববার সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসে লেনদেনের শুরুতে সূচক কিছুটা ইতিবাচক থাকলেও পরবর্তীতে বাজার চিত্র পাল্টাতে থাকে। এ সময় বাজারে সূচকের ওঠানামা লক্ষ্য করা যায়। বর্তমানে প্রধান দুই শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ(ডিএসই) এবং চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে(সিএসই) একই ধারার মধ্যে লেনদেন চলছে। অর্থ্যাত্ সূচক কখনও বাড়ছে আবারও কখনও কমেছে।

এদিকে, সূচকের উত্থান-পতন সত্ত্বেও আধা ঘণ্টা শেষে উভয় বাজারে বেশির ভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দাম বেড়েছে। সার্বিক লেনদেনে শ্লথ গতি পরিলক্ষিত হচ্ছে। প্রথম আধা ঘণ্টায় প্রধান বাজার ডিএসইতে সোয়া একশ’(১২৯) কোটি টাকার লেনদেন হয়েছে।

ডিএসই’র ওয়েবসাইট সূত্রে জানা যায়, বেলা সাড়ে এগারটায় ডিএসইএক্স সূচক ১৭ দশমিক শুন্য ৭ পয়েন্ট বেড়ে ৪ হাজার ২৪০ দশমিক ৬৯ পয়েন্টে  গিয়ে দাঁড়িয়েছে। এর আগে সকাল সোয়া ১১টায় সূচক ১৫ দশমিক ২৩ পয়েন্ট বেড়ে ৪ হাজার ২৪২ দশমিক ৭০ পয়েন্টে গিয়ে পৌছায়।

এ প্রতিবেদন তৈরির সময় পর্যন্ত ডিএসই’তে লেনদেন হয়েছে ২০০টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ডিবেঞ্চার। এদের মধ্যে দর বেড়েছে ১২৭টির, কমেছে ৫৪টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১৯টি কোম্পানির শেয়ারের দাম। মোট লেনদেন হয়েছে ১২৯ কোটি ৯৮ লাখ ১৮ হাজার টাকা। শেয়ার, ডিবেঞ্চার ও মিচ্যুয়াল ফান্ড বিক্রি হয়েছে ১ কোটি ৯৩ লাখ ১৯ হাজার ৭৩৯টি।এই সময়ের মধ্যে ডিএসইর লেনদেনের শীর্ষ দশে রয়েছে-মেঘনা পেট্রোলিয়াম, পদ্মা অয়েল, বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবলস, গ্রামীণফোন, অ্যাক্টিভফাইন কেমিক্যালস, তিতাস গ্যাস, যমুনা অয়েল, ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক, অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজ ও সায়হাম কটন।

এদিকে, দেশের আরেক শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে(সিএসই)ও একইভাবে লেনদেন শুরু হয়েছে। বেলা সাড়ে ১১টায় সিএসসিএক্স সূচক ২৮ দশমিক ১২ পয়েন্ট বেড়ে ৮ হাজার ৩৪৭ দশমিক ৭৩ পয়েন্টে গিয়ে দাঁড়িয়েছে। এর আগে সকাল সোয়া ১১টায় সূচক ৫৬ দশমিক ২৫ পয়েন্ট বেড়ে ৮ হাজার ৩৭৫ দশমিক ৮৩ পয়েন্টে গিয়ে অবস্থান করে।

এ সময় পর্যন্ত সিএসই’তে লেনদেন হয়েছে মোট ১১৪টি প্রতিষ্ঠানের। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৭২টির, কমেছে ৩৪টির ও অপরিবর্তিত রয়েছে ৮ কোম্পানির শেয়ারের দাম। টাকার পরিমাণে লেনদেন হয়েছে ১২ কোটি ২ লাখ ৭২ হাজার ২৭৩ টাকা। হাতবদল হওয়া শেয়ার, ডিবেঞ্চার ও মিচ্যুয়াল ফান্ডের পরিমাণ ২৫ লাখ ৭৫ হাজার ১৮৮টি।এই সময়ের মধ্যে সিএসই’র লেনদেনের শীর্ষ দশ কোম্পানি হলো- গ্রামীণফোন, তিতাস গ্যাস, ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক, জেএমই সিরিঞ্জ, পদ্মা অয়েল, মেঘনা পেট্রোলিয়াম, যমুনা অয়েল, বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবলস, বাংলাদেশ শিপিং কর্পোরেশন ও আর.এন স্পিনিং।


বাংলাসংবাদ২৪/এনএম/বিএইচ

আরও সংবাদ